অবৈধ সম্পদ, সম্রাট-এনামুলের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:৫৮ পিএম, ১২ নভেম্বর ২০১৯

ক্যাসিনোকাণ্ডের ঘটনায় গ্রেফতার আলোচিত যুবলীগ নেতা ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট ও তার ঘনিষ্ঠ সহযোগী এনামুল হক আরমানের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) কমিশনের সমন্বিত জেলা কার্যালয় ঢাকা-১ এ পৃথক দুটি মামলা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য।

দুদকের দুই কর্মকর্তা পৃথক এ দুটি মামলা করেন। সম্রাটের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন দুদকের উপপরিচালক জাহাঙ্গীর আলম। মামলায় তার বিরুদ্ধে ২ কোটি ৯৪ লাখ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনা হয়েছে। অন্যদিকে আরমানের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন দুদকের উপপরিচালক সালাউদ্দিন। তার বিরুদ্ধে ২ কোটি ৫ লাখ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনা হয়েছে।

প্রণব কুমার ভট্টাচার্য বলেন, গত ১৫ অক্টোবর ইসমাইল চৌধুরী সম্রাটকে অস্ত্র ও মাদক আইনের দুই মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচদিন করে মোট ১০ দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন আদালত। একই দিন সম্রাটের ঘনিষ্ঠ সহযোগী এনামুল হক আরমানকে মাদক আইনের মামলায় পাঁচদিনের রিমান্ডের আদেশ দিয়েছিলেন।

ক্যাসিনোবিরোধী অভিযান শুরু হওয়ার পর আলোচনায় আসার শুরুতে কয়েক দিন কাকরাইলে নিজের অফিসে থাকলেও পরে সম্রাটের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। ৬ অক্টোবর কুমিল্লা থেকে তাকে গ্রেফতার করে র‍্যাব। পরে বন্যপ্রাণীর চামড়া রাখার অপরাধে ভ্রাম্যমাণ আদালত সম্রাটকে ছয় মাসের কারাদণ্ড দেন।

মামলার তদন্তসংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, তার কাছে ৪০০ থেকে ৫০০ কোটি টাকা আছে। জিজ্ঞাসাবাদে সম্রাট জানিয়েছেন, ক্যাসিনো, টেন্ডারবাজি ও চাঁদাবাজি থেকে তিনি এ বিপুল পরিমাণ অর্থ উপার্জন করেছেন। ১৮ সেপ্টেম্বর ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানের পর কাকরাইলে ভূঁইয়া ট্রেড সেন্টারে আশ্রয় নিয়েছিলেন। সেখান থেকে নগদ টাকা অন্যত্র সরিয়ে ফেলেছেন। দুদকের অনুসন্ধানে এখন পর্যন্ত সম্রাটের মাত্র ২ কোটি ৯৪ লাখ টাকার নথিপত্র পাওয়া গেছে।

সম্রাটের ক্যাশিয়ার হিসেবে পরিচিত ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের বহিষ্কৃত সহ-সভাপতি আরমান। ক্যাসিনো, চাঁদাবাজি ও টেন্ডারবাজির টাকার বড় অংশ আরমানের কাছে রাখতেন সম্রাট। গত ৬ অক্টোবর কুমিল্লা থেকে সম্রাটের সঙ্গে গ্রেফতার হন মদ্যপ আরমানও। মাদক পাওয়ার অপরাধে ভ্রাম্যমাণ আদালত তাকে ছয় মাসের কারাদণ্ড দেন।

এফএইচ/আরএস/জেআইএম