পরিবর্তনকামীদের জন্য যুক্তরাষ্ট্রে অ্যাটলাস কোর ফেলোশিপ

কূটনৈতিক প্রতিবেদক কূটনৈতিক প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:১২ এএম, ১৮ অক্টোবর ২০১৯

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক এনজিও অ্যাটলাস সার্ভিস কোর, ইনকর্পোরেটেড ফেলোশিপ ২০২০ সালের এপ্রিল এবং তার পরবর্তী ক্লাসের জন্য নতুন আবেদন গ্রহণ করছে। যুক্তরাষ্ট্রে ১২ থেকে ১৮ মাসের ফেলোশিপটি বিশ্বের শীর্ষ পরিবর্তনকামী সমাজকর্মীদের যোগাযোগ এবং পেশাগত দক্ষতা উন্নয়নের একটি প্রোগ্রাম।

অ্যাটলাস কোর সারা বছরই আবেদনপত্র গ্রহণ করে। তবে ২০২০ সালের এপ্রিল থেকে শুরু হতে যাওয়া ফেলোশিপের জন্য অগ্রাধিকারমূলক আবেদনের শেষ সময়সীমা ৩ নভেম্বর। বৃহস্পতিবার বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে ঢাকার যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস।

বলা হয়েছে, নির্বাচিত ফেলোরা নেতৃত্বের দক্ষতা রপ্ত করার জন্য বিভিন্ন হোস্ট সংস্থায় পূর্ণকালীন কাজ করেন। অ্যাটলাস কোর ‘গ্লোবাল লিডারশিপ ল্যাব’ এর পেশাগত বিকাশ সিরিজ এবং অন্যান্য ফেলোর সঙ্গে নেটওয়ার্কিংয়ের মাধ্যমে কার্যকর দক্ষতা শিখতে পারবেন। এই মর্যাদাপূর্ণ ফেলোশিপে অংশগ্রহণকারীরা স্বাস্থ্যবীমা, বিমান টিকিট ও ভিসার খরচ এবং মৌলিক ব্যয় (খাদ্য, স্থানীয় পরিবহন এবং যৌথ আবাসন) মেটাতে উপবৃত্তি পান।

অ্যাটলার কোর ফেলোশিপ ৩৫ বছর বা তার কম বয়সী যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক নন এমন তরুণ তরুণীদের জন্য উন্মুক্ত। এই ফেলোশিপের জন্য প্রয়োজনীয় অন্যান্য যোগ্যতা হচ্ছে: স্নাতক বা সমমান ডিগ্রি, প্রাসঙ্গিক বিষয়ে দুই বা ততোধিক বছরের অভিজ্ঞতা এবং ইংরেজি ভাষায় (বলা, লেখা এবং পড়া) যথেষ্ট দক্ষতা থাকা। আবেদনকারীদের অবশ্যই ১২-১৮ মাসের এ ফেলোশিপের পরে স্বদেশ প্রত্যাবর্তন করতে প্রতিশ্রুত হতে হবে।

অ্যাটলাস কোর সামাজিক খাতের নেতারা এবং সংস্থাগুলোর একটি আন্তর্জাতিক নেটওয়ার্ক যা একবিংশ শতাব্দীর বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবিলায় উদ্ভাবন, সহযোগিতা এবং সমাধানের লক্ষ্যে কাজ করে। এর লক্ষ্য হলো দেশ-বিদেশের দক্ষ পেশাজীবীদের ফেলোশিপ দেওয়ার মাধ্যমে নেতৃত্বের বিকাশ, সংগঠন শক্তিশালীকরণ এবং উদ্ভাবনী দক্ষতাকে এগিয়ে নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ সামাজিক সমস্যাগুলোর সমাধান করা।

বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন

জেপি/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]