চলন্তিকা বস্তিতে আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত হয় ৬৭৫৪ মানুষ

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:০১ পিএম, ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯

রাজধানীর মিরপুরের চলন্তিকা মোড়ে ঝিলপাড়ের বস্তিতে ভয়াবহ আগুনে ২ হাজার ২৪৮টি ঘর, ১ হাজার ৯৮৮টি পরিবার এবং ৬ হাজার ৭৫৪ জন মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয় বলে জানিয়েছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. শাহ্ কামাল।

তিনি বলেন অগ্নিকাণ্ডের কারণ অনুসন্ধান ও করণীয় সম্পর্কে সুপারিশমালা প্রণয়নের জন্য একটি আন্তঃমন্ত্রণালয় কমিটি করা হয়। অবৈধভাবে প্ল্যাস্টিকের পাইপের মাধ্যমে গ্যাস সংযোগের ফলে পাইপ ফেটে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত ঘটে।

fire-3.jpg

সম্প্রতি সংসদ ভবনে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির ৫ম বৈঠকে এ তথ্য জানান তিনি। বৈঠক সূত্র জাগো নিউজকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছে।

প্রসঙ্গত, গত ১৬ আগস্ট সন্ধ্যা সাতটা ২২ মিনিটের দিকে ওই বস্তিতে আগুন লাগে

fire-3.jpg

সচিবের ওই বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে কমিটির সভাপতি এবিএম তাজুল ইসলাম বলেন, বস্তি কার কারণে গড়ে উঠে, কেন উঠে এবং কাদের নিয়ন্ত্রণে থাকে, তা দেখতে হবে। সিটি কর্পোরেশন, রাজউক, গৃহায়ণ কর্তৃপক্ষ কিংবা যাদের জায়গায় বস্তি গড়ে ওঠেছে তারা কেন এগুলো দেখছে না, তা জানা দরকার। কোনো দুর্ঘটনা হলেই দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়কে সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসতে হয়। যাদের কারণে দুর্ঘটনা ঘটে তাদের খুঁজে পাওয়া যায় না। যাদের জমিতে বস্তি গড়ে ওঠছে এবং দুর্ঘটনা ঘটছে, সেই দুর্ঘটনার সমস্ত দায়দায়িত্ব সেই জমিওয়ালাকে বহন করতে হবে মর্মে সবাইকে চিঠি দিয়ে জানিয়ে দেয়ার জন্য অনুরোধ করেন তিনি।

এইচএস/জেডএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]