পপুলারে পুলিশের জন্য বিশেষ ছাড়

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:০৫ পিএম, ১৭ জুন ২০১৯

সব ধরনের প্যাথলজিক্যাল টেস্ট, ইমেজিংসহ যেকোনো টেস্ট এবং পপুলার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার ক্ষেত্রে পুলিশ সদস্য ও তাদের পরিবারকে বিশেষ ছাড় দেবে পপুলার গ্রুপ।

সোমবার (১৭ জুন) বেলা ১১টায় ডিএমপি সদর দফতরে পুলিশ সদস্যের সব প্যাথলজিক্যাল টেস্ট ও চিকিৎসায় ডিসকাউন্ট দেয়ার বিষয়ে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ ও পপুলার গ্রুপ।

ডিএমপি কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়ার উপস্থিতিতে এমওইউতে ডিএমপি’র পক্ষে স্বাক্ষর করেন উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর দফতর ও প্রশাসন) সুদীপ কুমার চক্রবর্তী এবং পপুলার গ্রুপের পক্ষে স্বাক্ষর করেন পপুলার গ্রুপের ম্যানেজিং ডিরেক্টর ও সিইও ডা. মোস্তাফিজুর রহমান। এসময় ডিএমপি ও পপুলার গ্রুপের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Police

অনুষ্ঠানে ডিএমপি কমিশনার বলেন, বাংলাদেশে ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মধ্যে পপুলার অন্যতম। তাদের সাথে স্বাস্থ্যসেবা নিয়ে এমন চুক্তি স্বাক্ষরিত হওয়াটা আনন্দের। ডিএমপি’র ৩৪ হাজার সদস্য জনগণের নিরাপত্তা, জানমাল ও রাষ্ট্রের সম্পদ রক্ষার্থে প্রাকৃতিক দুর্যোগ উপেক্ষা করে দায়িত্ব পালন করছেন। আমরা যারা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে জনগণের নিরাপত্তা দিয়ে থাকি আমাদের নিরাপত্তাও সমধিক গুরুত্বপূর্ণ। আমার নিজের নিরাপত্তা না থাকলে অন্যের নিরাপত্তা কীভাবে দেব?

তিনি আরও বলেন, ভালো সেবা দিতে হলে আমাকে কাজের ভালো পরিবেশ দিতে হবে। ২০১৩ সাল থেকে পুলিশকে পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টার সফলতার সাথে সেবা দিয়ে যাচ্ছে। এজন্য পপুলার গ্রুপের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞা রইলো।

Police

কমিশনার আরও বলেন, আমরা আশা করবো ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মতোই পপুলার মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে পুলিশ সদস্য ও তাদের পরিবার আশানুরূপ সেবা পাবে। পুলিশ সদস্যের আইডি কার্ড দেখালে যাতে সে প্যাথলজিক্যাল টেস্টসহ হাসপাতালে চিকিৎসায় ডিসকাউন্ট সেবা পান সেদিকে পপুলার গ্রুপ কর্তৃপক্ষ পদক্ষেপ নেবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করছি। যারা নগরীর ২ কোটি মানুষের নিরাপত্তা দেয় তাদের কল্যাণ, নিরাপত্তা ও সুস্থতা অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

ডিএমপি’র প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে ডা. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ২০১৩ সালে স্বাক্ষরের মাধ্যমে আমরা কমিটমেন্ট করেছিলাম ডিএমপিসহ সারা দেশের পুলিশ সদস্যদের সব ধরনের প্যাথলজিক্যাল টেস্টে ডিসকাউন্ট দেব এবং দিয়ে যাচ্ছি। বাংলাদেশে সব মিলিয়ে আমাদের ২১টি ডায়াগনস্টিক সেন্টার রয়েছে। আমরা আমাদের প্রিয় পুলিশ বাহিনীর সদস্য ও তাদের পরিবারের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে চাই। পুলিশ বাহিনীর সদস্যদের প্রতি আমাদের স্বাস্থ্যসেবা অব্যাহত থাকবে।

জেইউ/এসএইচএস/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :