‘টেলিযোগাযোগ সেবায় চলছে নৈরাজ্য’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:২৬ এএম, ০৮ নভেম্বর ২০১৯

টেলিযোগাযোগ সেবায় বর্তমানে নৈরাজ্য চলছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক অ্যাসোসিয়েশন।

শুক্রবার (৮ নভেম্বর) এক বিবৃতিতে এ অভিযোগ জানান বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ।

রবি গ্রাহকের খরচ বাড়ার সম্ভবনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে তিনি বলেন, সেবার মান উন্নয়নের খবর নেই অথচ খরচ বৃদ্ধির হুঙ্কার দেয়া হচ্ছে। টেলিযোগাযোগ সেবায় বর্তমানে নৈরাজ্য চলছে। সরকার ও নিয়ন্ত্রক কমিশন একদিকে গ্রাহক ও অন্যদিকে অপারেটরদেরকে জিম্মি করে ফেলেছে। গত ৫ নভেম্বর দেয়া এক সাক্ষাতকারে রবির সিইও যে বক্তব্য দিয়েছেন তা অনেকাংশে সত্য হলেও তাদেরও অনেক দায় রয়েছে। চলমান পরিস্থিতিতে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন গ্রাহকরা। কিন্তু বর্তমান যে ডিমান্ড এবং সাপ্লাইয়ের মধ্যে সংকটের জন্য দায়ী নিয়ন্ত্রক কমিশন ও অপারেটররা, এটি দেশের গ্রাহকরা বিশ্বাস করে।

মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, পাওনা আদায়কে কেন্দ্র করে নিয়ন্ত্রক কমিশন এনওসি বন্ধের ফলে বিনিয়োগে অপারেটরদের যে জটিলতার সৃষ্টি হয়েছে তা বাতিল করা হোক। পাওনা আদায়ের বিষয়টি যেহেতু আদালতেই সিদ্ধান্ত হবে তাই এ বিষয়ে আমরা কোনো মতামত দিচ্ছি না। ইতোমধ্যে গ্রামীণফোন কলরেটের মূল্য নিয়ে তালবাহানা শুরু করেছে। যেহেতু সর্বনিম্ন কলরেট ৪৫ পয়সা ও সর্বোচ্চ দুই টাকা তাই জিপি ঘুরিয়ে ফিরিয়ে সর্বোচ্চ কলরেট আদায় করছে। বিষয়টি দ্রুত সুরাহা না করলে খরচ বৃদ্ধির সিদ্ধান্তের দায় সরকার ও নিয়ন্ত্রক কমিশনকে নিতে হবে। গ্রাহকরা কোনো পরিস্থিতিতেই খরচ বৃদ্ধির প্রস্তাব বরদাস্ত করবে না।

এএস/এএইচ/এমকেএইচ