সৌদির সঙ্গে সামরিক চুক্তি নিয়ে এবার বাদলের প্রশ্ন

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:৩৮ পিএম, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

সৌদি আরবের সঙ্গে সামরিক চুক্তি নিয়ে ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন ও বিরোধী দল জাতীয় পার্টির ফখরুল ইমামের পর এবার জাসদের কার্যকরী সভাপতি মঈন উদ্দিন খান বাদল সংসদে প্রশ্ন তুলেছেন। তিনি জানতে চেয়েছেন, এই চুক্তির মাধ্যমে সংবিধান লঙ্ঘন হচ্ছে কি না?

রোববার জাতীয় সংসদে পয়েন্ট অব অর্ডারে এ প্রশ্ন তোলেন তিনি। এ সময় স্পিকার ড. শিরীন শারমিনের উদ্দেশে তিনি বলেন, আমরা সংবিধান লঙ্ঘন করছি কি না সেটা আপনিও ভাববেন। বিষয়টি নিয়ে আলোচনার জন্য আপনি একটা সময় দিন। এ সময় স্পিকার মঈন উদ্দিন খান বাদলকে নোটিশ দেয়ার আহ্বান জানান।

মঈন উদ্দিন খান বাদল বলেন, অসুস্থতার কারণে আমি কয়েকদিন সংসদে আসতে পারিনি। আমি জেনেছি রাশেদ খান মেনন সৌদির সঙ্গে সামরিক চুক্তি নিয়ে কিছু কথা বলতে চেয়েছিলেন। আমরা ইতোমধ্যেই রোহিঙ্গাদের নিয়ে একটা সমস্যার মধ্যে পড়ে গেছি। আবার এটার মধ্যে যাওয়া কি ঠিক হচ্ছে? এটা তো হুতি ও সৌদি আরবের সদস্যদের সমস্যা, ইরান ও সৌদি আরবের সমস্যা। সেখানে আমরা কেন যাব? আমাদের সেনাসদস্যরা কেন মাইন অপসারণ করতে গিয়ে জীবন দেবে। এ ধরনের সংঘর্ষে যুক্ত হওয়া মহাবিপদের সংকেত।এর আগে মাইন অপসারণ করতে গিয়ে আমাদের ২৭১ জন সদস্য প্রাণ হারিয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছিলেন- জাতিসংঘের অনুমোদন ছাড়া ও পবিত্র দুই মসজিদের সংরক্ষণ ছাড়া আমরা কোনো সেনাবাহিনী পাঠাব না। তাহলে কীভাবে এটা হচ্ছে? সংসদ চলমান। কোনো দেশের সঙ্গে সামরিক চুক্তি করতে হলে সংবিধানের কিছু বিধান রয়েছে। এভাবে এ ধরনের সামরিক চুক্তি করা যায় না। আমরা সংবিধান ভঙ্গ করছি কি না? সেটা যদি হয় তবে ভবিষ্যতে কেউ না কেউ এটা নিয়ে প্রশ্ন করবে। তাই এসব নিয়ে সংসদে কথা বলা উচিত।

এর আগে, গত বৃহস্পতিবার পয়েন্ট অব অর্ডারে সৌদি আরবের সঙ্গে বাংলাদেশের সামরিক সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর নিয়ে জাতীয় সংসদে প্রশ্ন তোলা হয়েছিল। এই চুক্তি সংবিধানের ২৫ ধারার সঙ্গে সাংঘর্ষিক কি না তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন এমপিরা। একই সঙ্গে এ বিষয়ে সংসদে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ৩০০ বিধিতে বিবৃতি দাবি করেছেন তারা।

এইচএস/বিএ