ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইব্যুনালে মামলার জট, দুর্ভোগে বিচারপ্রার্থীরা

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:০০ পিএম, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

>> দেশে ৪১টি ট্রাইব্যুনালে মামলা দুই লাখ ৯৭ হাজার ৭০২
>> একটি জেলায় ২০ থেকে ৩০ হাজার পর্যন্ত মামলা রয়েছে
>> আইন সংশোধনে চার সদস্যের একটি সাব-কমিটি গঠন

দেশে ৪১টি ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইব্যুনালে মামলার পাহাড় জমেছে। একটি জেলায় ২০ থেকে ৩০ হাজার পর্যন্ত মামলা থাকায় বিচারপ্রার্থীরা শুনানির তারিখ পাচ্ছেন ছয় মাস থেকে এক বছর পর। ফলে চরম দুর্ভোগে পড়ছেন তারা।

রোববার সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির পঞ্চম বৈঠকে এ তথ্য জানানো হয়। আইন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব মো. মোস্তাফিজুর রহমান স্বাক্ষরিত প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, ২০১৯ সালের ৩১ মার্চ পর্যন্ত সারাদেশে ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইব্যুনালে মামলার সংখ্যা দুই লাখ ৯৭ হাজার ৭০২টি। একই জেলায় একটি পৃথক ট্রাইবুনাল হওয়ার ফলে জেলাভিত্তিক মামলার সংখ্যা ২০ হাজার থেকে ৩০ হাজারে দাঁড়িয়েছে। এ কারণে একটি মামলার শুনানির তারিখ ক্ষেত্র মতে ছয় মাস বা এক বছর পরপর ধার্য করা হয়। ফলে মামলা নিষ্পত্তিতে বিলম্ব হচ্ছে। যা বিচারপ্রার্থী জনগণের দুর্ভোগের কারণ।

প্রতিবেদনে আরও উল্লেখ করা হয়, এ সংক্রান্ত আইনের যুগোপযোগী সংশোধন করা হলে ল্যান্ড সার্ভে সংক্রান্ত মামলাসমূহ দ্রুত নিষ্পত্তি সম্ভব হবে এবং বিচারপ্রার্থী জনগণের দুর্ভোগ লাঘব হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি আবদুল মতিন খসরু জাগো নিউজকে বলেন, ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইব্যুনাল সম্পর্কে মানুষের হয়রানি চরম আকার ধারণ করেছে। গ্রামের সাধারণ ভূমি মালিকরাই এর ভুক্তভোগী। আমরা জনপ্রতিনিধি হিসেবেও বিব্রতবোধ করি তাদের হয়রানির কথা শুনে। তাই আইন সংশোধন করে আরও বেশি ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইব্যুনাল গঠনের সুপারিশ করা হয়। এ সংক্রান্ত আইন খাতিয়ে দেখার জন্য চার সদস্যের একটি সাব-কমিটি গঠন করা হয়েছে।

land-03.jpg

জামালপুর ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইব্যুনালে বিচারপ্রার্থীদের ভিড়

বৈঠক সূত্র জানায়, বৈঠকে ল্যান্ড সার্ভে আপিল ট্রাইব্যুনাল সম্পর্কে আলোচনা শেষে কমিটি এ বিষয়ে বিস্তারিত পর্যালোচনা ও সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য কমিটির সদস্য শেখ ফজলে নূর তাপসকে চেয়ারম্যান; মো. আব্দুল মজিদ খান, শামীম হায়দার পাটোয়ারী ও রুমিন ফারহানাকে সদস্য করে একটি সাব-কমিটি গঠন করা হয়েছে।

জানা যায়, দেশের সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ লাঘবে ভূমি রেজিস্ট্রেশন পদ্ধতি ডিজিটাইজেশনের বিষয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়। এ সংক্রান্ত বিষয়ে ‘ভূমি নিবন্ধন ব্যবস্থাপনা অটোমেশন’ প্রকল্প গ্রহণের নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়েছে এবং এ প্রকল্প জানুয়ারি ২০২০ থেকে ডিসেম্বর ২০২৪ সময়ের মধ্যে বাস্তবায়নের লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে বলে আইন ও বিচার বিভাগের পক্ষ থেকে জানানো হয়।

কমিটির সভাপতি আবদুল মতিন খসরুর সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য আনিসুল হক, মো. শামসুল হক টুকু, মো. আব্দুল মজিদ খান, শেখ ফজলে নূর তাপস, শামীম হায়দার পাটোয়ারী ও রুমিন ফারহানা বৈঠকে অংশ নেন। এছাড়া, কমিটির বিশেষ আমন্ত্রণে ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া বৈঠকে আইন কমিশনের চেয়ারম্যান, ভূমি মন্ত্রণালয়ের সচিব, আইন ও বিচার বিভাগের সচিব, মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এইচএস/এমএআর/এমএস