রাজধানীতে প্রেমিকের বাসায় তরুণীর আত্মহত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৪৫ পিএম, ২১ জানুয়ারি ২০২০
প্রতীকী ছবি

রাজধানীর পূর্ব রামপুরায় মাদকাসক্ত যুবকের বাসায় গলায় ফাঁস দিয়ে জয়নব (২৫) নামে এক তরুণী আত্মহত্যা করেছেন। মঙ্গলবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। ওই যুবকের নাম কমল (৩৫)। ঘটনার পর থেকে তিনি পলাতক রয়েছেন।

পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার দুপুরে নয়নের বাসায় আসেন জয়নব। এক পর্যায়ে তার সঙ্গে ঝগড়া করে ফ্যানের সঙ্গে গলায় ফাঁস দেয়। পরে কমলের বড় বোন নয়ন আক্তার তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক বিকেল ৪টায় মৃত ঘোষণা করেন।

ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ (পরিদর্শক) মো. বাচ্চু মিয়া বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছেন, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নয়ন নামের ওই নারীকে আটক করা হয়েছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশ তদন্ত করছে। ময়নাতদন্তের জন্য ওই তরুণীর মরদেহ ঢামেক হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

নয়ন আক্তার জানান, দুই ভাই ও দুই বোনের মধ্যে কমল সবার ছোট। পূর্ব রামপুরার ৮ম তলায় ৪র্থ তলার ওই ফ্লাটে এক ভাই এক বোন ও তাদের বাবা-মা থাকেন। কয়েক বছর আগে কমলের বিয়ে হয়েছিল। তাদের সংসারে একটি মেয়ে সন্তান রয়েছে। কমল মাদকাসক্ত হওয়ায় এক বছর আগে তাদের মধ্যে বিচ্ছেদ হয়ে যায়।

তিনি আরও জানান, বাসার একটি কক্ষে থাকতেন কমল। অধিকাংশ সময় তিনি বাইরে থাকতেন। আর বাসার তার রুমটি বন্ধ থাকতো।

কমলের বোন জানান, আজ দুপুরে ওই মেয়েটিকে নিয়ে বাসায় আসেন কমল। এ সময় বাসায় শুধু তার বৃদ্ধ মা ছিল। সম্ভবত ওই মেয়ের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। এ সময় তাদের দুজনের মধ্যে ঝগড়া হয়। এক পর্যায়ে কমল রাগ করে বাসা থেকে বের হয়ে যান। এরপর ওই মেয়ে কমলের রুমে ঢুকে দরজা বন্ধ করে ভেতর দিয়ে ছিটকিনি লাগিয়ে দেন। তখন বৃদ্ধ মা তাকে ডাকাডাকি ও বোঝানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়।

নয়ন বলেন, এর মধ্যে বাজার থেকে বাসায় ফিরে এসব শুনে দরজা খোলার জন্য আরেকজনের সহযোগিতা নেন তিনি। দরজা খোলার পর জয়নবকে ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে ঝুলতে দেখেন তারা। সঙ্গে সঙ্গে উদ্ধার করে তাকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এআর/এমএসএইচ/এমকেএইচ