ভিকারুননিসা-আইডিয়ালে অননুমোদিত শ্রেণি শাখা, ব্যবস্থা নেবে বোর্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:০৫ পিএম, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০

সরকারি অনুমোদন ছাড়াই পাঠদান চলছে রাজধানীর শীর্ষ পর্যায়ের অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে। এসব প্রতিষ্ঠান চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, বোর্ডের পক্ষ থেকে প্রাথমিকভাবে ওইসব প্রতিষ্ঠানের প্রধানকে কারণ দর্শানোর নোটিশ (শোকজ) দেয়া হবে। এতে সন্তোষজনক ব্যাখ্যা না দিতে পারলে তাদের পাঠদানের অনুমোদন বাতিল করা হবে।

ঢাকা শিক্ষা বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, রাজধানীর মনিপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের চারটি শাখার (ব্রাঞ্চের) মধ্যে মূল শাখার অনুমোদন থাকলেও অন্যগুলোতে পাঠদানের স্বীকৃতি নেই। শুধু তাই নয়, অননুমোদিত শাখায় বেশ কয়েকটি স্তরে শিক্ষা বোর্ডের অনুমোদনহীন বাংলা মিডিয়াম ও ইংরেজি ভার্সনের একাধিক শ্রেণি শাখা খোলা হয়েছে।

জানতে চাইলে মনিপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ফরহাদ আহমেদ জাগো নিউজকে বলেন, 'গত ১০ বছর আগে বিধি মোতাবেক সব শাখার অনুমোদনের জন্য আবেদন করা হয়। এখন পর্যন্ত মূল শাখা ছাড়া আর কোনো শাখার অনুমোদন মেলেনি।'

অনুমোদন পাওয়া মূল শাখায়ও বেশ কয়েকটি অননুমোদিত শ্রেণি শাখা খোলা হয়েছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, 'গত পাঁচ বছর আগে আমরা এমপিও সমর্পণ করেছি, তাই পাঠদানের অনুমোদন জরুরি নয়। তাছাড়া বোর্ড থেকে কখনো এ বিষয়ে আপত্তি জানায়নি। তাই এটি বৈধ।'

সরকারি সব বিধি মেনে মনিপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজ পরিচালিত হচ্ছে বলেও তিনি দাবি করেন।

অন্যদিকে মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের মতিঝিল, মুগদা ও বনশ্রী ব্রাঞ্চের অনুমোদন থাকলেও এসব ব্রাঞ্চে বাংলা ও ইংরেজি মিডিয়াম এবং ভার্সনে বেশ কয়েকটি অননুমোদিত শ্রেণি শাখা খোলা হয়েছে।

dhaka

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ শাহান আরা বেগম জাগো নিউজকে বলেন, ‘আমাদের তিনটি ব্রাঞ্চের অনুমোদন থাকলেও বাংলা ও ইংরেজি মিডিয়াম এবং ভার্সনের ৫০টির অধিক অনুমোদনহীন শ্রেণি শাখা রয়েছে। এসব শ্রেণির অনুমোদন পেতে আবেদন করা হলেও শিক্ষা বোর্ড থেকে তা এখনো দেয়া হয়নি।'

তিনি বলেন, ‘গভর্নিং বডির সিদ্ধান্তে অতিরিক্ত শ্রেণি শাখা চালু করা হয়েছে। বোর্ড থেকে সব শ্রেণির অনুমোদন দেয়া হচ্ছে না বলে অনুমোদন ছাড়াই সেসব চালানো হচ্ছে।'

এছাড়া ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের চারটি ব্রাঞ্চে (বেইলি রোড, আজিমপুর, বসুন্ধরা ও ধানমন্ডি) বাংলা ও ইংরেজি মিডিয়াম এবং ভার্সনের ৩০টির বেশি অনুমোদনহীন শ্রেণি শাখা চালু করা হয়েছে। নারায়ণগঞ্জ ক্যামব্রিয়ান স্কুল অ্যান্ড কলেজে শিক্ষা বোর্ডের অনুমোদন ছাড়া বেশ কয়েকটি শাখা খোলা হয়েছে বলেও জানা গেছে।

এসব বিষয়ে জানতে চাইলে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক অধ্যাপক হারুন অর রশিদ জাগো নিউজকে বলেন, ‘রাজধানীর শীর্ষ পর্যায়ের অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অনুমোদন ছাড়া পাঠদান চলছে। অনেকের অনুমোদন থাকলেও সেখানে অননুমোদিত অতিরিক্ত শ্রেণি শাখা চালু করা হয়েছে।’

তিনি জানান, অনুমোদন ছাড়া যেসব প্রতিষ্ঠান পরিচালিত হচ্ছে, তাদের চিহ্নিত করে ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে প্রাথমিকভাবে ঢাকার শীর্ষ পর্যায়ের কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের কাছে সব তথ্য চাওয়া হয়েছে। যেসব প্রতিষ্ঠান অনুমোদন ছাড়া শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করছে সেসব প্রতিষ্ঠানের প্রধানকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হবে। সন্তোষজনক জবাব না দিতে পারলে পাঠদানের অনুমোদন বাতিলসহ তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এমএইচএম/এফআর/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - jago[email protected]