‘জীবন দিয়ে হলেও সব ধর্মীয় সম্প্রদায়ের জন্য নিরাপদ দেশ রেখে যাব’

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৫:১৯ পিএম, ১৭ জানুয়ারি ২০২০

হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের নবগঠিত ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্যদের নিয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ও ট্রাস্টটির চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট শেখ মো. আব্দুল্লাহ। শুক্রবার বেলা ১১টায় ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণের মাধ্যমে এ শ্রদ্ধা জানান তারা।

শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে প্রতিমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তার জীবন দিয়ে আমাদের এ দেশ উপহার দিয়ে গেছেন। বঙ্গবন্ধুর অন্যতম রাজনৈতিক আদর্শ ছিল ধর্ম নিরপেক্ষতা, যা পরবর্তীতে বাংলাদেশের সংবিধানে মূলনীতি হিসেবে সন্নিবেশিত হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠা করতে পেরেছি। এর মাধ্যমে বাংলাদেশে আমরা ধর্ম নিরপেক্ষতার আদর্শ প্রতিষ্ঠা করেছি। স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তি হিসেবে আমরা জীবন দিয়ে হলেও বাংলাদেশকে সব ধর্মীয় সম্প্রদায়ের অনুসারীদের জন্য নিরাপদ দেশ হিসেবে রেখে যাব।’

উল্লেখ্য, গত ১৪ জানুয়ারি ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি বোর্ড পুনর্গঠন করা হয়। পুনর্গঠিত ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান পদাধিকারবলে ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শেখ মো. আব্দুল্লাহ। ট্রাস্টি বোর্ডের দুজন সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান হলেন যথাক্রমে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ, মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি। পদাধিকারবলে সদস্য হলেন ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. নূরুল ইসলাম।

এ ছাড়া ২১ সদস্যবিশিষ্ট ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্যরা হলেন- সুব্রত পাল (ভাইস চেয়ারম্যান) কিশোরগঞ্জ; (২) অ্যাডভোকেট ভূপেন্দ্র চন্দ্র ভৌমিক (দোলন) কিশোরগঞ্জ; (৩) রাজেন্দ্র চন্দ্র দেব মন্টু-কিশোরগঞ্জ; (৪) রেখা রাণী গুণ (বীর মুক্তিযোদ্ধা) মানিকগঞ্জ; (৫) সুভাষ চন্দ্র সাহা-টাঙ্গা ইল; (৬) অধ্যাপক ড. অসীম সরকার, গোপালগঞ্জ; (৭) অধ্যাপক ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত, ঢাকা; (৮) উত্তম কুমার শর্মা, চট্টগ্রাম; (৯) বাবুল চন্দ্র শর্মা, কক্সবাজার; (১০) তপন কুমার সেন, রাজশাহী; (১১) অংকুর জিৎ সাহা, সিরাজগঞ্জ; (১২) নান্টু রায়, খুলনা; (১৩) শ্যামল সরকার, যশোর; (১৪) সুরঞ্জিত দত্ত লিটু, বরিশাল; (১৫) ভানু লাল দে, বরিশাল; (১৬) অশোক মাধব রায়, হবিগঞ্জ; (১৭) ইঞ্জিনিয়ার পি. কে. চৌধুরী, সিলেট; (১৮) কৃষিবিদ বিশ্বনাথ সরকার বিটু, রংপুর; (১৯) ববিতা রানী সরকার, নীলফামারী; (২০) অ্যাডভোকেট অসিত কুমার সরকার (সজল), নেত্রকোনা; (২১) ইঞ্জিনিয়ার রতন কুমার দত্ত, ময়মনসিংহ।

প্রজ্ঞাপন অনুসারে ট্রাস্টি বোর্ডের মেয়াদকাল ১৪ জানুয়ারি থেকে তিন বছর পর্যন্ত বলবৎ থাকবে। মেয়াদ শেষ হবার আগে সরকার কোনো মনোনীত ট্রাস্টিকে কোনোরূপ কারণ দর্শানো ব্যতীরেকে তার দায়িত্ব হতে অব্যাহতি দিতে পারবে এবং কোনো ট্রাস্টি ইচ্ছা করলে বোর্ডের চেয়ারম্যান বরাবর তার পদত্যাগপত্র পেশ করতে পারবেন।

এমইউ/জেডএ/পিআর