ট্রেন দুর্ঘটনায় পায়ের আঘাত নিয়ে ঢামেকে মুন্না

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২:৩৩ পিএম, ১২ নভেম্বর ২০১৯

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় ভয়াবহ ট্রেন দুর্ঘটনায় মুন্না মিয়া (২৫) নামে আহত এক যুবক ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে এসেছেন। তাকে ঢামেকের জরুরি বিভাগে ভর্তি করা হয়েছে। তার বাড়ি হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জে। তিনি গ্রিলের দোকানে কাজ করেন।

মঙ্গলবার দুপুরে ঢামেকে আনা হয় তাকে। ঢামেক ক্যাম্প পুলিশের ইনচার্জ বাচ্চু মিয়া জাগো নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, মুন্নার ডান পায়ে আঘাত রয়েছে, তাকে জরুরি বিভাগে রাখা হয়েছে।

আহত মুন্না সাংবাদিকদের বলেন, উদয়ন এক্সপ্রেসে কয়েকজন মিলে চট্টগ্রাম যাচ্ছিলাম। দুর্ঘটনায় পর আমাকে উদ্ধার করে প্রথমে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজে নেয়া হয়। এরপর এখানে (ঢামেক) পাঠানো হয়।

এদিকে এ ঘটনায় রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গভীর শোক ও দুঃখপ্রকাশ করেছেন। তারা নিহতদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

ঘটনা তদন্তে দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। এ ঘটনায় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকেও তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

রেলসচিব মোফাজ্জেল হোসেন তিনি বলেন, একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে রেলের মহাপরিচালকের দফতর থেকে। অপরটি করা হয়েছে রেলওয়ের পূর্বাঞ্চল মহাব্যবস্থাপক কার্যালয় থেকে। কমিটিতে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা রয়েছেন।

রেলপথ মন্ত্রণালয় থেকে নিহতদের প্রত্যেকের পরিবারকে ১ লাখ করে টাকা এবং জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ২৫ হাজার টাকা করে দেয়া হবে।

এর আগে ভোররাত পৌনে ৩টার দিকে চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা আন্তনগর ঢাকাগামী তূর্ণা নিশীথা ও সিলেট থেকে ছেড়ে আসা চট্টগ্রামগামী আন্তনগর উদয়ন এক্সপ্রেস ট্রেনের সংঘর্ষ হয়।

এতে ঘটনাস্থলেই ৯ জন এবং কসবা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৩ জন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালে ২ জন ও কুমিল্লা মেডিকেল কলেজে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১ জন মারা যান।

এআর/বিএ/এমকেএইচ