৭ দিনের মধ্যে ফুটওভার ব্রিজের পরিকল্পনা, ৩০ দিনে কিছুটা দৃশ্যমান

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৩০ পিএম, ২০ মার্চ ২০১৯

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেছেন, যাচাই-বাছাই করে আগামী সাত কর্মদিবসের মধ্যে ঢাকা শহরের প্রয়োজনীয়সংখ্যক ফুটওভার ব্রিজ, আন্ডারপাস, জেব্রা ক্রসিং, স্পিড ব্রেকার, রোড সাইন ইত্যাদি স্থাপনের পরিকল্পনা প্রণয়ন করে তা প্রকাশ করা হবে। পাশাপাশি ৩০ দিনের মধ্যে যাতে তা কিছুটা দৃশ্যমান হয় সেজন্য কাজ শুরু করা হবে।

বুধবার ডিএনসিসির নগর ভবনে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের বৈঠক শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন আতিকুল ইসলাম।

মেয়র বলেন, আমরা আজ সকালে প্রগতি সরণিতে বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার গেটে একটি ফুটওভার ব্রিজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছি। শিক্ষার্থীদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে সু-প্রভাত পরিবহনের সব বাস চলাচল স্থগিত করা হয়েছে। একই সঙ্গে জাবালে নূরের সব বাসের চলাচল যেন স্থগিত করা হয় সেজন্য আমি ইতোমধ্যে বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটির (বিআরটিএ) চেয়ারম্যনকে অনুরোধ করেছি।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) প্রতিশ্রুতির পরিপ্রেক্ষিতে মেয়র বলেন, দেশের প্রচলিত আইনের মধ্য থেকে ‘সু-প্রভাত’ কোম্পানির যে বাসের ধাক্কায় আবরার আহাম্মেদ চৌধুরী নিহত হয়েছিলেন সে বাসের ড্রাইভারের সর্বোচ্চ শাস্তি প্রদানের লক্ষ্যে সর্বোচ্চ ৩০ দিনের মধ্যে মামলার চার্জশিট দাখিল করা হবে। এ সময় ফিটনেসবিহীন যানবাহনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ডিএমপি কমিশনারকে অনুরোধ জানান তিনি।

ফিটনেসবিহীন ও লাইসেন্সবিহীন গাড়ি রাস্তায় বের না করার জন্য আতিকুল ইসলাম গাড়ির মালিকদেরও অনুরোধ করেন। তিনি বলেন, নিরাপদ সড়ক বিনির্মাণে সবাইকে অন্তর্ভুক্ত করার অংশ হিসেবে প্রতিটি কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শিক্ষার্থীদের নিয়ে স্টুডেন্ট কাউন্সিল গঠন করা হবে। আগামী ২৮ মার্চ শিক্ষার্থী প্রতিনিধিদের সঙ্গে আবারো বৈঠক হবে বলে তিনি জানান।

মেয়র বলেন, কাজের অগ্রগতিও পর্যালোচনা করা যাবে। প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের পরিকল্পনা অনুযায়ী ৬টি কোম্পানির অধীনে বাস চলাচল বাস্তবায়ন করা হবে।

এ সময় শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আমরা জাস্টিস দেয়ার জন্য কাজ করছি। তোমরা আন্দোলন তুলে নিয়ে ঘরে ফিরে যাও।

বৈঠক এবং সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে ডিএমপি কমিশনার মো. আসাদুজ্জামান মিয়া, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের উপাচার্য মেজর জেনারেল এমদাদুল বারী, ডেপুটি পুলিশ কমিশনার প্রলয় কুমার জোয়ার্দার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকের পর ২৮ মার্চ পর্যন্ত আন্দোলন স্থগিত ঘোষণা দেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। বুধবার ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলামের সঙ্গে বৈঠক শেষে এ সিদ্ধান্তের কথা জানান বিইউপির আইন বিভাগের শিক্ষার্থী তাওহিদুজ্জামান।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার (১৯ মার্চ) সকাল ৭টার দিকে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন প্রগতি সরণি এলাকায় সু-প্রভাত (ঢাকা-মেট্রো-ব-১১-৪১৩৫) বাসের চাপায় বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) শিক্ষার্থী আবরার আহাম্মেদ চৌধুরী নিহত হন। পরে সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন শুরু করেন শিক্ষার্থীরা। এ সময় তারা আট দফা দাবি ঘোষণা করেন।

বুধবার (২০ মার্চ) সকাল থেকেও রাজধানীর বিভিন্ন প্রান্তে শিক্ষার্থীরা সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন চালায় তারা।

এএস/এসআর/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :