পালিয়ে যাওয়া ‘বৃক্ষমানব’ ফিরলেন ঢামেকে

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:৪৯ পিএম, ২০ জানুয়ারি ২০১৯

আড়াই বছর চিকিৎসারত অবস্থায় কাউকে কিছু না বলেই চলে গিয়েছিলেন বিরল রোগ ‘ট্রি ম্যান’ সিনড্রোমে আক্রান্ত আবুল বাজানদার। রোববার সকালে হাতে নতুন গজানো শেকড় নিয়ে আবারও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (ঢামেক) ফিরেছেন সেই ‘বৃক্ষমানব’।

আরও পড়ুন : অভিমানী বৃক্ষমানব আবুল বাজানদারের নীরব প্রস্থান!

আবুলের হাতে ছোট-বড় প্রায় ২৫টি অস্ত্রোপচার করেছিলেন চিকিৎসকরা। তবে চিকিৎসার আড়াই বছরের মাথায় ২০১৮ সালের ২৭ মে হাসপাতাল থেকে উধাও হয়ে যান তিনি। ঢামেকের রেজিস্ট্রি খাতায় তাকে ফেরারি হিসেবে দেখানো হয়েছিল।

রোববার ঢামেকে আসার পর তাকে বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে।

আরও পড়ুন : মানব হয়ে উঠছেন ‘বৃক্ষমানব’

বাজানদারের বিষয়ে ঢামেক বার্ন ইউনিটের সমন্বয়ক ড. সামন্ত লাল সেন জাগো নিউজকে বলেন, ‘বাজনদারের সঙ্গে আমার যতবার কথা হয়েছে আমি তাকে ফিরে আসতে বলেছি। রোববার সে ফিরে এসেছে। তার হাতের অবস্থা খারাপ। অস্ত্রোপচার করতে হবে। সোমবার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে তার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।'

আরও পড়ুন : জমি কেনার জন্য ৬ লাখ টাকা পেলেন বৃক্ষমানব

২০১৬ সালের ৩০ জানুয়ারি খুলনার দাকোপ উপজেলার আবুল বাজানদার ৫ কেজি ওজনের শেকড়ওয়ালা হাত নিয়ে প্রথম ঢামেকে ভর্তি হন। এপিডার্মো ডিসপ্লেশিয়া ভেরুকোফরমিস ভাইরাসের আক্রান্ত এই রোগে বাংলাদেশের প্রথম রোগী তিনি। দেশ-বিদেশে চলে এই ‘বৃক্ষমানব’ আলোচনা। ঢামেকে ২৫টি অস্ত্রোপচারের পর কিছুটা সুস্থ হলে কাউকে কিছু না বলে হাসপাতাল ছেড়ে চলে যান তিনি।

এআর/এসএইচএস/পিআর/এসজি