দিনভর অবরোধে ভোগান্তি

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৬:২৬ পিএম, ২৩ এপ্রিল ২০১৯

দুপুর দেড়টা, নিউমার্কেট থানার অদূরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গেটের সামনে একটি অ্যাম্বুলেন্স থেকে সাইরেন বেজেই চলেছে। মুমূর্ষু রোগী থাকলেও তীব্র যানজটের কারণে সামনে যেতে পারছে না। অসংখ্য রিকশা, মোটরসাইকেল, প্রাইভেটকার ও যাত্রীবাহী বাস ঠাঁয় দাঁড়িয়ে আছে। যানজটের কারণ, ৫ দফা দাবি আদায়ে ঢাবি অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজ শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ।

পূর্ব ঘোষিত ৫ দফা দাবি আদায়ে মঙ্গলবার বেলা ১১টা থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা নীলক্ষেত মোড়ে সড়ক অবরোধ করেন। অবরোধের ফলে মিরপুর রোডে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায় এবং অন্য রাস্তায় এর বিরুপ প্রভাবে সৃষ্টি হয় তীব্র যানজট।

trafic-jam

রাজধানীর ব্যস্ততম মিরপুর রোড অবরোধের প্রভাবে পলাশী, আজিমপুর, শাহবাগ, ধানমন্ডি, কলাবাগান, সায়েন্স ল্যাবরেটরি, গ্রিন রোডসহ বিভিন্ন এলাকার রাস্তায় যানজটের সৃষ্টি হয়। বিকল্প পথে যাতায়াত করতে গিয়ে প্রাইভেটকারসহ একাধিক গাড়ি সরু রাস্তায় প্রবেশ করে ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করে। অনাকাঙ্ক্ষিত এমন পরিস্থিতিতে ভোগান্তিতে পড়েন রাজধানীবাসী।

ভিকারুননিসা নূন স্কুলের এক অভিভাবক বলেন, লালবাগের নবাবগঞ্জ থেকে মেয়েকে নিয়ে আসতে বেলা সাড়ে ১১টায় রওনা হই। বাসার সামনে থেকে স্কুলে যেতে অন্য দিন ১৫ মিনিট লাগলেও আজ প্রায় এক ঘণ্টা লেগেছে। স্কুল ছুটির অনেক পর যাওয়ায় তৃতীয় শ্রেণির মেয়েটিও কেঁদে অস্থির। এ রাস্তায় যানজট হয় কিন্তু আজকের মতো যানজট কখনও দেখেনি।

trafic-jam

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সকালে রোগী দেখতে গিয়েছিলেন আজিমপুর নতুন পল্টন লাইনের বাসিন্দা হায়দার হোসেন। তিনি বলেন, দুপুর ১টায় রোগী দেখে রিকশাযোগে নীলক্ষেত হয়ে আসার পথে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে যানজটে আটকা পড়ি। পরে বাধ্য হয়ে পলাশী, আজিমপুর বাসস্ট্যান্ড, আজিমপুর কবরস্থান ঘুরে বাসায় ফিরেছি।

মিরপুর রোড অবরোধের ফলে তাদের মতো শত শত মানুষকে চরম ভোগান্তি পোহাতে হয়। এদিকে দিনভর অবরোধের পর বিকেলে আজকের (মঙ্গলবার) মতো অবরোধ তুলে নিয়েছেন সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা। তবে আগামীকাল (বুধবার) দ্বিতীয় দিনের মতো বেলা ১১টা থেকে আবারও সড়ক অবরোধ করার ঘোষণা দিয়েছেন তারা।

এমইউ/আরএস/জেআইএম