ছিনতাই ঠেকানো সেই পাইলট-ক্রুরা পেলেন বিমানের সম্মাননা

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:২৮ এএম, ২৭ মে ২০১৯

চট্টগ্রামে শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের দুবাইগামী ময়ূরপঙ্খী বিমান ছিনতাইচেষ্টা নস্যাতে সাহসী পদক্ষেপের জন্য সেদিনের পাইলট ও ক্রুদের সম্মাননা জানানো হয়েছে।

রোববার (২৬ মে) বিমানের প্রধান কার্যালয় বলাকায় এই সম্মাননার আয়োজন করে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ।

সম্মাননাপ্রাপ্তরা হলেন- ক্যাপ্টেন মো. গোলাম শাফি, ফার্স্ট অফিসার মুনতাসির মাহবুব, পার্সার শাফিকা নাসিম, জুনিয়র পার্সার হোসনেয়ারা, ফ্লাইট স্টুয়ার্ডেস শরিফা বেগম, ফ্লাইট স্টুয়ার্ড সাহেদুজ্জামান সাগর ও ফ্লাইট স্টুয়ার্ড মো. আবদুস সাকুর মোজাহিদ।

একই অনুষ্ঠানে বিমানের প্রধান কার্যালয়ে ডেটা সেন্টারে অগ্নিনির্বাপণে সাহসিকতাপূর্ণ অবদানের জন্য দুজন আইটি কর্মীকেও সম্মাননা দেয়া হয়। তারা হলেন- অ্যাসিস্ট্যান্ট সিস্টেম অ্যাডমিনিস্ট্রাক্টর তপু বডুয়া ও সিনিয়র ডেটা প্রসেসিং অ্যাসিস্ট্যান্ট জহিরুল আলম চৌধুরী।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও ক্যাপ্টেন ফারহাত হাসান জামিল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে সম্মাননাপ্রাপ্তদের দক্ষতা, দূরদর্শিতা, সাহসিকতা ও বীরত্বের জন্য সকলকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান এবং তাদের হাতে প্রশংসাপত্র ও ক্রেস্ট তুলে দেন।

এ সময় বিমানের পরিচালক প্রশাসন জিয়াউদ্দীন আহমেদ, পরিচালক প্রকিউরমেন্ট অ্যান্ড লজিস্টিক সার্পোট মো. মমিনুল ইসলাম, পরিচালক পরিকল্পনা, বিক্রয় ও বিপণন কমোডর মাহবুব জাহান খাঁন, পরিচালক গ্রাহক সেবা আতিক সোবহান এবং চিফ ফাইনান্সিয়াল অফিসার বিনিত সুদ, মহাব্যবস্থাপক জনসংযোগ শাকিল মেরাজসহ বিমানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম হয়ে দুবাইগামী বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইট বিজি-১৪৭ ছিনতাইয়ের চেষ্টা করে অস্ত্রধারী এক যুবক। বিমানের পাইলট ও ক্রুদের বিচক্ষণতা ও সাহসিকতায় চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ফ্লাইটটি জরুরি অবতরণ করতে সক্ষম হয়। পরে ওই অস্ত্রধারীকে ধরতে কমান্ডো অভিযান পরিচালিত হয়। অবশেষে ছিনতাইকারীর নিহত হওয়ার মধ্য দিয়ে রুদ্ধশ্বাস এই অভিযান শেষ হয়। ফ্লাইটটিতে ১৩৪ জন যাত্রী ও ১৪ জন ক্রু ছিলেন।

এমবিআর/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :