বৃক্ষমেলায় ফুল ফলের মুগ্ধতা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৩৫ পিএম, ১৮ জুলাই ২০১৮

বৃক্ষ মেলায় ভরে উঠেছে ফুলে ফলে। এইসব ফুল আর ফল দেখে মুগ্ধ হবেন যে কেউ। ইট পাথুরের এই নগরীতে বৃক্ষের সৌন্দর্য দেখে বাগান করতে আগ্রহী হয়ে উঠতে পারেন। প্রতিবারের মতো এবারও আয়োজন করা হয়েছে জাতীয় বৃক্ষ মেলা।

রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে মাসব্যাপী বৃক্ষমেলার উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ বছর মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লাখ শহীদের স্মরণে ৩০ লাখ গাছ রোপন করা হয়। পরে প্রধানমন্ত্রী বন ও বন্যপ্রাণি রক্ষায় বিশেষ অবদান রাখার জন্য কয়েকজন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের মধ্যে পুরস্কার প্রদান করেন। এ ছাড়া জাতীয় পরিবেশ পদকও প্রদান করেন প্রধানমন্ত্রী।

এবারের মেলায় ১০০টিরও বেশি প্রতিষ্ঠান অংশগ্রহণ করেছে। মেলায় এসেছে বাহারি সব ফল, ফুল, ক্যাকটাস, অর্কিড জাতীয় উদ্ভিদ।

mela

বুধবার মেলা প্রাঙ্গণে দেখা যায়, সব প্রতিষ্ঠানগুলো নিজেদের স্টল সাজিয়ে নিচ্ছেন। এখনও চলছে স্টল বানানোর কাজ। কিন্তু নিজেদের নার্সারি সাজাতে কমতি রাখেনি তারা। শুধু নার্সারি নয়, অংশ নিয়েছে সরকারি প্রতিষ্ঠান, বেসরকারি সংস্থা বা এনজিও, হারবাল প্রোডাক্ট, বিয়োটেকনোলজি, অর্কিড উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান। এরা সবাই স্বল্প লাভে বৃক্ষপ্রেমীদের হাতে পছন্দের গাছটি তুলে দিতে চান।

মেলায় অংশ নেয়া ব্র্যাক নার্সারির বিক্রয়কর্মী আরমান হোসেন বলেন, আমাদের প্রস্তুতির কোনো ঘাটতি নেই। তবে কয়েকটি স্টলের কাজ এখনও শেষ হয়নি। আশা করি, আগামীকালের মধ্যেই সবাই কাজ শেষ করে ফেলবেন। আজ মেলার প্রথম দিন হওয়ায় ক্রেতা একটু কম ছিল।

এবারের মেলায় বহু রকমের আমসহ আম গাছ এসেছে। এগুলো বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে। এছাড়া এমন সব ফলের গাছ মেলায় উঠেছে যেগুলো আমাদের দেশীয় ফল নয়। আমের বাইরে দেশি-বিদেশি বিভিন্ন ফলের গাছ রয়েছে। এর মধ্যে মঙ্গোস্টিন, পিচ, চেরী , নাশপাতি, আভোকাডো অন্যতম। এসব গাছে ফল ধরে আছে তাই ফল ধরবে কিনা তা নিয়ে সন্দেহ থাকার কথা নয়। কারণ ফল অলরেডি ধরে আছে।

mela

বরাবরের মতো প্রচুর ফুলের গাছ পাওয়া যাচ্ছে। এসব ফুল গাছের সৌন্দর্য দেখে কেনার আগ্রহ বাড়তে পারে। রয়েছে নানা রকমের অর্কিড। এসব অর্কিড এ রয়েছে বাহারী উপস্থিতি।

কথা সাদিয়া জামানের সঙ্গে। তিনি বলেন, বৃক্ষমেলায় অর্কিডের উপস্থিতি অনেক আকর্ষণীয় থাকে। এর মানে অর্কিডের সংগ্রহ বাড়াতে চাইলে এই মেলা বড় সুযোগ। যে কেউ এই সুযোগ নিতে পারে।

মেলা প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

এমএ/জেএইচ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]