সংস্কারের পর ওসমানী মিলনায়তন খুলছে ৯ ডিসেম্বর

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৪:৪৪ পিএম, ২১ নভেম্বর ২০১৯

সংস্কারের পর নবরূপে সজ্জিত রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তন খুলছে ৯ ডিসেম্বর (সোমবার)। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এটি উদ্বোধন করবেন।বৃহস্পতিবার (২১ নভেম্বর) গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

রুচিশীল ও আধুনিক স্থাপত্য নকশা অনুযায়ী সংস্কারের মাধ্যমে এ মিলনায়তনে পরিশীলিত ও মনোরম পরিবেশ সৃষ্টি করা হয়েছে বলে জানিয়েছে গণপূর্ত মন্ত্রণালয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মুক্তিবাহিনীর সর্বাধিনায়ক এম এ জি ওসমানীর নামে নামকরণ করা প্রায় চার দশকের পুরনো এ মিলনায়তনটি সংস্কারের মাধ্যমে আধুনিকায়নের জন্য চলতি বছরের মার্চ মাসে কাজ শুরু করে গণপূর্ত অধিদফতর। এটি রাজধানীর নবাব আবদুল গণি রোডে অবস্থিত।

২০২০ সালের জুন মাসে শেষ হওয়ার কথা থাকলেও নির্ধারিত মেয়াদের প্রায় সাত মাস আগে মিলনায়তনটির সংস্কার ও আধুনিকায়ন কাজ শেষ হচ্ছে। সংস্কারের পর এটি আন্তর্জাতিক মানে উন্নীতি হবে বলেও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় থেকে দাবি করা হয়।

osmani-(2)

বৃহস্পতিবার দুপুরে নব সাজে সজ্জিত ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তন পরিদর্শন করেন গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম। এ সময় তার সাথে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. শহীদ উল্লা খন্দকার, অতিরিক্ত সচিব মো. ইয়াকুব আলী পাটওয়ারী, গণপূর্ত অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী মো. সাহাদাত হোসেন, স্থাপত্য অধিদফতরের প্রধান স্থপতি আ স ম আমিনুর রহমান, সাবেক প্রধান স্থপতি কাজী গোলাম নাসিরসহ গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় ও গণপূর্ত অধিদফতরের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা এবং সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলীরা উপস্থিত ছিলেন।

পরিদর্শনকালে মন্ত্রী সম্পূর্ণ মিলনায়তন ঘুরে দেখেন এবং এটি পরিপূর্ণভাবে ব্যবহার উপযোগী করে তোলার জন্য কোনো ত্রুটি-বিচ্যুতি রয়েছে কি না তা খতিয়ে দেখে তাৎক্ষণিকভাবে সমাধানে সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলীদের প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেন।

৯ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তন আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধনসহ বেগম রোকেয়া দিবস ও বেগম রোকেয়া পদক বিতরণ অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন বলেও গণপূর্তে মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়েছে।

গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় থেকে আরও জানানো হয়, ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তন আধুনিকায়নের জন্য সিঙ্গাপুর থেকে অ্যাকুয়েস্টিক ডিজাইন করে আনা হয়েছে। এতে প্রতিবন্ধীবান্ধব আসন ও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সুবিধার্থে হুইল চেয়ার বহনযোগ্য লিফট স্থাপন করা হয়েছে। এছাড়া এখানে অত্যাধুনিক সাউন্ড সিস্টেমসহ যুগোপযোগী অডিও আউটপুটের ব্যবস্থা রয়েছে। করা হয়েছে দৃষ্টিনন্দন লাইটিংয়ের ব্যবস্থা।

মিলনায়তনে একটি ভিভিআইপি অফিস ও দুটি কনফারেন্স রুম নির্মাণসহ নিরাপত্তা সিসিটিভি, নেটওয়ার্কিং ওয়াইফাই ও এলইডি স্ক্রিন স্থাপন করা হয়েছে।

এমইউ/আরএমএম/আরএস/এমকেএইচ