ক্যান্সার আক্রান্ত ছেলেকে বাঁচাতে সবজি বিক্রেতা বাবার আকুতি

আহমাদুল কবির
আহমাদুল কবির আহমাদুল কবির , মালয়েশিয়া প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০৯:১১ পিএম, ০২ নভেম্বর ২০১৯

মরণব্যাধি ক্যান্সার জনির পিছু ছাড়ছে না। শিশুটির শরীরে প্রতিনিয়তই রিপ্লেস করতে হচ্ছে রক্ত। সবজি বিক্রেতা বাবা আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন ছেলেকে বাঁচাতে। ইতোমধ্যে চিকিৎসকরা খুলনা ও ঢাকা থেকে ফেরত পাঠিয়েছেন।

দিন-মজুর পিতা আজিবারের চোখের ঘুম কেড়ে নিয়েছে তার প্রাণের প্রিয় শিশু সন্তানকে আক্রান্ত মরণব্যাধি ক্যান্সার। ভারতে চিকিৎসা শেষ আশা বুকে নিয়ে ছুটছেন বিত্তবানদের দুয়ারে দুয়ারে। যে যা পারছেন সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিচ্ছেন শিশু জনির চিকিৎসার জন্য। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে জনির এমন করুণ পরিণতি দেখে এগিয়ে আসেন মালয়েশিয়া প্রবাসী সাংবাদিক বাংলাদেশ প্রেস ক্লাব অব মালয়েশিয়ার সহ-সভাপতি শেখ সেকেন্দার আলী।

খুলনার কপিলমুনির রেজাকপুর গ্রামের আজিবার গাজির পুত্র রাব্বি ইসলাম জনির চিকিৎসার জন্য ১০ হাজার টাকা প্রদান করেছেন। হতদরিদ্র আজিবার গাজী কপিলমুনি বাজারে কাঁচামালের ব্যবসা করে কোনোরকম সংসার চালান তিনি।

দুই সন্তানের জনক আজিবার ৬ মাস আগে তার ছোট ছেলে রাব্বি ইসলাম জনির (৫) ঘনঘন জ্বরের কারণে ডাক্তারের শরণাপন্ন হলে তাকে বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত বলে ডাক্তার জানান। এমতাবস্থায় ছেলের চিকিৎসার জন্য বিভিন্ন জনের কাছে সাহায্যের জন্য আবেদন করে আজিবার। বর্তমানে ছেলেকে নিয়ে ছোটাছুটি করার কারণে আজিবারের ছোট্ট ব্যবসাটি বন্ধ হওয়ার উপক্রম।

আজিবার জানান, এলাকার অনেকেই ক্যান্সারে আক্রান্ত শিশুর চিকিৎসার জন্য হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। কিন্তু চিকিৎসার জন্য প্রয়োজন ৫ থেকে ৬ লাখ টাকা। হতদরিদ্র আজিবারের পক্ষে এত টাকা জোগাড় করা সম্ভব নয়।

শিশুটির উন্নত চিকিৎসার জন্য ভারতে নেওয়ার প্রস্তুতি নিয়েছে অসহায় পিতা আজিবার। সন্তানের চিকিৎসার জন্য সমাজের বিত্তবানদের কাছে সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন তিনি। ছেলেটিতে বাঁচাতে সাহায্য পাঠাতে পারেন আপনিও। বিকাশ নম্বর ০১৯১৬৫৮৪৯১২ (আজিবার)।

এমআরএম/জেআইএম