দগ্ধ শরীরে পোড়ার জ্বালা নিয়ে স্ত্রীর কাছে ছুটেছিলেন আলম

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০২:২১ পিএম, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯

পোড়া শরীর নিয়ে দৌড়ে বাসায় ছুটে এসেছিলেন আলম। স্ত্রী রুমাকে ডেকে বলেছিলেন, ‘আমারে বাঁচাও রুমা, আমারে বাঁচাও। অগ্নিদগ্ধ স্বামীকে চেহারায় না চিনলেও কণ্ঠ শুনে চিনতে পারেন রুমা। পাগলের মতো এদিক-সেদিক ছোটাছুটি শুরু করেন। পানি এনে স্বামীর শরীরে ঢালতে থাকেন। তার কান্না শুনে প্রতিবেশীদের অনেকে ছুটে আসেন। গাড়ি ডেকে দ্রুত ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আলম মারা যান।’

আজ (বৃহস্পতিবার) দুপুরে ঢামেক জরুরি বিভাগ সংলগ্ন মর্গের সামনে রুমা আহাজারি করে বলছিলেন, বাঁচার জন্য কি আকুতি জানিয়েছিল কিন্তু তাকে বাঁচাতে পারলাম না।

মাসিক বেতন ও ওভারটাইম মিলিয়ে ১১ হাজার টাকা বেতনে গত পাঁচ বছর কেরানীগঞ্জের হিজলতলা বাজার সংলগ্ন প্লাস্টিক পণ্য তৈরির কারখানায় কাজ করছিলেন আলম। ফ্যাক্টরির পাশেই তার বাসা। একই ফ্যাক্টরিতে কাজ করতেন তার বড় ভাই আব্দুর রাজ্জাক। গতকালের দুর্ঘটনায় তিনিও দগ্ধ হয়েছেন। বর্তমানে রাজ্জাক আশঙ্কাজনক অবস্থায় শেখ হাসিনা বার্ন ইনস্টিটিউটে ভর্তি রয়েছেন।

fire2

রুমা নিঃসন্তান। মর্গে আহাজারি করে বলছিলেন, এখন আমি কী নিয়ে বাঁচবো? আলম ও রাজ্জাকের ছোট ভাই একবার মর্গের সামনে আরেকবার শেখ হাসিনা বার্ন ইনস্টিটিউটে দৌড়াদোড়ি করছিলেন। তিনি বলেন, বড় ভাইয়ের অবস্থা ভালো না। যেকোনো সময় দুঃসংবাদ আসতে পারে। তার ছোট্ট ভাতিজি জানে না তার বাবার এই অবস্থা।

বুধবার বিকেলে কেরানীগঞ্জের চুনকুটিয়া এলাকায় অবস্থিত ‘প্রাইম পেট অ্যান্ড প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড’র প্লাস্টিক কারখানায় আগুন লাগে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ থেকে আগুনের সূত্রপাত।

এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। দগ্ধদের মধ্যে ১০ জন ভর্তি রয়েছেন নবনির্মিতি শেখ হাসিনা বার্ন ইনস্টিটিউটে, বাকিরা ঢামেকের বার্ন ইউনিটে।

এমইউ/এনএফ/এমকেএইচ

টাইমলাইন