অবরোধ ছেড়ে মালিকপক্ষের সঙ্গে বৈঠকে শ্রমিকরা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:২৩ পিএম, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯

বিজিএমইএ ও পুলিশের অনুরোধে রাজধানীর মিরপুরের প্রধান সড়ক থেকে অবরোধ তুলে নিলেও বকেয়া বেতন-ভাতার দাবি ছাড়েনি জারা জিন্স গার্মেন্টসের কর্মীরা।

রোববার সকাল ৮টায় মিরপুর সনি সিনেমা হলের সামনে শুরু হওয়া বিক্ষোভ রূপ নেয় অবরোধে। বিকেল পৌনে ৪টার দিকে শ্রমিকরা অবরোধ তুলে নেয়। এখন বকেয়া বেতন-ভাতার দাবি আদায়ের বিষয়ে বিজিএমইএ নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে জারা জিন্স গার্মেন্টস কর্তৃপক্ষের বৈঠক চলছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে শাহ আলী থানার ওসি মো. সালাউদ্দিন মিয়া রোববার বিকেল পৌনে ৪টায় জানান, শ্রমিকরা প্রায় দিনভর বিক্ষোভ আর রাস্তা অবরোধ ছেড়ে বিজিএমইএ ও পুলিশের অনুরোধে ফিরেছে গার্মেন্টসে। সেখানে এখন সমঝোতার বৈঠক চলছে। বেতন-ভাতা পরিশোধ করা হলে তারা আর রাস্তায় নামবেন না বলে জানিয়েছেন।

ওসি এর আগে জানান, এর আগেও দুই-তিনবার জারা জিন্স গার্মেন্টসের কর্মীরা বকেয়া বেতন-ভাতার দাবিতে সড়ক অবরোধ করেছিল। তখন মালিকপক্ষের মাধ্যমে আশ্বস্ত করায় অবরোধ তুলে নিলেও বকেয়া বেতন-ভাতা না পাওয়ায় বিক্ষুব্ধ হয়ে ফের সড়কে নামে।

garments

চিড়িয়াখানা রোডের ১৩ ও ১৪ নম্বর হোল্ডিংয়ের চতুর্থ ও পঞ্চম তলা মিলিয়ে জারা জিন্সের কারখানা। রোববার সকাল থেকে গার্মেন্টস শ্রমিকদের বিক্ষোভ আর অবরোধের কারণে চিড়িয়াখানা রোড, মিরপুর-১০ নম্বর থেকে মাজার রোডে যাওয়ার সড়ক, মিরপুর বাংলা কলেজ সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা কারখানার সামনে এবং সনি সিনেমা হল মোড়ে ব্যারিকেড দিয়ে যান চলাচল বন্ধ করে বিক্ষোভ করতে থাকে।

বিক্ষোভে অংশ নেয়া সুরভী নামে এক কর্মী বলেন, চার মাসের বেতন দুই মাসের ওভারটাইম বকেয়া। সেসব পরিশোধ না করেই মালিকপক্ষ কারখানা বন্ধ করেছে। তালা দিয়ে পালিয়ে গেছে। মালিকের সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ হচ্ছে না। আমাদের কাজ বন্ধ বেতনও বকেয়া। বাধ্য হয়ে আমরা সড়কে অবস্থান নিয়েছি।

সুমন নামে আরেক কর্মী বলেন, বকেয়া বেতন-ভাতার দাবিতে আমরা গত কোরবানির ঈদেও আন্দোলন করেছি, বাধ্য হয়ে সড়কে অবস্থান নিয়েছিলাম। গত বুধবারও আমরা এ নিয়ে বিজিএমইএর কাছে গিয়েছিলাম। গতকাল শনিবার সমাধানের আশ্বাস দেয়া হলেও কার্যত কোনো ফল আমরা পাইনি। বাধ্য হয়ে আজ রাস্তায় নামা।

জেইউ/বিএ/জেআইএম