পদত্যাগের বক্তব্য বাণিজ্যমন্ত্রীর কথার কথা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২:৩৭ পিএম, ০৪ ডিসেম্বর ২০১৯

পদত্যাগ করা এক সেকেন্ডের বিষয়, তাতে যদি পেঁয়াজের দাম কমে-বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশির এই বক্তব্যকে কথার কথা বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

বুধবার সচিবালয়ে সমসাময়িক ইস্যু নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী গতকাল এক অনুষ্ঠানে বলেছেন, ‘কেউ কেউ আমার পদত্যাগ দাবি করছেন। পদত্যাগ করা এক সেকেন্ডের বিষয়, তাতে যদি পেঁয়াজের দাম কমে। এই মন্ত্রিত্ব কাজ করার জন্য।’

বাণিজ্যমন্ত্রীর এই বক্তব্যের বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘দেখুন, এটা তো কথার কথা। যদি গ্যারান্টি থাকত আমি পদত্যাগ করলে পেঁয়াজের দামটা কমে যাবে, সেটা তো কথার কথা। সেটা তো পদত্যাগ করার বিষয় নয়, মন্ত্রী হিসেবে তিনি কথা প্রসঙ্গে হয়তো বলেছেন। যেহেতু পেঁয়াজের দাম বাড়তি, কেউ কেউ তো মন্ত্রীর পদত্যাগও দাবি করে। সেজন্য বলেছেন, পদত্যাগ করলে যদি সমাধান হয়ে যেত তাহলে আমি এক সেকেন্ডেই পদত্যাগ করতাম।’

সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘সেটা উনি (বাণিজ্যমন্ত্রী) অযৌক্তিক কিছু বলেননি, এটা কথার কথা বলতেই পারেন।’ দ্রব্যমূল্য পরিস্থিতি নিয়ে মন্তব্য জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘চাল ও লবণকে নিয়ে যে ইস্যুটা সৃষ্টি করা হয়েছিল, সেটা তো আর এখন নেই। চাল নিয়ে সমালোচনা নেই। পেঁয়াজটা এখনও রয়ে গেছে, তবে মৌসুমও এসে যাচ্ছে, আমদানিও যথেষ্ট।’

তিনি বলেন, ‘মার্কেট কন্ট্রোল করা দরকার। অসাধু ব্যবসায়ীরাও আছে, তারাও কারসাজি করে। সেগুলো নিয়ন্ত্রণ করার জন্য এবং কারসাজিটা যাতে বন্ধ হয় সে ব্যাপারে সরকারও কঠোর অবস্থানে আছে। আসলে উই হ্যাভ টু ব্লো হট অ্যান্ড কোল্ড। একেবারে হট হয়েতো আর চলা যাবে না, আলাপ-আলোচনাও করতে হবে। আবার যেটা অপরাধ তার বিরুদ্ধে তো কঠোর হতে হবে।’

‘অস্বাভাবিক পরিস্থিতি, কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করলে সেটার মোকাবিলা তো কঠোর হবেই।’

Kader-1

পেঁয়াজের এই পরিস্থিতি কতদিন চলবে- জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘আমার মনে হয় বেশিদিন চলবে না। স্বাভাবিক অবস্থা ফিরে আসবে।’

টিসিবির রিপোর্ট অনুযায়ী ১৮টি পণ্যের দাম কয়েক গুণ বেড়ে আছে। সব ধরনের সবজি ও পণ্যের দামও ঊর্ধ্বমুখী- এ বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘মাঝে মাঝে এমন অবস্থা হয়। কতগুলো কারণ আছে, কিছু গুজব ছড়িয়ে সংকট সৃষ্টি করা হয়। আমাদের দেশে এটি চলে। তাছাড়া এখানে কথার কথায় পরিবহন ধর্মঘট এ কারণেও সরবরাহ লাইনটি দুর্বল হয়ে যায়। আমার মনে হয় আস্তে আস্তে শীত এসে গেছে। শাক-সবজির বাজারেও স্বাভাবিক অবস্থা ফিরে আসবে। এটিই আমরা আশা করি।’

সরকার কেন বাজার নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ- জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমি আপনাদের একটা বিষয় বলতে চাই, দেখুন বাংলাদেশে কী মানুষের ক্রয় ক্ষমতা খুব দুর্বল? কেউ কী খুব অভাবে আছে, না খেয়ে মারা যাচ্ছে। কোন এক দ্রব্য বাজারে হয়তো ঘাটতি সেজন্য কী দুর্ভিক্ষের কোন পদধ্বনি আছে?’

তাই বলে পেঁয়াজের কেজি আড়াইশ টাকা হবে- এ বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘কেনার ক্ষমতাও তো আছে।’ এই সময় সাংবাদিকরা বলে উঠেন, না এটা কেনার ক্ষমতা সবার নেই, আমাদের নেই।

২৫ টাকার পেঁয়াজ আড়াইশ টাকা হবে- তখন মন্ত্রী বলেন, ‘এটাও হতে পারে না, এটাও অস্বাভাবিক। বললাম একটা অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে, এই অবস্থা স্বাভাবিক হতে হয়তো কিছু সময় লাগবে। এটা ঠিক হয়ে যাবে। সরকার সর্বাত্মক চেষ্টা চালাচ্ছে।’

বলা হচ্ছে, এমনকি পত্রিকায় এসেছে বাণিজ্য, রেল ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী তাদের দায়িত্ব পালন করতে পারছেন, অনেকক্ষেত্রে তারা ব্যর্থ। তাদের সরিয়ে দেয়ার কথাও শোনা যাচ্ছে। মন্ত্রিসভায় কোন পরিবর্তন আসছে কি না- এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘একজন মন্ত্রীর পারফরম্যান্স মূল্যায়ন করা মন্ত্রিসভার দায়িত্ব নয়। এটা নিরঙ্কুশভাবে প্রধানমন্ত্রীর এখতিয়ার। মন্ত্রীর পারফরম্যান্স খারাপ হলে তিনি তাকে রাখবেন কি রাখবেন না সেই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়ার এখতিয়ার প্রধানমন্ত্রীর। আমার পক্ষে এই বিষয়ে মন্তব্য করা সমীচীন নয়।’

 

আরএমএম/জেএইচ/জেআইএম