স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এক উপসচিবের তুঘলকি কাণ্ড

মনিরুজ্জামান উজ্জ্বল
মনিরুজ্জামান উজ্জ্বল মনিরুজ্জামান উজ্জ্বল , বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৬:২৩ পিএম, ১৪ নভেম্বর ২০১৯

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের নার্সিং সেবা-১ শাখায় কর্মরত একজন উপসচিবের স্বাক্ষরে গত সোমবার (১১ নভেম্বর) নার্সিং অ্যান্ড মিডওয়াইফারি অধিদফতরের পাঁচজন প্রথম শ্রেণির নার্সিং কর্মকর্তার বদলি ও পদায়নের আদেশ জারি হয়।

নার্সিং সেক্টরে কর্মরত প্রথম শ্রেণির কর্মকর্তাদের বদলি ও পদায়নের এখতিয়ার স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের। সাধারণ দৃষ্টিতে এ ধরনের বদলি ও পদায়ন খুবই স্বাভাবিক ঘটনা। কিন্তু এই নার্সিং পাঁচ কর্মকর্তা যে উপসচিবের স্বাক্ষরে বদলি ও পদায়ন হয়েছেন, তিনি বদলির এখতিয়ারই রাখেন না! প্রকৃতপক্ষে নার্স কর্মকর্তাদের বদলির এখতিয়ার মন্ত্রণালয়ের নার্সিং শিক্ষা বিভাগের সমপদমর্যাদার অন্য এক উপসচিবের। এ বদলি ও পদায়নের আদেশ যখন জারি হয়, তখন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও স্বাস্থ্যসচিব (চিকিৎসা শিক্ষা বিভাগ) বিদেশে অবস্থান করছেন।

অভিযোগ উঠেছে, নার্সিং সেক্টরে অবৈধ নিয়োগ ও পদায়ন বাণিজ্যের সঙ্গে জড়িত সিন্ডিকেট চক্রের সঙ্গে গোপনে বিপুল অংকের নগদ অর্থ লেনদেনের কারণে অবৈধভাবে ওই উপসচিব বদলি ও পদায়নের ওই চিঠি ইস্যু করেন। অবৈধভাবে নিয়োগ ও পদায়নকারী অভিযুক্ত ওই উপসচিবের বিরুদ্ধে নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক প্রতিষ্ঠানের নার্স এ ঘটনার সুষ্টু তদন্ত ও বিচার দাবি করেছেন।

স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের নার্সিং সেবা-১ শাখায় কর্মরত ওই উপসচিবের নাম ডা. শিব্বির আহমেদ ওসমানি। বর্তমানে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে দাপুটে উপসচিব হিসেবে নিজেকে জাহির করেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়কে দুটি বিভাগে (স্বাস্থ্যসেবা ও স্বাস্থ্যশিক্ষা) ভাগ করে স্বাস্থ্য সেক্টরের সামগ্রিক কার্যক্রম পরিচালিত হয়। মন্ত্রণালয়ে মন্ত্রী একজন হলেও স্বাস্থ্যসেবা ও স্বাস্থ্যশিক্ষা বিভাগে দুজন সচিব রয়েছেন। দুজনের কার্যপরিধি অর্থাৎ কোন বিভাগ কী কাজ করবে তা নির্দিষ্ট করা রয়েছে।

নার্সিং অ্যান্ড মিডওয়াইফারি অধিদফতরের নিয়োগ, বদলি ও পদায়ন করার দায়িত্ব নার্সিং শিক্ষা বিভাগের। ওই বিভাগে দায়িত্বপ্রাপ্ত সচিব, যুগ্মসচিব ও উপসচিব রয়েছেন। কিন্তু অন্য বিভাগের উপসচিবের কাজ তিনি কীভাবে করলেন তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

জানা গেছে, বগুড়া সিভিল সার্জন অফিসে জেলা পাবলিক হেলথ নার্স পদে কর্মরত লুৎফুন নেসা ও গাজীপুর সিভিল সার্জন অফিসে জেলা পাবলিক হেলথ নার্স পদে কর্মরত নাজনীন খানমকে বদলি করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উপ-সেবাতত্ত্বাবধায়ক, গোপালগঞ্জ সিভিল সার্জন অফিসে জেলা পাবলিক হেলথ নার্স পদে কর্মরত নাসিমা সুলতানাকে ঢাকা নার্সিং কলেজের প্রভাষক, নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের সেবাতত্ত্বাবধায়ক পদে কর্মরত শক্তি শর্মাকে ঢাকা নার্সিং কলেজের অধ্যক্ষ এবং ঢাকার সিভিল সার্জন অফিসের জেলা পাবলিক হেলথ নার্স গুলশান আরা বিশ্বাসকে ঢাকা নার্সিং কলেজের প্রভাষক পদে বদলি পূর্বক পদায়ন করা হয়।

বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) বিকেল জাগো নিউজের এ প্রতিবেদক অভিযুক্ত উপসচিব ডা. মো. শিব্বির আহমেদ ওসমানির কাছে তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সম্পর্কে মোবাইল ফোনে জানতে চাইলে তিনি সকল অভিযোগকে সম্পূর্ণ মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও বানোয়াট দাবি করেন। তিনি বলেন, ‘তিনি শুধুমাত্র ওপর মহলের নির্দেশনা পালন করেছেন। একজন উপসচিব চাইলেই প্রথম শ্রেণির কর্মকর্তাকে বদলি করতে পারেন না। টাকা-পয়সা লেনদেনের অভিযোগ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘যারা অভিযোগ করেছে তাদেরকে আমার কাছে নিয়ে আসুন।’

এমইউ/এসআর/পিআর