ক্যাসিনো অভিযানে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পেয়েছি : এনবিআর চেয়ারম্যান

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:২৩ পিএম, ১২ নভেম্বর ২০১৯

ক্যাসিনো বিরোধী অভিযানে অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ও নথি পাওয়া গেছে, যা আগামী দিনে রাজস্ব বাড়াতে সহায়তা করবে বলে জানিয়েছেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া। মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) রাজধানীর সেগুনবাগিচায় এনবিআর ভবনে আয়কর মেলা বিষয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, ক্যাসিনো বিরোধী অভিযানে বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের ব্যাংক হিসাব তলব করা হয়। ওইসব হিসাবে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ও নথি পাওয়া গেছে, যা আগামী দিনে রাজস্ব বাড়াতে সহায়তা করবে। তবে যেসব তথ্য পেয়েছি তা জনসমক্ষে বলতে চাচ্ছি না।

দেশের ১৬ কোটি মানুষের মধ্যে চার কোটি মানুষ সামর্থ্যবান উল্লেখ করে তিনি বলেন, এ সামর্থ্যবানদে মধ্যে আয়কর দেন সব মিলিয়ে এক কোটি লোক। আমরা এটি বাড়াতে চাচ্ছি। আগামীতে আয়কর থেকে রাজস্ব আহরণ ৪০ শতাংশ করতে চাই, এ লক্ষ্যেই কাজ করছি।

মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া বলেন, জর্দা ব্যবসায়ী গাউস মিয়া প্রতিবছর সেরা করদাতা হন। এটি নিয়ে অনেকে প্রশ্ন তুলেছেন। নিয়ম অনুযায়ী কেউ কর দিয়ে সেরা করদাতা হতেই পারেন। তবে আগামীতে এসব বিষয়ে আরও বেশি যাচাই-বাছাই করা হবে।

আয়কর বিবরণী প্রস্তুতকারী অ্যাকাউন্টিং ফার্মগুলোকে শাস্তির আনা হবে উল্লেখ করে এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের আয়কর বিবরণী স্বচ্ছতা বাড়াতে অ্যাকাউন্টিং ফার্মগুলোকে জবাবদিহিতার আওতায় আনতে কাজ করছি। আগামীতে যেসব ফার্ম কোম্পানি রিপোর্টিংয়ে অনিয়ম করবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আয়কর মেলা বিস্তারিত তুলে ধরে জানানো হয়, ‘সবাই মিলে দেব কর, দেশ হবে স্বনির্ভর’-এ স্লোগানে ১৪ নভেম্বর থেকে দেশব্যাপী শুরু হবে আয়কর মেলা, চলবে ২০ নভেম্বর পর্যন্ত। এর মধ্যে রাজধানীসহ সব বিভাগীয় শহরে সাতদিন, জেলা শহরগুলোয় চারদিন, ৪৮ উপজেলায় দুইদিন এবং ৮ উপজেলায় দিনব্যাপী করমেলা আয়োজন করা হবে। সব মিলিয়ে এবার দেশের ১২০টি স্থানে আয়কর মেলা অনুষ্ঠিত হবে।

এসআই/আরএস/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]