মানবপাচার রোধে আন্তঃমন্ত্রণালয় কমিটি কাজ করবে

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৫৩ পিএম, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯

বাংলাদেশ থেকে বিভিন্ন রুট দিয়ে, বিশেষ করে লিবীয় রুট ব্যবহার করে মানবপাচার রোধে মন্ত্রিপরিষদ সচিবের নেতৃত্বে একটি আন্তঃমন্ত্রণালয় কমিটি হচ্ছে। এই কমিটি মানবপাচার রোধে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেবে।

 মঙ্গলবার সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির ৬ষ্ঠ বৈঠকে এ তথ্য জানায় মন্ত্রণালয়।

বৈঠকের কার্যপত্র থেকে জানা যায়, এর আগে কমিটির পঞ্চম বৈঠকে মানবপাচার রোধে ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করা হয়।

সেই সুপারিশের প্রেক্ষিতে মন্ত্রণালয় আরও জানায়, মানবপাচার রোধে দেশের ভাবমূর্তি রক্ষার্থে গত ৫ আগস্ট পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিবের নেতৃত্বে একটি আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। অবৈধ মানবপাচার রোধে সুনির্দিষ্ট কিছু সুপারিশসহ প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনের জন্য একটি সারসংক্ষেপ পাঠানো হয়। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে পহেলা সেপ্টেম্বর জানানো হয়- লিবিয়া থেকে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে ইউরোপে মানবপাচার সংক্রান্ত সামগ্রিক কার্যক্রম সমন্বয়ের জন্য মন্ত্রিপরিষদ সচিবের নেতৃত্বে একটি আন্তঃমন্ত্রণালয় কমিটি গঠনের জন্য ইতোমধ্যে অনুরোধ করা হয়েছে।

এছাড়াও এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য কমিটির সুপারিশ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে কমিটির সভাপতি মুহাম্মদ ফারুক খান জাগো নিউজকে বলেন, মানবপাচারকারীরা দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করছে। অনেকে সাগরে মারা যাচ্ছেন। এসব নিরীহ মানুষকে রক্ষার জন্য দায়ীদের চিহ্নিত করার সুপারিশ করেছে কমিটি। যে সকল বাংলাদেশি দালাল চক্র মানবপাচারের সঙ্গ জড়িত তাদের বিরুদ্ধে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়।

এদিকে সংসদ সচিবালয় থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, ভিয়েতনাম, ব্যাংকক, জার্মানি ও যুক্তরাজ্যসহ বিভিন্ন দূতাবাসকে, বাংলাদেশি নাগরিক বিশেষ করে সিনিয়র নাগরিকদের জন্য ভিসা পাওয়ার বিষয়টি সহজতর করার সুপারিশ করা হয়। সঠিক ভিসা প্রার্থীরা যাতে হয়রানির শিকার না হন সেজন্যও সুপারিশ করা হয়।

বৈঠকে মিয়ানমার থেকে বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের অগ্রগতি ও মিয়ানমারের সর্বশেষ অবস্থান নিয়ে আলোচনা করা হয়। থাইল্যান্ডের প্রত্যাবাসন কার্যক্রমের অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন কার্যক্রম ত্বরান্বিত করার সুপারিশ করা হয়।

আর সরকারিভাবে বিদেশে প্রশিক্ষণে জন্য উপযুক্ত কর্মকর্তা নির্বাচনের সুপারিশ করা হয়। বিদেশে অবৈধভাবে অবস্থানরত বাংলাদেশিরা যাতে দেশে ফেরত আসতে পারে সে ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করা হয়।

কমিটির সভাপতি মুহাম্মদ ফারুক খানের সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম, মো. আব্দুল মজিদ খান, মো. হাবিবে মিল্লাত, নাহিম রাজ্জাক, কাজী নাবিল আহমেদ এবং নিজাম উদ্দিন জলিল অংশ নেন।

বৈঠকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. শহীদুল হক, মেরিটাইম অ্যাফেয়ার্স ইউনিটের সচিব খোরশেদ আলম, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এইচএস/এনএফ/জেআইএম