রেল ভারী জিনিস তাই আনতে সময় লাগছে : রেলমন্ত্রীর রসিকতা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:৫২ পিএম, ০৭ জানুয়ারি ২০২০

‘রেল ভারী জিনিস, তাই আনতে তো সময় লাগবেই। অন্য যেকোনো বাহনের চেয়ে রেলের ওজন বেশি…, এ কারণেই একটু সময় লাগছে।’ এক প্রশ্নের জবাবে এভাবে রসিকতা করে বললেন রেলপথমন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন।

মঙ্গলবার (৭ জানুয়ারি) ঢাকার রেল ভবনের সম্মেলন কক্ষে (যমুনা) সরকারের এক বছর পূর্তিতে রেলপথ মন্ত্রণালয়ের অর্জন ও আগামীর লক্ষ্যমাত্রা তুলে ধরতে সংবাদ সম্মেলনে প্রশ্নটি ছিল ‘বেশ কিছুদিন ধরেই বলা হচ্ছে, ভারত থেকে ২০টি লোকোমোটিভ (ইঞ্জিন) শিগগির আনা হবে। আজকেও বলা হলো- খুব শিগগির।’

প্রশ্নটির আগে রেলমন্ত্রী বলেন, ভারতীয় রেলওয়ে থেকে বাংলাদেশ রেলওয়ের জন্য ১০টি মিটারগেজ ও ১০টি ব্রডগেজ লোকোমোটিভ আনা হবে, যা শিগগিরই বাংলাদেশে নিয়ে আসা হবে।

সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক মো. শামসুজ্জামানসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ভারত থেকে ২০টি লোকোমোটিভ আনার বিষয়ে অনুষ্ঠানে উপস্থিত বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক মো. শামসুজ্জামান বলেন, ভারত থেকে ১০টি মিটারগেজ ও ১০টি ব্রডগেজ লোকোমোটিভ আনার জন্য আমাদের একজন যুগ্ম সচিবের নেতৃত্বে একটি কমিটি করা হয়েছিল। এ কমিটির কারিগরি টিম ভারতের যেখান থেকে এসব ইঞ্জিন নিয়ে আনা হবে সেসব জায়গা ঘুরে দেখেছে। গত তিনদিন আগে আমাদের টিম দেশে এসেছে। তারা রিপোর্ট দিলে তার পরিপ্রেক্ষিতে আলোচনা করে আমরা ইঞ্জিনগুলো ভারত থেকে নেব। সেক্ষেত্রে শিগগিরই আসবে বলে আমরা আশা করছি।’

এর আগে রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন বলেন, দুর্নীতিমুক্ত রেলব্যবস্থা গড়ে তোলা হবে। তাছাড়া বাংলাদেশ রেলওয়েতে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে দুর্ঘটনা রোধ করা হবে। জনগণকে নিরাপদ ও আরামদায়ক সেবা দিতে রেলকে পুরোপুরি আধুনিকায়ন করা হচ্ছে। টিকিট ব্যবস্থাকে স্বচ্ছ করার জন্য রেলের টিকিট কাটার ক্ষেত্রে কোটা সিস্টেম তুলে দেয়া হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, যমুনা সেতুর উজানে আরেকটি বঙ্গবন্ধু রেল সেতু নির্মাণের কাজ আগামী মার্চ মাসে শুরু হবে। ২০২৩ সাল নাগাদ এ সেতুর নির্মাণকাজ শেষ হতে পারে।

কিছু ট্রেনের সময়সূচিতে পরিবর্তনের বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, আগামী ১০ তারিখ (জানুয়ারি) থেকে কিছু ট্রেনের সময়সূচিতে পরিবর্তন নিয়ে আসা হচ্ছে। আন্তঃনগর কিছু ট্রেনের নতুন করে কিছু স্টেশনে বিরতি দেয়া হবে এবং কিছু স্টেশন থেকে বিরতি বন্ধ করে দেয়া হবে।

তিনি বলেন, আগামী ২৬ তারিখে (জানুয়ারি) আরও নতুন ট্রেন চালু করা হবে। এর মাধ্যমে দেশে ইন্টারসিটি রেলের সংখ্যা দাঁড়াবে ১০০টিতে। তার মধ্যে ঢাকা-জামালপুর রুটে নতুন ট্রেন জামালপুর এক্সপ্রেস চালু করা হবে। পাবনা এক্সপ্রেস ট্রেনের রুট ঢালারচর পর্যন্ত এবং ফরিদপুর-রাজবাড়ি-ভাটিয়াপাড়া রুটে চলাচলকারী ফরিদপুর এক্সপ্রেস ট্রেনের রুট ভাঙ্গা পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়েছে। তাছাড়া উদয়ন এক্সপ্রেসের নতুন কিছু কোচ প্রতিস্থাপন করা হবে, যা ওইদিন (২৬ জানুয়ারি) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন করবেন।

এমইউএইচ/জেডএ/এমএস