প্রধান নদীগুলোর পানি বাড়ছে, বন্যার আশঙ্কা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:১৭ পিএম, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮
ফাইল ছবি

ভারী বৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা পানির কারণে দেশের প্রধান প্রধান নদ-নদীগুলোর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। ইতোমধ্যে তিনটি নদীর পানি তিনটি পয়েন্টে বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

আগামী দু’একদিনের মধ্যে বগুড়া, জামালপুর, সিরাজগঞ্জ ও গাইবান্ধা- এই চার জেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হতে পারে বলেও পূর্বাভাস দিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ডের বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র।

পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের তথ্য অনুযায়ী, শনিবার বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে যমুনা নদীর পানি বিপদসীমার ১৩ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এ ছাড়া টাঙ্গাইলের এলাসিনে ধলেশ্বরী নদীর পানি বিপদসীমার ২ সেন্টিমিটার ও সোমেশ্বরী নদীর পানি নেত্রকোণার কমলাকান্দায় বিপদসীমার ৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

বন্যা পূর্বাভাস কেন্দ্রের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আরিফুজ্জামান ভূইয়া শনিবার জাগো নিউজকে বলেন, ‘ব্রহ্মপুত্র-যমুনা এবং গঙ্গা-পদ্মা নদ-নদীগুলোর পানি বাড়ছে। এটা আগামী আরও কয়েক দিন অব্যাহত থাকতে পারে।’

আগামী ৪৮ ঘণ্টায় বগুড়া, জামালপুর ও সিরাজগঞ্জের জেলাগুলোর নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হতে পারে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘সেখানকার নদীগুলোর পানি বিপদসীমা অতিক্রম করতে পারে। নদীর তীরবর্তী চরগুলোতে পানি উঠতে পারে। যমুনা নদীর পানি রোববারের মধ্যে জামালপুরের বাহাদুরাবাদ পয়েন্ট ও সিরাজগঞ্জ পয়েন্টে বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হতে পারে। দু’একদিনের মধ্যে গাইবান্ধায় ফুলছড়ি পয়েন্টেও যমুনা নদীর পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হতে পারে।’

এই তিন জেলা ছাড়াও আরও নতুন নতুন জেলা প্লাবিত হতে পারে জানিয়ে আরিফুজ্জামান বলেন, ‘তবে বন্যা দীর্ঘমেয়াদি হবে না। স্বল্পমেয়াদি এ বন্যা দেশের মধ্যাঞ্চলেও দেখা দিতে পারে বলে আমরা মনে করছি।’

আবার মেঘনা অববাহিকায় প্রধান নদীগুলোর পানি কমছে বলে জানিয়েছেন নির্বাহী প্রকৌশলী।

ইতোমধ্যে দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাস দিয়ে আবহাওয়া অধিদফতরের গঠিত বিশেষজ্ঞ কমিটি জানিয়েছিল, সেপ্টেম্বর মাসের দ্বিতীয়ার্ধ থেকে শেষ অবধি দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চল ও দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে স্বল্পমেয়াদি বন্যা হতে পারে।

মৌসুমী বায়ু সক্রিয় হওয়ার কারণে গত কয়েক দিন ধরে দেশের উত্তরাঞ্চলে ভারী বৃষ্টিপাত হচ্ছে। শনিবার সকাল ৬টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হয়েছে নীলফামারীর ডিমলায়, সেখানে ১৪২ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদফতর সকাল ৯টা থেকে আগামী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে জানিয়েছে, রংপুর, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং রাজশাহী, ঢাকা, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের দু’এক জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সাথে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী বৃষ্টি হতে পারে।

আরএমএম/এনএফ/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :