মাদকবিরোধী অভিযানে মিলল নকল কসমেটিক্স কারখানার সন্ধান

জসীম উদ্দীন
জসীম উদ্দীন জসীম উদ্দীন , নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:৫৫ পিএম, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

মাদক বেচাকেনার খবরে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) একটি দল রাজধানীর চকবাজারে অভিযানে যায়। কিন্তু লালবাগ থানাধীন একটি আবাসিক ভবনে প্রবেশ করতেই র‌্যাব কর্মকর্তারা দেখতে পান, অন্ধকারে তিনজন নকল কসমেটিক্স তৈরির কাজ করছেন। জিজ্ঞাসাবাদের পর বেরিয়ে আসে ঘটনার আদ্যোপান্ত।

সোমবার দিবাগত রাত পৌনে ১২টায় চকবাজারের মৌলভীবাজার টাওয়ারের পেছনে আবাসিক ভবনে অভিযান শুরু করে র‌্যাব-১০ এর একটি দল। অভিযানে মাদকের সঙ্গে বিপুল পরিমাণ নকল কসমেটিক্স পণ্য জব্দ করা হয়।

Rab-3

পরে সেখানে র‌্যাব সদর দফতরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। অভিযানকালে নকল প্রসাধনী বিক্রয় ও মাদক সেবনের অভিযোগে তিনজনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড ও জরিমানা করা হয়।

র‌্যাব-১০ এর কোম্পানি কমান্ডার (লালবাগ) মেজর আনিসুজ্জামান জানান, সোমবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে র‌্যাব-১০ এর একটি দল মাদকবিরোধী অভিযানে যায়। প্রথমে ১২৮ পিস ইয়াবাসহ মনোয়ার হোসেন খোকন (৪২) নামে একজনকে আটক করা হয়। এরপর তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে আগার নবাব দেউরীতে তার বাসায় অভিযানে যাই। সেখানে গিয়ে দেখা যায়, আবাসিক ভবনের ভেতরে অন্ধকার। গোডাউনের মতো একটি কক্ষ তালাবদ্ধ। খোকনের কাছ থেকে চাবি দিয়ে ওই কক্ষটির তালা খুলে ভেতরে প্রবেশ করে দেখা যায়, দেশি-বিদেশি নামি দামি ব্র্যান্ডের বিভিন্ন কসমেটিক্স পণ্য প্রক্রিয়াজাত করা হচ্ছে। সেখানে কাজ করছে তিন কর্মচারী। ম্যাজিস্ট্রেট খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। এর মধ্যে কৌশলে পালিয়ে যায় দুজন। সেখানে অভিযান পরিচালনা করে ৩৮ রকমের কসমেটিক্স পণ্য জব্দ করা হয়।

Rab-3

জব্দ কসমেটিক্সের মধ্যে রয়েছে- ইন্ডিয়ান তেল, বেবি ওয়েল, হরলিক্স, বেবি কসমেটিক্স, লোশনসহ ব্র্যান্ডের সব কসমেটিক্স। সেখানেই অবৈধভাবে নকল কসমেটিক্স বানানো হচ্ছিল।

অভিযানে মোট দুটি গোডাউনের সন্ধান মেলে। দুটি নামসর্বস্ব প্রতিষ্ঠান এ নকল কসমেটিক্স তৈরি করে আসছিল। ইয়াবা রাখায় মনোয়ার হোসেন খোকনকে এক বছরের কারাদণ্ড এবং নকল কসমেটিক্স পণ্য অবৈধভাবে তৈরি ও বিক্রির দায়ে দুই বছরের জেল এবং ৫ লাখ টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

Rab-3

অন্যদিকে নকল প্রসাধনী তৈরি ও বিক্রির দায়ে জিনজিরা নজরগঞ্জ নাহার সেন্টারের মো. মিঠু (২৫) নামে এক ব্যবসায়ীকে দুই বছরের জেল ও ৫ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। খোকন ও মিঠুর নিয়ন্ত্রণাধীন নামসর্বস্ব দুটি গোডাউন সিলগালা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

অভিযান চলাকালে ভ্রাম্যমাণ আদালতের সামনে মদ খেয়ে মাতলামি করায় শাওন বাল্মিকী (২৮) নামে এক যুবককে ছয় মাসের কারাদণ্ড দেয়া হয়।

জেইউ/এমএসএইচ/এমএস