রাউজানে নৈরাজ্যের প্রতিবাদে বহদ্দারহাটে মুনিরীয়ার মানববন্ধন

মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন
মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন , আমিরাত প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০৯:৫৫ পিএম, ২০ জুলাই ২০১৯

চট্টগ্রাম জেলার রাউজানে তিন মাস ধরে চলা নারকীয় সন্ত্রাস, কাগতিয়া মাদরাসার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র বন্ধ করা এবং ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির প্রতিবাদে প্রধানমন্ত্রীর সরাসরি হস্তক্ষেপ কামনা করে মুনিরীয়া যুব তবলীগ কমিটি ২০ জুলাই বাদ জোহর বহদ্দারহাট মোড়ে মানববন্ধন করেছে।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, বিগত তিন মাস ধরে রাউজানজুড়ে যে বর্বরতা চলছে সেটা যেন পাকিস্তানি হানাদারদের নতুন অভিপ্রায়। বাড়ি-ঘর লুটপাট, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ধ্বংস, নিরীহ মানুষকে শারীরিক ও মানসিকভাবে লাঞ্চিত করা- কি হচ্ছে না এখন রাউজানে। এই তাণ্ডবলীলার জন্য সাধারণ মানুষ আজ গৃহহারা। মিথ্যা মামলার কারণে শতশত মানুষ পরিবার-পরিজনকে ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে অথচ তাদের বিরুদ্ধে আগে একটি জিডিও ছিল না।

নৈরাজ্য দিনের পর দিন বেড়েই চলেছে। মানুষের জানমালের নেই কোনো ধরনের নিরাপত্তা। যে রাউজানের ইতিহাস স্মরণ করলে মানুষ আতঙ্কিত হয়ে পড়ত সেই রাউজানকে যে আধ্যাত্মিক ক্ষমতায় এবং চোখের জলের বিনিময়ে শান্ত করেছেন, আজ অত্যন্ত দুখের বিষয় হলো- উনার দরবার শরীফ এবং মাদরাসার বিরুদ্ধে হচ্ছে গভীর ষড়যন্ত্র।

বক্তারা আরও বলেন, এ ষড়যন্ত্রের মূল কারণ স্পষ্ট- যুবকেরা যখন দলে দলে দরূদ পড়তে লাগল তখন অনেকের মন খুব খারাপ হয়ে গেল, কারণ অন্যের সন্তানের কাঁধে অস্ত্র তুলে দিয়ে নিজের আধিপত্য বিস্তার করার সুযোগটা কমে গেল। রাউজানে কার ইতিহাস কি তা সবাই জানে? এখন খোলস পাল্টিয়ে কারা মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তি হিসাবে নিজেকে দাঁড় করাচ্ছে তা সবাই জানে।

অত্যাচার নির্যাতন চলছে কিন্তু মিডিয়াতে তা আসতে দিচ্ছে না, গণমাধ্যমের কোনো কর্মীকে রাউজানে যেতে দিচ্ছে না। এমনকি থানা পুলিশ মামলা নিচ্ছে না তার প্রভাবে। অথচ যারা নৈরাজ্য সংঘটিত করছে তাদের মিথ্যা মামলা গ্রহণ করা হচ্ছে। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর যে মিশন-ভিশন তাকে যেন রাউজানে গলা টিপে হত্যা করা হচ্ছে।

মানববন্ধনে বক্তব্য দেন মুহাম্মদ আব্দুল আওয়াল, মুহাম্মদ ইব্রাহিম, মুহাম্মদ আবছার, প্রমুখ।

এমআরএম/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :