মেডিকেল-সদর হাসপাতালে বাড়ানো হচ্ছে কিডনি রোগীর শয্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:৫৫ পিএম, ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২০
ফাইল ছবি

দেশে প্রতিবছর প্রায় ৪০ হাজার মানুষ কিডনি বিকল হয়ে মৃত্যুবরণ করছেন। এর মধ্যে প্রায় ৮০ থেকে ৯০ শতাংশ রোগীর আর্থিক সমর্থ থাকা সত্ত্বেও চিকিৎসা সুবিধার অভাবে মৃত্যুবরণ করছেন। ফলে দেশের সব মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও জেলা সদর হাসপাতালে কিডনির ডায়ালাইসিস সেন্টার স্থাপন করছে সরকার। স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ এসব তথ্য জানিয়েছে।

মঙ্গলবার ‘মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৫০ শয্যা ও জেলা সদর হাসপাতালে ১০ শয্যার কিডনি ডায়ালাইসিস সেন্টার স্থাপন’ নামে একটি প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)।

এ প্রকল্পের আওতায় দেশের ২২টি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৫০ শয্যার ডায়ালাইসিস সেন্টার এবং ৪৪টি জেলা সদর হাসপাতালে ১০ শয্যার ডায়ালাইসিস সেন্টার স্থাপন করা হবে।

স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের উদ্যোগে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে স্বাস্থ্য অধিদফতর। এতে সরকার খরচ করবে ২৫৫ কোটি ২২ লাখ ৩৭ হাজার টাকা। ২০২০ সালের জানুয়ারি থেকে ২০২২ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে।

এই প্রকল্পের প্রধান কাজ হবে ভৌত অবকাঠামো নির্মাণ, যন্ত্রপাতি সংগ্রহ করা, আসবাবপত্র সংগ্রহ করা, যানবাহন ক্রয় এবং জনবল নিয়োগ দেয়া।

কিডনি রোগের মানসম্মত চিকিৎসা সেবা সম্প্রসারণ, এ রোগের জটিলতা ও মৃত্যুর হার কমানো, ডায়ালাইসিস সেবা উন্নত করা, কিডনি রোগের চিকিৎসা ব্যয় কমানো এবং কিডনি রোগ সম্পর্কে সচেতনতা তৈরি করার উদ্দেশে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

প্রকল্পের যৌক্তিকতায় বলা হয়েছে, ‘দেশে উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্র ও জেলা হাসপাতালগুলোর পাশাপাশি মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও বিশেষায়িত হাসপাতালে কিডনি রোগের চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়ে থাকে। তবে এসব চিকিৎসা কেন্দ্রে কিডনি রোগীর সংখ্যা তুলনায় খুবই কম। এই অবস্থায় প্রকল্পটি নেয়া হয়েছে।’

একনেক সভায় প্রকল্পটি অনুমোদন শেষে পরিকল্পনা কমিশনের সচিব মো. নূরুল আমিন বলেন, ‘আপনারা জানেন, এখন কিডনি রোগ একটু বেশি দেখা যাচ্ছে। রোগীরা যেন ঢাকায় না এসে তাদের জেলা শহরে অথবা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এই সেবা পান, সেজন্য এই প্রকল্পটি নেয়া হয়েছে। এটি আজ (মঙ্গলবার) অনুমোদিত হয়েছে।’

পিডি/এমএফ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]