হজে বাড়ি ভাড়ায় অতিরিক্ত টাকা নেয়ার কারণ জানালেন সচিব

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৪:৩২ পিএম, ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব আনিছুর রহমান বলেছেন, আসন্ন হজ মৌসুমে মক্কা ও মদিনাতে সরকারি হজযাত্রীদের জন্য গত বছরের চেয়ে আরও উন্নতমানের আবাসনের ব্যবস্থা করা হবে।

তিনি বলেন, এবারের ঘোষিত হজ প্যাকেজে উন্নতমানের বাড়ি ভাড়া করার সুবিধার্থে ও যে কোনো ঝুঁকি এড়াতে হাজার দশেক অতিরিক্ত টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। বাড়ি ভাড়া কম টাকায় পাওয়া গেলে সরকারি হজযাত্রীদের অতিরিক্ত টাকা ফেরত দেয়া হবে।

মঙ্গলবার সচিবালয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে ‘বাড়ি ভাড়াবাবদ অতিরিক্ত অর্থ গ্রহণ করা হচ্ছে’,- গণমাধ্যমকর্মীদের এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি এসব কথা বলেন।

সচিব বলেন, গত বছর যে টাকায় বাড়ি ভাড়া করা হয়েছিল সে টাকায় এবার বাড়ি ভাড়া পাওয়া যাবে না। এবার হজ চুক্তি করতে গিয়ে তা দেখতে পেয়েছি। এ কারণে অতিরিক্ত টাকা রাখা হয়েছে।

গত বছর প্যাকেজ-১ এ মক্কা মদিনার জন্য ব্যয় হয় ৭ হাজার রিয়েল। এ বছর ৪০০ রিয়াল বেশি রাখা হচ্ছে। প্যাকেজ-২ ছিল ৪ হাজার ৩৫৭ রিয়েলের। এবার রাখা হচ্ছে ৪ হাজার ৭০০ রিয়েল।

তিনি বলেন, বাড়ি ভাড়ায় টাকা বেশি লাগলে হাজিরা এক টাকাও দেবেন না। সব সরকারকে দিতে হবে। এ কারণেই অতিরিক্ত টাকা নেয়া হচ্ছে। টাকা না লাগলে ফেরত দেয়া হবে।

এমইউ/জেডএ/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :