দুর্নীতিবাজদের লাগাম টেনে না ধরলে টেকসই উন্নয়ন সম্ভব নয়

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৪:৪৯ পিএম, ২৩ জানুয়ারি ২০২০

দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেছেন- আপনি আজকে হয়ত বেঁচে যাচ্ছেন, কালকে আপনাকে জবাবদিহী করতে হবে। আইন মতো কাজ করলে আপনাকে কেউ ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারবে না। আমরা উন্নতির পথে এগিয়ে যাচ্ছি। কিন্তু দুর্নীতিবাজরাও এগিয়ে যাচ্ছে। তাদের লাগাম টেনে ধরার চেষ্টা না করলে টেকসই উন্নয়ন সম্ভব নয়।

বৃহস্পতিবার সকালে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে দুর্নীতি প্রতিরোধ বিষয়ক এক মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন দুদক চেয়ারম্যান।

ইকবাল মাহমুদ বলেন, দুর্নীতি সর্বব্যাপী সর্বগ্রাসী। শিক্ষা ব্যবস্থায় ত্রুটি রয়েছে। গাইড বই এবং কোচিং সেন্টারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। কেবল ঘুষ গ্রহণ করাই দুর্নীতি নয়। সঠিকভাবে অর্পিত দায়িত্ব পালন না করাও বড় ধরনের দুর্নীতি। দায়িত্ব পালনে আমাদের নিবেদিত প্রাণ হতে হবে। শুধু দুর্নীতি দমন কমিশনের পক্ষে এটি দমন করা সম্ভব না।

দুদক চেয়ারম্যান বলেন, মাদকের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে হবে। তালিকা করে এসব লোককে নির্মূল করতে হবে। অর্থ ও পেশীশক্তির কাছে পর্যুদস্ত হওয়া যাবে না। দুদক তার অভিযানে আপনাদের সকলকে এই পাশে চায়। আমরা নিজেদের বিভাগের শুদ্ধি অভিযান চালাচ্ছি। আমরা চাই সবাই নিজ দপ্তরের শুদ্ধি অভিযান চালাক। মানুষ গড়ার কারখানা হলো বিদ্যালয়। এই বিদ্যালগুলো সক্ষম জনশক্তি গড়ার কারিগর হওয়া উচিত। নাহলে আমরা টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য (এসডিজি) অর্জনে ব্যর্থ হবো।

দুদক চেয়ারম্যান বলেন, দফতর প্রধানরা দায়িত্ববোধ সম্পন্ন হলে সেই দফতরে দুর্নীতি করা সম্ভব নয়। আমরা অনেক সময় চাপের মুখে নতি স্বীকার করি। এটি করবেন না। পদ চেয়ারের লোভ সামলানো গেলে অনেক কিছু করা সম্ভব।

নদী দখল, সরকারি জমি দখল প্রতিরোধে কার্যকর ভূমিকা রাখার জন্য তিনি সভায় উপস্থিত দফতরসমূহের কর্মকর্তাদের আহ্বান জানান।

সাতক্ষীরার জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামালের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন- খুলনার বিভাগীয় কমিশনার ড. মো. আনোয়ার হোসেন হাওলাদার, দুদকের পরিচালক গোলাম শাহরিয়ার চৌধুরী, সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ সুপারসহ জেলা পর্যায়ের বিভিন্ন দফতরের কর্মকর্তারা।

এমইউ/এসএইচএস/এমকেএইচ