যাত্রীরা ফেসবুকে অভিযোগ করলেও ব্যবস্থা নেবে বিআরটিএ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৪১ পিএম, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮

সড়কে, যানবাহনে ভোগান্তি কিংবা হয়রানির শিকার পথচারী, পরিবহন যাত্রীসহ যে কেউ এখন থেকে তাৎক্ষণিকভাবে অভিযোগ করতে পারবেন বাংলাদেশ রোড অ্যান্ড ট্রান্সপোর্ট অথরিটির (বিআরটিএ) কাছে। অভিযোগের সত্যতার ভিত্তিতে ব্যবস্থাও নেবে বিআরটিএ। এজন্য ফেসবুক পেজ খোলা হয়েছে।

ম্যাজিস্ট্রেট অব বিআরটিএ (www.facebook.com/magistratesbrta/) নামে ফেসবুক পেজটি তদারকি করছে বিআরটিএ এর ইনফোর্সমেন্ট বিভাগ। বিআরটিএ এর এই বিভাগের অধীনে দায়িত্বরত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে গণপরিবহনে যাত্রীদের অভিযোগ পাবার পর ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

এক্ষেত্রে চলতি গাড়িতে বিশেষ করে নারীদের সমস্যাগুলো দ্রুত আমলে নেয়া হবে। অভিযোগভেদে তাৎক্ষণিক সমাধান দেয়া শুরু হয়েছে বলে জাগো নিউজকে জানিয়েছেন বিআরটিএ সদর দফতরের পরিচালক (এনফোর্সমেন্ট) নুর মোহাম্মদ মজুমদার।

Brta

নিরাপদ সড়কের দাবিতে এক সপ্তাহের বেশি সময় আন্দোলনের পর শুরু হয় ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা নিয়ে নানা হিসাব। সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে কঠোর সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দেয় সরকার। ট্রাফিক ব্যবস্থাপনায় আমূল পরিবর্তন আনতে এক ডজন নির্দেশনা দেয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়।

প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে ১৬ আগস্ট প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে গভর্নেন্স ইনোভেশন ইউনিটের ‘ঢাকা শহরের ট্রাফিক ব্যবস্থাপনার উন্নয়ন’ সংক্রান্ত সভায় এসব সিদ্ধান্ত হয়।

পরে ২০ আগস্ট থেকে বাস্তবায়ন শুরুর কথা জানানো হয়। এজন্য বাংলাদেশ পুলিশ, বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) এবং ঢাকা মহানগর পুলিশকে (ডিএমপি) নির্দেশনা দেয়া হয়।

Brta

এ ব্যাপারে বিআরটিএ সদর দফতরের পরিচালক (এনফোর্সমেন্ট) নুর মোহাম্মদ মজুমদার বলেন, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিবের পরামর্শে এই ফেসবুক পেজটি খোলা হয়েছে। এটাতে যে কেউ অভিযোগ করতে পারবেন। আমাদের পক্ষ থেকে অভিযোগ আমলে নিয়ে ব্যবস্থা নেব।

তিনি বলেন, একাধিক কর্মকর্তা এই গ্রুপটি তদারকি করছেন। কয়েকজন পুলিশের ইন্সপেক্টর অভিযোগের সত্যতার ভিত্তিতে সমাধান করছেন। কোনো নারী ও প্রতিবন্ধী যখন অভিযোগ করবেন তখন পুলিশরা ওই বাস আটকে ব্যবস্থা নেবে।

এ ব্যাপারে বিআরটি এর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফয়সাল আহমেদ বলেন, আমাদের পুরো টিম চেষ্টা করছে, যে কোনো হয়রানি থেকে চালকদের নিবৃত করতে। সেই সঙ্গে যাত্রীদেরও সচেতন করে তুলতে। সচেতন নাগরিকরা এখন থেকে ভোগান্তিতে পড়লে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জেইউ/এমআরএম/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :