কুমিল্লায় বৃক্ষবিষয়ক ‘৯০ মিনিট স্কুলিং’ অনুষ্ঠান ৮ নভেম্বর

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:০৫ এএম, ২২ অক্টোবর ২০১৯

বৃক্ষপ্রেমী, বাগানী বা বাগান করতে ইচ্ছুক এমন ব্যক্তিদের নিয়ে বৃক্ষবিষয়ক পরবর্তী অনুষ্ঠান ৯০ মিনিট স্কুলিং কুমিল্লায় অনুষ্ঠিত হবে। আগামী ৮ নভেম্বর সকাল সাড়ে ৯টায় কুমিল্লা শহরের টাউন হলে এটি অনুষ্ঠিত হবে।

বাগানীদের প্রশিক্ষণ, উদ্ভিদের রোগবালাই ও কীভাবে বিভিন্ন ধরনের গাছের যত্ন নিতে হয় এবং গাছ ও বীজ বিনিময় করে এই স্কুলিং। আর এটি আয়োজন করেছে গ্রিন বাংলাদেশ নামে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকভিক্তিক একটি গ্রুপ।

আগ্রহীরা গ্রুপে লগ ইন করে অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে বিনামূল্যে দেশি বিভিন্ন ধরনের উন্নত জাতের গাছ ও বীজ নিতে পারেন।

শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অনুষদ ভবনে পাক্ষিকভাবে প্রতি শুক্রবার এ স্কুলিং অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে ঢাকার বাইরে রাজশাহীতে প্রথম স্কুলিং অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আয়োজক সংগঠনের অ্যাডমিন সংসদ সচিবালয়ের সহকারী সচিব এবিএম বিল্লাল হোসেন বলেন, দ্বিতীয়বারের মতো আমরা ঢাকার বাইরে এর আয়োজন করতে যাচ্ছি।

তিনি বলেন, বাগানীদের প্রশিক্ষণ, উদ্ভিদের রোগবালাই, কীভাবে বিভিন্ন ধরনের গাছের যত্ন নিতে হয়- ৯০ মিনিট স্কুলিংয়ে সেসব বিষয় শেখানো হয়। স্কুলিং পরিচালনা করেন শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যানতত্ত্ব বিভাগের প্রফেসর ড. এ এফ এম জামাল উদ্দিন। আমরা আশা করছি কুমিল্লার অনুষ্ঠানে প্রায় এক হাজার সদস্য যোগ দেবেন।

এবিএম বিল্লাল হোসেন বলেন, এখন থেকে ঢাকার বাইরেও বিভিন্ন জেলায় স্কুলিং নিয়মিত করার চেষ্টা করা হবে। সবার কাছে উন্নত মানের ফল ও সবজির বীজ ও গাছের উপকারিতা সম্পর্কে জানানোয় আমাদের মূল উদ্দেশ্য। আর এটি আমরা করে থাকি নিজেদের অর্থায়নে।

জানা যায়, বাংলাদেশে প্রথম লাল আপলের গাছ লাগিয়ে তা থেকে ফলন, বিরল প্রজাতির মনমাতানো নন্দিনী ফুল ফুটিয়ে তা ছড়িয়ে দেয়া, গাছগাছালির রোগ ও প্রতিকার সবই তারা করছেন সবুজ বাংলাদেশের জন্য। এদেশে হয় না এমন সবজি চাষ করে দেশকে স্বাবলম্বী করা ছাড়াও প্রকৃতিকে সুন্দর ও বাসযোগ্য করার তাগিদে সারাদেশে নীরবে সবুজ বিনিময়ের কাজ করে যাচ্ছেন কয়েক লাখ মানুষ। তারা নিজে চাষ করছেন, অন্যকে চাষে উৎসাহ দিচ্ছেন। নিজেরা চারা বা বীজ তৈরি করে তা বিনামূল্যে বিলিয়ে দিচ্ছেন দেশজুড়ে।

সবচেয়ে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুককে প্লাটফর্ম হিসেবে ব্যবহার করে সবুজের এই নীরব আন্দোলন গড়ে উঠেছে। বিভিন্ন নামে প্রায় ৫০টির মতো গ্রুপ খুলে তারা বিশ্বের বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে থাকা বাংলাভাষীদের মধ্যে গাছের চারা, কলম ও বীজ বিনিময় করছেন। আর এর প্রথম উদ্যোক্তা সংসদ সচিবালয়ের সহকারি সচিব এবিএম বিল্লাল হোসেন। তাকে অনেক কৃষিবিদ ও বিজ্ঞানী সহায়তা করে থাকেন।

এইচএস/বিএ/এমকেএইচ