আন্তর্জাতিক ফায়ার সেফটি অ্যান্ড সিকিউরিটি এক্সপোর উদ্বোধন

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:১২ পিএম, ০৫ এপ্রিল ২০১৮
আন্তর্জাতিক ফায়ার সেফটি অ্যান্ড সিকিউরিটি এক্সপোর উদ্বোধন

আন্তর্জাতিক ফায়ার সেফটি অ্যান্ড সিকিউরিটি এক্সপোর উদ্বোধন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এ প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন। তিন দিনব্যাপী এ প্রদর্শনীতে ৩০টি দেশের ৬০টি প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে।

অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, অগ্নি নিরাপত্তা বৃদ্ধিতে দেশব্যাপী ব্যাপক সচেতনতা সৃষ্টি ও প্রাক-প্রস্তুতির কোন বিকল্প নেই। এ লক্ষ্য পূরণে ফায়ার এক্সপো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

তিনি বলেন, অগ্নি নিরাপত্তাসহ দেশের সকল প্রাকৃতিক ও মানবসৃষ্ট দুর্যোগ-ঝুঁকি হ্রাস এবং সংঘটিত দুর্যোগে জানমালের ক্ষয়ক্ষতি সহনীয় পর্যায়ে রাখার লক্ষ্যে সরকারি প্রতিষ্ঠান হিসেবে কাজ করে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিভেন্স অধিদফতর। তবে সামগ্রিকভাবে সারাদেশের দুর্যোগ-ঝুঁকি কমিয়ে আনা এবং সংঘটিত দুর্যোগ মোকাবেলা করা এককভাবে একটি সরকারি প্রতিষ্ঠানের পক্ষে দূরহ।

এক্ষেত্রে বেসরকারি উদ্যোগ এ দূরহ কাজটি সহজসাধ্য করে তুলতে পারে। দেশব্যাপী সচেতনতা বৃদ্ধি এবং দুর্যোগ মোকাবেলায় প্রাক-প্রস্তুতি গ্রহণের জন্য সকল শ্রেণি-পেশার মানুষকে উদ্বুদ্ধ করার জন্য সেবা সংগঠনসহ বেসরকারি উদ্যোগ প্রয়োজন বলেও জানান তিনি।

jagonews24

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের মহাপরিচালক ব্রি. জে. আলী আহমেদ খান বলেন, এ প্রদর্শনী সব ধরনের প্রতিষ্ঠানের জন্য একটি গ্রেট প্ল্যাটফর্ম। এখানে আন্তর্জাতিক সব অত্যাধুনিক প্রযুক্তির যন্ত্রপাতি রয়েছে। আশা করি সবাই এতে উপকৃত হবেন।

র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ বলেন, আমরা উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হয়েছি, অর্থনীতিকভাবে সমৃদ্ধশালী হয়েছি। এ ধারা বজায় রাখতে সেফটি ও সিকিউরিটি নিশ্চিত করতে হবে। আমরা অনেক টাকা খরচ করে সিকিউরিটি প্রোডাক্ট কিনতে প্যারিস, দুবাই, শিকাগো যাই। আমরা চাই, আমাদের দেশেই এসব তৈরি হোক। ভবিষ্যতে আমরাই এসব যন্ত্রপাতি রফতানি করব।

এফবিসিসিআই-এর সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন বলেন, আমি এ এক্সপোতে আগত বিদেশি প্রতিষ্ঠানদের অনুরোধ করছি, আমরাও সবক্ষেত্রে সমৃদ্ধশালী দেশ, আপনারা বাংলাদেশে ফায়ার ও সিকিউরিটি যন্ত্রপাতির ইন্ডাস্ট্রি দেন।

বিজিএমইএ সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বলেন, আমরা ফায়ার সেফটির দিক থেকে অনেক সমৃদ্ধ, তাও বলবো আমাদের আরও এফিশিয়েন্ট ইকুইপমেন্ট আনতে হবে।

সম্প্রতি রোড রেসকিউতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখায় ফায়ার সার্ভসের ১০ জনকে সম্মাননা দেয়া হয়। ফায়ার এক্সপোর এ আয়োজন করেছে ইলেক্ট্রনিকস সেফটি অ্যান্ড সিকিউরিটি অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ইসাব)। এছাড়া কো-পার্টনার হিসেবে রয়েছে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স অধিদফতর।

এআর/আরএস/আরআইপি