রাখাইনে আসিয়ানের পর্যবেক্ষক পাঠানোর অনুরোধ ড. মোমেনের

কূটনৈতিক প্রতিবেদক কূটনৈতিক প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৪৫ পিএম, ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০

রোহিঙ্গাদের নিরাপদ, সম্মানজনক ও টেকসই প্রত্যাবাসনের জন্য মিয়ানমারকে অনুকূল পরিবেশ তৈরিতে তাগিদ দিতে ইন্দোনেশিয়াকে আসিয়ান প্ল্যাটফর্মে সক্রিয় থাকার অনুরোধ করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন। পাশাপাশি প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া পর্যবেক্ষণের জন্য রাখাইনে আসিয়ানের একটি পর্যবেক্ষক দল মোতায়েন করা যেতে পারে বলেও পরামর্শ দেন তিনি।

রোববার (১৬ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশে নিযুক্ত ইন্দোনেশিয়ার রাষ্ট্রদূত রিনা পি সোয়েমারনো পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে তার কার্যালয়ে সাক্ষাৎ করতে গেলে এ প্রস্তাব দেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, পররাষ্ট্রমন্ত্রী রোহিঙ্গাদের প্রতি মানবিক সহায়তার জন্য ইন্দোনেশিয়াকে ধন্যবাদ জানান এবং প্রত্যাবাসন ইস্যুতে দেশটির পক্ষ থেকে রাজনৈতিক সমর্থন কামনা করেন।

ইন্দোনেশিয়ার রাষ্ট্রদূত রোহিঙ্গা সংকটের টেকসই সমাধানের জন্য নিজ দেশের সমর্থন অব্যাহত রাখার আশ্বাস দেন।

ইন্দোনেশিয়াকে বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য অংশীদার হিসেবে অভিহিত করে ড. মোমেন ইন্দোনেশিয়াকে বাংলাদেশে বিনিয়োগ করার আহ্বান জানান।

বাংলাদেশ অভূতপূর্ব অর্থনৈতিক অগ্রগতি অর্জন করেছে বলে জানান ইন্দোনেশিয়ান রাষ্ট্রদূত। তিনি ইন্দোনেশিয়ার আইটি সেক্টরে কাজ করা বাংলাদেশি প্রযুক্তিবিদ এবং পেশাদারদের প্রশংসা করেন। বাংলাদেশ ইন্দোনেশিয়ায় পোশাক এবং প্রক্রিয়াজাত খাদ্য খাতে আরও বেশি বিনিয়োগ করবে বলেও আশা ব্যক্ত করেন তিনি।

বাংলাদেশের ওষুধ স্থানীয় চাহিদার ৯৭ শতাংশ পূরণ করে ১৪৪টি দেশেও রফতানি করা হয় উল্লেখ করে ড. মোমেন ইন্দোনেশিয়াকে বাংলাদেশি ওষুধজাত পণ্যের নিবন্ধকরণ প্রক্রিয়া সহজ করার অনুরোধ জানান। বিশ্বমানের জীবন রক্ষাকারী ওষুধগুলো উন্নত দেশগুলির তুলনায় বাংলাদেশে অনেক কম দামে পাওয়া যায় বলেও জানান তিনি।

এ বছর জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ উদযাপনের জন্য ইন্দোনেশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতিকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান ড. মোমেন। অন্যদিকে ইন্দোনেশিয়ার রাষ্ট্রদূতও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ইন্দোনেশিয়া সফরের আমন্ত্রণ জানান।

জেপি/বিএ/এমকেএইচ