জঙ্গিবাদ নির্মূলে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ১০:০০ পিএম, ২৪ মার্চ ২০১৯

সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বলেছেন, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জঙ্গিবাদ নির্মূলে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। তৃণমূল পর্যায়ে সংস্কৃতি চর্চা ও বিকাশের মাধ্যমে জঙ্গিবাদ নির্মূলে প্রতিটি উপজেলায় কালচারাল অফিসার ও প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সংস্কৃতি শিক্ষক নিয়োগের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। মোদ্দাকথা, দেশীয় সংস্কৃতির ধারণ ও লালনের মাধ্যমে বাঙালি জাতীয়তাবাদের চেতনা ছড়িয়ে দিতে হবে। তবেই দেশ ও সমাজ থেকে জঙ্গিবাদ দূর করা সম্ভব হবে।

রোববার বিকেলে রাজধানীর বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালা মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক ফোরাম আয়োজিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৯তম জন্মবার্ষিকী ও মহান স্বাধীনতা দিবস ২০১৯ উপলক্ষে ‘আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে’র প্রধান বক্তা হিসেবে তিনি এসব কথা বলেন।

কে এম খালিদ বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ২০২০ সালের ১৭ মার্চ থেকে ২০২১ সালের ২৬ মার্চ পর্যন্ত সময়কাল মুজিব বর্ষ হিসেবে পালিত হবে। সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় এর অন্যতম অংশীদার হওয়ায় মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করা হবে। এতে মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ সকল দফতর-সংস্থার সক্রিয় অংশগ্রহণ থাকবে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, বঙ্গবন্ধুকে শুধু স্বাধীনতার স্থপতি হিসেবে বিবেচনা করলে চলবে না, তিনি সেটির চেয়েও অনেক অনেক ঊর্ধ্বে। তিনি এমন একটি জাতিকে দিকনির্দেশনা দিয়ে ঐক্যবদ্ধ করেছিলেন যেটি ছিল নেতৃত্বহীন ও দিশাহীন। তিনি ভাষা আন্দোলনসহ বাঙালির বিভিন্ন আন্দোলন-সংগ্রামে নেতৃত্ব দিয়েছেন। বাঙালিকে সাহস দিয়েছেন, নিজের করে নিয়েছেন, তাদের ভরসার আশ্রয়স্থল হয়েছেন। তিনি এসব অর্জন করেছেন অকৃত্রিম ভালোবাসায়।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু এ দেশকে স্বাধীনতা দিয়েছেন কিন্তু স্বাধীনতার সুফল তুলে দেয়ার সুযোগ পাননি। তিনি একটি সুখী-সমৃদ্ধ সোনার বাংলার স্বপ্ন দেখেছিলেন। আর বঙ্গবন্ধুর সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নে নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন তারই সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক ফোরামের কেন্দ্রীয় পরিষদের সহ-সভাপতি ড. মনোরঞ্জন ঘোষালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক ফোরামের উপদেষ্টা ড. আব্দুল্লাহিল বারী, সহ-সভাপতি আবদুল কুদ্দুস ও উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য জেড এম কামরুল আনাম।

অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক ফোরামের সহ-সভাপতি এমদাদুল হক, সাধারণ সম্পাদক নবীন কিশোর গৌতম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সালমা মাসুদ ও সাংগঠনিক সম্পাদক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ।

এমইউ/আরএস/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :