সাজছে জাতীয় ঈদগাহ ময়দান

মুহাম্মদ ফজলুল হক
মুহাম্মদ ফজলুল হক মুহাম্মদ ফজলুল হক , নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৪৪ পিএম, ১৩ আগস্ট ২০১৮

পবিত্র ঈদুল আজহার নামাজ আদায়ের জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিমকোর্ট সংলগ্ন জাতীয় ঈদগাহ ময়দান। সকাল ৮টায় এখানে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে। ঈদকে ঘিরে এরই মধ্যে মাঠে বাঁশের ওপর শামিয়ানা টাঙানোর কাজ চলছে।

এছাড়াও মাইক, ফ্যান, সিসি ক্যামেরা স্থাপনসহ যাবতীয় প্রস্তুত রেয়েছে। প্রধান জামাত অনুষ্ঠিতের জন্য জাতীয় ঈদগাহ ঘিরে নেয়া হবে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থায়।

জানা গেছে, এবার দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন আগস্ট মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকেই ঈদগাহ মাঠের পরিচর্যা ও বাঁশ দিয়ে প্যান্ডেল তৈরি, ময়দান পরিপাটি ও সৌন্দর্য বর্ধনের কাজ করছে। প্রতিবারের মতো এবারও পুরুষদের পাশাপাশি নারীদের জন্য আলাদা ব্যবস্থাপনায় নামাজ পড়ার ব্যবস্থা করা হবে।

Eid2

সরেজমিনে ঈদগাহ প্রাঙ্গণ ঘুরে দেখা গেছে, ৯০ থেকে ৮০ জন শ্রমিক বাঁশ দিয়ে অবকাঠামো প্রস্তুতির কাজ করছেন। একই সঙ্গে চলছে গেটের মেরামত ও রঙ করার কাজ। ঈদগাহের সামনের (মেহরাব) মিনারেও একই ধরনের কাজ করছেন শ্রমিকেরা। বাঁশের তৈরি অবকাঠামোর কাজ মাঠের দক্ষিণ ও পশ্চিম কোণ থেকে শুরু করা হয়েছে। এই অবকাঠামো তৈরির পরই টাঙানো হচ্ছে বৃষ্টি নিরোধক ত্রিপল।

আগামী ২২ আগস্ট রাষ্ট্রপতি, মন্ত্রিপরিষদের সদস্যসহ সমাজের সর্বস্তরের মুসল্লি এখানে ঈদের নামাজ আদায় করবেন। পবিত্র ইদুল আজহায় জাতীয় ঈদগাহে সাধারণ মুসল্লিদের পাশাপাশি ঈদের নামাজ আদায় করবেন রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিরাও। এজন্য এই ঈদগাহ ঘিরে কঠোর নিরাপত্তা বলয় তৈরি করেছে আইন-শৃংখলা বাহিনী। ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা, পোশাকধারী এবং সাদা পোশাকে গোয়েন্দা নজরদারি পাশাপাশি থাকবে ডগ স্কোয়াড।

জানা গেছে, মাঠে পাঁচ হাজার নারীসহ ৯০ হাজার মুসল্লি মিলিয়ে মোট ১ লাখ মানুষ নামাজ আদায় করতে পারবেন। প্রধান জামাত নিয়ে জাতীয় ঈদগাহে প্যান্ডেলের ভেতরে ও বাইরে সাজসজ্জার কাজ চলেছে। বৃষ্টির পানি সরাতে উন্নত পয়নিঃষ্কাশন ব্যবস্থা থাকবে। ভারি বৃষ্টিপাত হলে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে প্রধান জামাতের ব্যবস্থা করা হতে পারে।

Eid5

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন সূত্র জানিয়েছে, জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে সাড়ে পাঁচ হাজার নারীসহ ৯০ হাজার মুসল্লি একসঙ্গে নামাজ আদায় করতে পারবেন। এবারও ঈদগাহের দক্ষিণ পাশে নারীদের নামাজ আদায়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে। মুসল্লিদের অজুর জন্য পর্যাপ্ত পানির ব্যবস্থাও রয়েছে। নারীদের জন্য রয়েছে পৃথক অজুর স্থান। ভিআইপিদের জন্য থাকছে আলাদা ব্যবস্থা।

