প্রতিমা ভাঙচুরের ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:০৩ পিএম, ১০ অক্টোবর ২০১৮

প্রতি বছরের মতো এ বছরও বাংলাদেশের হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা ‘শারদীয় দুর্গোৎসব’ এর আয়োজন করছে। তবে দেশের বিভিন্ন স্থানে প্রতিমা ভাঙচুরের ঘটনা ঘটছে উল্লেখ করে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে নারীপক্ষ নামের একটি সংগঠন। একই সঙ্গে, এই সকল ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত এবং অনতিবিলম্বে প্রকৃত দোষী ব্যক্তিদের খুঁজে বের করে অতিদ্রুত সুষ্ঠু তদন্ত ও নিরপেক্ষ বিচারের দাবি জানিয়েছেন সংগঠনটি।

বুধবার নারীপক্ষের আন্দোলন সম্পাদক ফরিদা ইয়াছমিন স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে এ দাবি জানানো হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, সর্বশেষ ঘটনাটি ঘটেছে গত ৭ অক্টোবর। ওইদিন রাতে দুর্বৃত্তরা গাজীপুর জেলার শ্রীপুর উপজেলার কাওরাইদ ইউনিয়নের পূর্ব সোনাব গ্রামে বটতলা কালীবাড়ি দুর্গা মন্দিরের সাতটি ও গোবিন্দ মন্দিরের চারটি প্রতিমা ভাঙচুর করে। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং এই সকল ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি করছি।

প্রতিমা ভাঙচুর কোনো বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয় বলে উল্লেখ করে এতে আরও বলা হয়, এই ধরনের সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসের দায় সরকার ও রাষ্ট্রের ওপরই বর্তায়। কারণ, গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের দায়িত্ব হলো ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকল নাগরিকের নিরাপত্তা এবং সকল ধর্মাবলম্বীদের নিজ নিজ ধর্মীয় উৎসব-অনুষ্ঠান নির্বিঘ্নে পালনের নিশ্চয়তা বিধান করা। এমন ঘটনা কেবল প্রতিমাকেই ভাঙে না, যুগ যুগ ধরে এদেশের সব ধর্মের মানুষের মধ্যে থাকা সম্প্রীতির ওপরও বড় আঘাত হানে।

সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস বন্ধে সরকার ও প্রশাসন পর্যায় থেকে গুরুত্ব দিয়ে জরুরি কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করার দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি।

এএস/এসআর/আরআইপি

আপনার মতামত লিখুন :