কিশোর অপরাধ দমনে পুলিশ শতভাগ সফল না হলেও বিফল নয়

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৫১ পিএম, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

পুলিশের অতিরিক্ত আইজি ড. মো. মইনুর রহমান চৌধুরী বলেছেন, কিশোর অপরাধের ব্যাপকতা পারিবারিক ও সামাজিক ব্যর্থতারই প্রতিফলন। এ অপরাধ প্রতিরোধে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী শতভাগ সফল না হলেও বিফলও নয়। তবে আরও সফলতা অর্জনের জন্য কীভাবে কার্যকর ভূমিকা নেয়া যায় সে বিষয়ে আমরা সচেষ্ট আছি।

কিশোর অপরাধের কারণে সৃষ্ট হত্যাকাণ্ড ও অন্যান্য দুঃখজনক ঘটনা সমাজের অন্যান্য শ্রেণি-পেশার মানুষের মতো আমাদেরও পীড়িত করে। এ ধরনের অপরাধ প্রতিরোধে কোনো রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ বা চাপ নেই। এমনকি এ ক্ষেত্রে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কোনো অবহেলা নেই।

কিশোর অপরাধ প্রতিরোধে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি পরিবার ও সমাজকে এগিয়ে আসতে হবে। একই সঙ্গে তথ্যপ্রযুক্তিকে অপরাধমূলক কাজে ব্যবহার না করে কিশোর-তরুণদের সৃজনশীলতা বিকাশে ব্যবহার করতে হবে।

শনিবার কিশোর গ্যাং কালচার প্রতিরোধবিষয়ক এক ছায়াসংসদ বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব অভিমত ব্যক্ত করেন।

ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির আয়োজনে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশনে (এফডিসি) প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন প্রতিযোগিতার আয়োজক সংগঠন ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ।

ড. মো. মইনুর রহমান চৌধুরী বলেন, সম্প্রতি শুরু হওয়া ক্যাসিনো বা জুয়াখেলা সংস্কৃতি বন্ধ করা জরুরি। এই সংস্কৃতি আমাদের পরিবার ও সমাজকে কলুষিত করছে। এ ধরনের অপরাধ বন্ধে রাজনৈতিক সদিচ্ছা রয়েছে এবং আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীও সচেষ্ট। কাজেই ক্যাসিনো নির্মূলে এই অভিযান চলমান থাকবে। পুলিশকে আরও বেশি জনবান্ধব করার লক্ষ্যে আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

প্রতিযোগিতায় ইউনিভার্সিটি অব সাউথ এশিয়াকে পরাজিত করে ঢাকা কলেজ বিজয়ী হয়। প্রতিযোগিতায় বিচারক ছিলেন অধ্যাপক আবু মোহাম্মদ রইস, সাংবাদিক পারভেজ রেজা, সাংবাদিক নেছারুল ইসলাম খোকন প্রমুখ।

আরএম/বিএ/এমকেএইচ