ঢাকা দক্ষিণের মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকনের সভাপতিত্বে মঙ্গলবার (১৪ আগস্ট) দুপুর ১২টায় নগর ভবনস্থ সেমিনার কক্ষে ঈদের প্রধান জামাতস্থল জাতীয় ঈদগাহ মাঠের নিরাপত্তাসহ সার্বিক ব্যবস্থাপনা নিয়ে সংশ্লিষ্ট সংস্থাসমূহের সঙ্গে সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হবে বলে সূত্রে জানা গেছে।

ডিএসসিসি সূত্রে জানা গেছে, ছামিয়ানা টাঙানোর কাজ শেষে নিরাপত্তার জন্য ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা বসানো হবে। পুলিশ জানায়, প্রতিবারের মতো এবারও ঈদগাহের নিরাপত্তায় থাকবে পুলিশের স্পেশাল উইপন অ্যান্ড ট্যাকটিক্স (সোয়াট) টিম। সিটি কর্পোরেশন ছাড়াও আলাদা ক্যামেরা ও কন্ট্রোল রুম স্থাপন করবে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)। নিরাপত্তা দেবে র‌্যাবের বোম ডিস্পোজাল ইউনিট এবং ডগ স্কোয়াড। ঈদগাহের চারপাশে সাদা পোশাকের গোয়েন্দারা উপস্থিত থাকবে।

ঈদের আগেই মেয়র সাঈদ খোকন, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ জাতীয় ঈদগাহ পরিদর্শন করবেন বলেও জানা গেছে।

ঈদগাহ মাঠ সাজানো ও নামাজের জন্য প্রস্তুত করার দায়িত্বে আছেন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স পিয়ারু সর্দার অ্যান্ড সন্স ডেকোরেটর। এ বিষয়ে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের অধীনে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজার মো. মোজাম্মেল হক বলেন, প্রায় ২ লাখ ৫৯ হাজার বর্গফুট আয়তন বিশিষ্ট জাতীয় ঈদগাহ ময়দানটি প্রস্তুত করতে নিরন্তর কাজ করছে ৯০ থেকে ৮০ জন শ্রমিক। ‘প্রতি বছরের ন্যায় এবারও আমরা ঈদের নামাজের জন্য ঈদগাহ প্রস্তুতির কাজ পেয়েছি।’ এ প্রতিষ্ঠানটি অনেক দিন ধরে জাতীয় ঈদগাহ ময়দান প্রস্তুতির কাজ করে আসছে বলেও জানান তিনি।

Eid7

মোজাম্মেল বলেন, ‘সম্পূর্ণ মাঠে বাঁশ দিয়ে প্যান্ডেল তৈরির কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এখন ওপর দিয়ে ত্রিপল টাঙানোর কাজ শুরু হয়েছে। বৃষ্টিতে যাতে সমস্যা না হয়, সেজন্য ওপরে দেয়া হচ্ছে মোটা ত্রিপলের ছাউনি। পানি নিষ্কাশনের জন্য রাখা হয়েছে ড্রেনেজ ব্যবস্থা।’

ঈদের আগেই ময়দানকে পুরোপুরি নামাজের জন্য প্রস্তুত করা সম্ভব হবে বলেও আশা প্রকাশ করেন মোজাম্মেল হক। ইসলামিক ফাউন্ডেশন সূত্রে জানা গেছে, জাতীয় ঈদগাহে নামাজের ইমামতি করবেন বায়তুল মোকাররমের সিনিয়র পেশ ইমাম মাওলানা মুহাম্মদ মিজানুর রহমান। বিকল্প ইমাম থাকবেন এ মসজিদেরই অপর একজন পেশ ইমাম।

এছাড়া বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে পর্যায়ক্রমে পাঁচটি ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে। জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের উদ্যোগে সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় ঈদের নামাজ আদায়ের ব্যবস্থা করা হবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদে ঈদের জামাত হবে। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সলিমুল্লাহ মুসলিম হলের প্রধান গেট সংলগ্ন মাঠ এবং শহীদুল্লাহ হল মাঠে জামাত হবে। ধানমন্ডির সোবহানবাগ জামে মসজিদে জামাত অনুষ্ঠিত হবে বলে সূত্রে জানা গেছে।

এফএইচ/এমআরএম/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :