রমেক অধ্যক্ষসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৫:৫৬ পিএম, ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

রংপুর মেডিকেল কলেজের (রমেক) অধ্যক্ষ ডা. মো. নুর ইসলামসহ ছয় জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। ব্যবহার অনুপযোগী ও নিম্নমানের যন্ত্রপাতি সরবরাহের মাধ্যমে চার কোটি ৪৮ লাখ ৮৯ হাজার ৩০০ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে দুদক তাদের বিরুদ্ধে এ মামলা করে।

বৃহস্পতিবার (১২ সেপ্টেম্বর) দুদক প্রধান কার্যালয়ের উপ-সহকারী পরিচালক ডা. মো. ফেরফেদৌস রহমান বাদী হয়ে দণ্ডবিধি ৪০৯/৪২০/৪৬৮/ ৪৭১/১০৯ ও ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫ (২) ধারায় এ মামলা করেন।

মামলার অপর পাঁচ আসামি হলেন- রংপুর মেডিকেল কলেজের সহাকারী অধ্যাপক ডা. মো. সারোয়াত হোসেন, বেঙ্গল সায়েন্টিফিক অ্যান্ড সার্জিক্যাল কোম্পানির (৫/ বি তোপখানা রোড) স্বত্বাধিকারী ডা. মো. জাহের উদ্দিন সরকার, আ. সাত্তার সরকার (জাহের উদ্দিনের আত্মীয়), জাহের উদ্দিনের ছেলে আহসান হাবিব এবং ইউনিভার্সেল ট্রেড কর্পোরেশনের (দিনাজপুর) স্বত্বাধিকারী আসাদুর রহমান।

জানা গেছে, রমেকে ভারী যন্ত্রপাতি ও সরঞ্জামাদির প্রয়োজন না থাকা সত্ত্বেও স্বাস্থ্য অধিদফতরের পূর্বানুমোদন ব্যতীত ক্রয়ের উদ্যোগ নেয়া হয়। এজন্য অধ্যক্ষ ডা. মো. নুর ইসলাম বিধিবহির্ভূত বিভিন্ন কমিটি গঠন করেন।

তিনি যথাযথ চাহিদা ব্যতীত স্পেসিফিকেশন ছাড়াই দরপত্র আহ্বান এবং পছন্দের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ‘বেঙ্গল সায়েন্টিফিক অ্যান্ড সার্জিক্যাল কোম্পানি’কে কার্যাদেশ দেন।

তিনি অসৎ উদ্দ্যেশে ২০১৮ সালের ২১ জুন দরপত্র মূল্যায়ন করে একই তারিখে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে নোটিফিকেশন অব অ্যাওয়ার্ড প্রদান এবং ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তিপত্র সই করেন। ২৩ জুন কার্যাদেশ প্রদান করেন।

কার্যাদেশ প্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান কার্যাদেশ প্রাপ্তির পঞ্চম দিনে (২৭ জুন) কার্যাদেশের শর্তানুযায়ী যন্ত্রপাতি সরবরাহ না করলেও নিজে আর্থিকভাবে লাভবান হওয়ার জন্য উক্ত প্রতিষ্ঠানের দাখিলকৃত বিল একই তারিখে পাস করেন ও প্রশাসনিক অনুমোদনসহ ব্যয় মঞ্জুরী প্রাপ্তির পূর্বেই বিল স্বাক্ষরপূর্বক জেলা হিসাব রক্ষণ অফিসে দাখিল করেন। এভাবে তিনি বেঙ্গল সায়েন্টিফিক অ্যান্ড সার্জিক্যাল কোং এর স্বত্বাধিকারী মো. জাহের উদ্দিন সরকারকে চার কোটি ৪৮ লাখ ৮৯ হাজার ৩০০ টাকা টাকা আত্মসাতে সহায়তা করেন।

দরপত্রে অংশগ্রহণকারী ও দর প্রস্তাব দাখিলকারী বেঙ্গল সায়েন্টিফিক অ্যান্ড সার্জিক্যাল কোং এর স্বত্বাধিকারী মো. জাহের উদ্দিন সরকার, মার্কেন্টাইল ট্রেড ইন্টারন্যাশনালের স্বত্বাধিকারী যথাক্রমে মো. আব্দুস সাত্তার সরকার (জাহের উদ্দিন সরকারের পিতা) ও আহসান হাবীব (জাহের উদ্দিন সরকারের ছেলে) এবং ইউনির্ভাসেল ট্রেড কর্পোরেশনের স্বত্বাধিকারী মো. আসাদুর রহমান (জাহের উদ্দিন সরকারের বোন জামাই) পরিচয় গোপন করে পরস্পর যোগসাজশে সিন্ডিকেট করে সাজানো দরপত্র দাখিল করেন।

এমইউ/এএইচ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]