দুদুর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা হচ্ছে চট্টগ্রামে

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক চট্টগ্রাম
প্রকাশিত: ০৭:৩২ পিএম, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯
ফাইল ছবি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি দেয়ার অভিযোগে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদুর বিরুদ্ধে রাজধানী ঢাকার পর চট্টগ্রামেও মামলা হচ্ছে। চট্টগ্রামের আদালতে এক ছাত্রলীগ নেতার রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা দায়েরের আবেদন গ্রহণ করে রাঙ্গুনিয়া থানার ওসিকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন নিয়ে থানায় নিয়মিত মামলা দায়েরের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) চট্টগ্রামের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট জয়ন্তী রাণী রায়ের আদালতে মামলার আবেদন দাখিল করেন চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নুরুল আলম। বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন বাদীপক্ষের আইনজীবী অতিরিক্ত মহানগর পিপি নিখিল কুমার নাথ।

তিনি জানান, গত ১৭ সেপ্টেম্বর শামসুজ্জামান দুদু একটি বেসরকারি টেলিভিশনের সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘শেখ মুজিব যেভাবে বিদায় হয়েছেন শেখ হাসিনাও সেভাবে বিদায় হবেন।’ এতে জনগণের মাঝে ভয় ও ভীতিকর অবস্থা তৈরি হয়েছে। এই বক্তব্য রাঙ্গুনিয়া পৌরসভা সদরে সংগঠনের কার্যালয়ে বসে ছাত্রলীগ সভাপতি নুরুল আলম শুনেছেন, তাতে তিনি সংক্ষুব্ধ। বাদী মনে করেন, শামসুজ্জামান দুদুর এই বক্তব্যের মাধ্যমে পরিষ্কার হয়েছে, তারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার চক্রান্ত করছেন।

নিখিল কুমার নাথ বলেন, ‘বিএনপি নেতা শামসুজ্জামান দুদুর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে দণ্ডবিধির ১২৪ (ক) ধারায় এবং হত্যার হুমকি দেয়ার অভিযোগে দণ্ডবিধির ৫০৬ (২) ধারায় মামলার আবেদন করা হয়েছে। আদালত আবেদন গ্রহণ করে রাঙ্গুনিয়া থানার ওসিকে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা রুজুর জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন নিতে বলেছেন। এরপর নিয়মিত মামলা রুজুর নির্দেশ দিয়েছেন।’

এ বিষয়ে রাঙ্গুনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইমতিয়াজ মোহাম্মদ আহসানুল কাদের ভুঁইয়া জাগো নিউজকে বলেন, ‘আমরা এখনো আদালতের আদেশ হাতে পাইনি। আদালতের নির্দেশনা হাতে পেলে তা অনুসরণ করে পরবর্তীতে মামলার বিষয়ে পদক্ষেপ নেয়া হবে।’

এর আগে বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সকালে ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি দেয়ার অভিযোগে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদুর বিরুদ্ধে মামলা করেন যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন মহি।

এসআর/এমকেএইচ