গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি আদায়ে সব উদ্যোগ নেয়া হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৪৭ পিএম, ২৫ মার্চ ২০১৯

১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ গণহত্যা দিবসের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি আদায়ে প্রয়োজনীয় সব উদ্যোগ নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।

সোমবার বিকেলে জাতীয় জাদুঘরে ২৫ মার্চ গণহত্যা দিবস উপলক্ষে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় আয়োজিত ‘রক্তাক্ত ২৫ মার্চ’ শীর্ষক আলোচনা সভায় মন্ত্রী এ কথা জানান। মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, ‘১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ রাতে পাকিস্তানিদের গণহত্যা জাতীয়ভাবে পালিত হলেও আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি এখনো আমরা পাইনি। ২৫ মার্চের গণহত্যা দিবসের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি আদায়ে প্রয়োজনীয় সব উদ্যোগ নেয়া হবে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে। মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় এর পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় সব সহায়তা করা হবে।’

মেজাম্মেল হক বলেন, ‘স্বাধীনতা কেবল ৯ মাসের সশস্ত্র সংগ্রামের ফসল নয়। ’৪৭ এর দেশ ভাগ, ’৫২ এর ভাষা আন্দোলন থেকে ধারাবাহিক সংগ্রামের চূড়ান্ত পরিণতি মুক্তিযুদ্ধ। স্বাধীনতার ইশতেহার প্রণয়নের সময়ই জাতির পিতা, জাতীয় সঙ্গীত ও জাতীয় নীতি চূড়ান্ত করা হয়। আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলায় আউয়ুব খানের বিরুদ্ধে অভিযোগেই জানা যায়, দেশকে স্বাধীন করার জন্য বঙ্গবন্ধু অনেক আগ থেকেই প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন।’

তিনি বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে রাজনৈতিক স্বাধীনতা অর্জিত হলেও অর্থনৈতিক মুক্তির জন্য আমাদের কাজ করতে হবে।’

মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব এস এম আরিফ-উর-রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি শাজাহান খান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মো. আক্তারুজ্জামান, কাজী সাজ্জাদ আলী জহির (বীরপ্রতীক), ২৫ মার্চ রাজারবাগে প্রতিরোধযোদ্ধা শাহজাহান মিয়া প্রমুখ।

আলোচনা সভার আগে একাত্তরের গণহত্যা বিষয়ে তথ্যচিত্র দেখানো হয়।

আরএমএম/জেএইচ/জেআইএম