‘অপরাধী যেই হোক, সাজা পেতেই হবে'

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২:৫৩ পিএম, ২৫ অক্টোবর ২০১৯

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলার রায়ে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা হয়েছে। রায়ে প্রমাণ হলো, অপরাধী যে-ই হোক না কেন, তাকে সাজা পেতেই হবে। এ রায় আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় মাইলফলক।

শুক্রবার (২৫ অক্টোবর) রাজধানীর গুলশানে নিজ বাসভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলার রায়ের বিষয়ে প্রতিক্রিয়াসহ সমসাময়িক বিষয়ে কথা বলতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

তিনি বলেন, আইনি প্রক্রিয়ায় দ্রুত সময়ে নুসরাত হত্যার রায় ঘোষণা করা হয়েছে। আশা করবো, নিম্ন আদালতের রায় উচ্চ আদালতেও দ্রুত সম্পন্ন হবে। শেখ হাসিনার সরকার আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় বদ্ধ পরিকর। আমরা আইনের শাসনে বিশ্বাস করি। আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে শেখ হাসিনার উন্নয়ন টেকসই হবে।

মন্ত্রী আরও বলেন, বহুল প্রতীক্ষিত নৃশংস এ হত্যাকাণ্ডের রায় নিম্ন আদালত ঘোষণা করেছেন। যারা বর্বর এ হত্যাকাণ্ডে জড়িত রায়ে তাদের সর্বোচ্চ সাজা হয়েছে। নুসরাতের পরিবারকে যতদিন প্রয়োজন নিরাপত্তা দেয়া হবে। কোনো কুচক্রী মহল তার পরিবারকে হুমকি দিলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (২৪ অক্টোবর) বেলা পৌনে ১১টায় বহুল আলোচিত মাদরাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামালায় অভিযুক্ত ১৬ আসামির মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেন আদালত। একই সঙ্গে তাদের প্রত্যেককে এক লাখ টাকা করে জরিমানা করা হয়। ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামুনুর রশিদ এ রায় দেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসার সাবেক অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলা, নূর উদ্দিন, শাহাদাত হোসেন শামীম, সোনাগাজী পৌরসভার কাউন্সিলর মাকসুদ আলম, সাইফুর রহমান মোহাম্মদ জোবায়ের, জাবেদ হোসেন ওরফে সাখাওয়াত হোসেন জাবেদ, হাফেজ আব্দুল কাদের, আবছার উদ্দিন, কামরুন নাহার মনি, উম্মে সুলতানা ওরফে পপি ওরফে তুহিন ওরফে শম্পা ওরফে চম্পা, আব্দুর রহিম শরীফ, ইফতেখার উদ্দিন রানা, ইমরান হোসেন ওরফে মামুন, মোহাম্মদ শামীম, মাদরাসার গভর্নিং বডির সহ-সভাপতি রুহুল আমীন ও মহিউদ্দিন শাকিল।

এএস/এএইচ/এমএস