ভুলে যাওয়ায় বাংলাদেশ ১১তম : উবার

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:০৪ এএম, ১৭ মার্চ ২০১৮

অনেক সময় ভুলে গাড়িতে নিজের কিছু ফেলে আসার ঘটনা ঘটে। উবার-এর গাড়িতে যাত্রীদের এমন ভুলে ফেলে যাওয়ার বিষয়ে বিশ্বের বিভিন্ন শহরের যাত্রীদের ভুলে যাওয়ার প্রবণতার তালিকা প্রকাশ করেছে অ্যাপভিত্তিক পরিবহন সেবাদাতা মার্কিন প্রতিষ্ঠানটি।

দ্বিতীয়বারের মতো প্রকাশিত ‘লস্ট অ্যান্ড ফাউন্ড ইনডেক্স’ নামের এ বছরের তালিকায় স্থান পেয়েছে বাংলাদেশও, দখল করে নিয়েছে ১১তম স্থান।

যাত্রীরা প্রায়ই যেসব জিনিসপত্র ভুলে রেখে যান তার ওপর ভিত্তি করেই উবার লস্ট অ্যান্ড ফাউন্ড ইনডেক্সটি তৈরি করা হয়েছে। এছাড়াও এই তালিকার মাধ্যমে কোনো শহরের মানুষের ভুলে যাওয়ার প্রবণতা সবচেয়ে বেশি।

বেশিরভাগ সময় রাজধানীবাসী উবারে যেসব জিনিস ভুলে রেখে যান-

*মোবাইল ফোন

*ব্যাগ

*মানিব্যাগ

*আইডি/লাইসেন্স/পাসপোর্ট

*চশমা

*কাপড়

*ছাতা

*চাবি/কি কার্ড/তালা

*টাকা

*বোতল

উবারের আঞ্চলিক মহাব্যবস্থাপক প্রোভজোৎ সিং বলেন, ‘এই বিশেষ তালিকাটির মাধ্যমে আমরা আমাদের যাত্রীদের জানাতে চাই যে তারা আমাদের অ্যাপটি ব্যবহার করেই তাদের হারিয়ে যাওয়া জিনিসটি ফেরত পেতে পারেন।’

যেভাবে পাওয়া যাবে উবারে হারানো বস্তু?

উবার-এর গাড়িতে ভুলে ফেলা আসা মালামাল কীভাবে পাওয়া যাবে তা নিয়ে একটি নির্দেশনা পাঠিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। এই নির্দেশনা অনুযায়ী ব্যবহারকারীকে প্রথমে উবার অ্যাপের মেনুতে গিয়ে ‘ইয়োর ট্রিপস’ বাটনে চাপ দিতে হবে। এরপর যে ট্রিপে কিছু হারিয়ে গেছে তা সিলেক্ট করতে হবে। সেখান থেকে ‘রিপোর্ট অ্যান ইসু’ বাটনটি সিলেক্ট করে ‘আই লস্ট অ্যান আইটেম’ অপশনে যেতে হবে। এই অপশনে ‘কনটাক্ট মাই ড্রাইভার অ্যাবাউট অ্যালস্ট আইটেম’ অপশনটি বাছাই করতে হবে। স্ক্রল করে নিচে নেমে ব্যবহারকারীর সঙ্গে যোগাযোগের ফোন নাম্বার দিতে হবে।

কিছুক্ষণের মধ্যে ব্যবহারকারীকে ফোন করা হবে এবং সরাসরি চালকের সঙ্গে যোগাযোগ করিয়ে দেয়া হবে। যদি চালক ফোন ধরেন এবং নিশ্চিত করেন যে তার কাছে জিনিসটি আছে তাহলে তার সঙ্গে যোগাযোগ করে ব্যবহারকারী জিনিসটি নিয়ে নিতে পারবেন। আর ব্যবহারকারী যদি চালকের সঙ্গে যোগাযোগ করতে না পারেন তাহলে অ্যাপের ‘ইন অ্যাপ সাপোর্ট’ অপশনটি বাছাই করে রিপোর্ট করতে হবে। এক্ষেত্রে উবারের সাপোর্ট টিম ব্যবহারকারীকে সহায়তা করবে বলে প্রতিষ্ঠানটির বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

এমআরএম/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :