পুলিশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে

জসীম উদ্দীন
জসীম উদ্দীন জসীম উদ্দীন , নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:৩৮ পিএম, ২২ এপ্রিল ২০২০

#সারাদেশ ২১৭ জন পুলিশ সদস্য করোনায় আক্রান্ত
#সবচেয়ে বেশি সংখ্যক ১১৭ জন ডিএমপি'র বিভিন্ন ইউনিটের
#গত ৪৮ ঘণ্টায় আক্রান্ত ১২২ জন
#এক হাজারের বেশি পুলিশ সদস্য কোয়ারেন্টাইনে

বাংলাদেশে বেড়েই চলেছে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ। করোনায় আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসায় ডাক্তার-নার্সসহ স্বাস্থ্যকর্মীদের পাশাপাশি করোনার সংক্রমণরোধে মাঠপর্যায়ে ২৪ ঘণ্টা সক্রিয় রয়েছে পুলিশ। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দায়িত্ব পালন করছেন পুলিশ সদস্যরা। মাঠপর্যায়ে দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন দুই শতাধিক পুলিশ। সবশেষ তথ্য অনুযায়ী এখন পর্যন্ত ২১৭ জন পুলিশ সদস্য করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

এর মধ্যে বুধবার (২২ এপ্রিল) বিকেলের তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ২১ পুলিশ সদস্য। এর আগের দিন মঙ্গলবার একদিনে ১০১ জন পুলিশ সদস্যের করোনায় আক্রান্তের তথ্য পাওয়া যায়। সে হিসাবে গত ৪৮ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন মোট ১২২ পুলিশ সদস্য।

করোনার থাবায় এখন পর্যন্ত পুলিশের ১৭টি ইউনিট, জেলা ও ব্যাটালিয়নের সদস্য আক্রান্ত হয়েছেন। সর্বশেষ বুধবার (২২ এপ্রিল) তথ্যানুযায়ী, পুলিশে সবমিলে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২১৭ জনে। আর আক্রান্তদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক ১১৭ সদস্য ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) বিভিন্ন ইউনিটের। পুলিশ সদর দফতর সূত্রে এ তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে।

করোনায় প্রত্যেক পুলিশ সদস্যকে সুরক্ষিত রেখে দায়িত্ব পালন করতে বলেছেন বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ। তিনি বলেন, ইতোমধ্যে সুরক্ষা সামগ্রী ক্রয়ের জন্য বিভিন্ন ইউনিটকে পর্যাপ্ত আর্থিক অনুদান প্রদান করা হয়েছে। পুলিশ সদস্যদের জন্য ভিটামিন সি, ডি এবং জিংক ট্যাবলেট কেনা হচ্ছে। শিগগিরই তা বিভিন্ন ইউনিটে পাঠানো হবে।

পুলিশ সদর দফতরের তথ্যমতে, আক্রান্ত ২১৭ জনের মধ্যে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) ১১৭ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় তাদের আক্রান্ত হয়েছেন ১৬ জন। মোট আক্রান্ত ১১৭ জনের কেউ এখনো সুস্থ নন। তাদের মধ্যে রয়েছেন ৪ জন সিভিল স্টাফ।

এখানে আরও উল্লেখ্য যে, গত রোববার পর্যন্ত ডিএমপিতে আক্রান্ত ছিলেন ৩৪ জন। সোমবারই আরও ৪৬ জন বেড়ে গিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ায় ৮০ জনে। এরপর মঙ্গলবার তা দাঁড়ায় ১০১ জনে। বুধবার তা আরও বেড়ে দাঁড়ায় ১১৭ জনে। সংক্রমণের ঝুঁকি থাকায় আক্রান্তদের সংস্পর্শে আসা অন্য সদস্যদের আলাদা করা হয়েছে। এক হাজারের অধিক সংখ্যক পুলিশ সদস্যকে হোম ও প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে।

গাজীপুর মহানগর পুলিশের (জিএমপি) আক্রান্তের সংখ্যা গত সোমবার পর্যন্ত ছিল ৪ জন। কিন্তু মঙ্গলবার সেটা গিয়ে ঠেকে ২৬ জনে। এরপর নারায়ণগঞ্জে ১৬ জন। তারমধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩ জন। গোপালগঞ্জে আক্রান্ত ১৮ জন। তারমধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ১ জন। সিএমপিতে আগের ২ জনের সঙ্গে নতুন করে আক্রান্ত ১ জন। এসবিতে সোমবার পর্যন্ত আক্রান্ত ছিল ১ জন। কিন্তু গত মঙ্গলবার আরও তিনজন বেড়ে ৪ জন হয়।

ঢাকা রেঞ্জ অফিসে আক্রান্ত ১ জন, আক্রান্ত অন্যান্যদের মধ্যে পুলিশের টিএন্ডআইএমে ১ জন, এপিবিএন-২ ময়মনসিংহে ১ জন, নৌ পুলিশে ১ জন, এন্টি টেরোরিজম ইউনিটে ১ জন, কিশোরগঞ্জে ৯ জন, গাজীপুরে ৭, নরসিংদী ৬, শেরপুরে ৩ জন, ঢাকা জেলায় ২ জন, মুন্সিগঞ্জে ১ জন, ঝালকাঠিতে ১ জন আক্রান্ত হয়েছেন।

মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে বুধবার সকাল ৮টা পর্যন্ত কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে ১৫ জনকে, হাসপাতাল কোয়ারেন্টাইন থেকে ছাড়পত্র পেয়েছেন একজন, আইসোলেশনে রয়েছেন ৭ জন এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ১০ জন। সুস্থ হয়েছেন ৬ জন।

গত ৮ মার্চের পর থেকে মঙ্গলবার (২১ এপ্রিল) কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয় ৭৭৭ জনকে। ৩৯ জন ছাড়পত্র পেলেও এখনও রয়েছেন ৬১৪ জন। এর মধ্যে হোম কোয়ারেন্টাইনে ২৫৯ জন, প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে আছেন ১৬৩ জন। আইসোলেশনে রয়েছেন ৪৬ জন। ছাড়পত্র পেয়েছেন ৫ জন।

করোনার ক্রান্তিকালে সম্মুখযোদ্ধা পুলিশ সদস্যদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে যা যা করণীয় তা বাস্তবায়নে পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন সাবেক আইজিপি মোহাম্মদ নুরুল আনোয়ার। তিনি জাগো নিউজকে বলেন, শুধু বাংলাদেশ পুলিশ কেন বিশ্ব মানব সভ্যতাকে আমি আমার ৭০ বছরের জীবনে এমন সংকট ও ঝুঁকিতে পড়তে দেখিনি। অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশে পুলিশ অনেক বেশি করোনা সংক্রমণবিরোধী কার্যক্রমে সক্রিয়। সঙ্গত কারণে জনগণের খুব বেশি কাছাকাছি যেতে হচ্ছে পুলিশকেই। কিন্তু পুলিশের প্রটেকশন ইক্যুইমেন্ট নাই। পিপিইর কথা বলছি না। উন্নত মানের মাস্ক, হ্যান্ডওয়াশ ও টিস্যু দরকার।

তিনি পরামর্শ দিয়ে বলেন, এই করোনায় পুলিশ বাহিনীর সদস্যদের সুরক্ষা দিতে গেলে আমার মতে ৪টি বিষয় গুরুত্ব দিতে হবে।

এক : একটানা ডিউটি না করে রোটেশন করা। এক/দুই ঘণ্টার জন্য ডিউটি করে চলে যাবে আরেক পার্টি আসবে। তাহলে কিছুটা হলেও সুরক্ষা সম্ভব।

দ্বিতীয়ত : পর্যাপ্ত টিস্যু সরবরাহ করতে হবে। সামনে গরম। গরমে মাস্ক সামাল দেয়া খুবই কঠিন। পর্যাপ্ত টিস্যু পেপার থাকলে সেটা সামাল দেয়া সম্ভব।

তৃতীয়ত : ব্যারাকে, হোটেলে কিংবা বাড়িতে যেখানেই হোক ডিউটি শেষে ফিরলে পুলিশ সদস্যকে প্রচুর পরিমাণ গরম পানি ঘনঘন খাওয়াতে হবে।

চতুর্থত : যারা আক্রান্ত হয়েছেন তাদের পুরোপুরি আইসোলেটেড করা। এক্ষেত্রে সরকারি কমিউনিটি সেন্টারে আইসোলেশন সেন্টারের ব্যবস্থা করতে হবে। ব্যারাকে থাকা সাধারণ পুলিশ সদস্যদের করোনা সংক্রান্ত পুরোপুরি জ্ঞান দেয়া এবং কঠোর স্বাস্থ্য নির্দেশনা প্রদান ও মেনে চলার নির্দেশনা দিতে হবে।

এ ব্যাপারে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মতিঝিল বিভাগের ডিসি জামিল হাসান জাগো নিউজকে বলেন, পুলিশের হাই অথরিটি যথেষ্ট কনসার্ন। যারা আক্রান্ত হচ্ছেন তাদের আলাদা করা হচ্ছে। চিকিৎসা নেয়া হচ্ছে পুলিশ হাসপাতালে। যারা সুস্থ আছেন তাদের মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার সরবরাহ করা হচ্ছে।

রাজধানীতে আক্রান্ত সাধারণ সদস্যদের আইসোলেটেড করতে ব্যারাকের বাইরে রাখা হচ্ছে। আক্রান্তদের সংস্পর্শে যারা এসেছেন তাদেরকে আলাদা করতে ব্যারাকের বাইরে ফাঁকা হোটেল সরকারি ভবন ও হোটেলে সেপারেট রাখার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

দায়িত্ব পালনকালে পুলিশ সদস্যদেরকে নিজেদের সুরক্ষিত রেখে দায়িত্ব পালন করতে বলেছেন বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ।

আসন্ন রমজান উপলক্ষে বুধবার বিকেলে পুলিশ সদর দফতর থেকে ভিডিও কনফারেন্সে সকল রেঞ্জ, মেট্রোপলিটন, বিশেষায়িত ইউনিট ও জেলা পুলিশের কর্মকর্তাদের নবনিযুক্ত আইজিপি বেনজীর আহমেদ পুলিশ সদস্যদের উদ্দেশে বলেন, করোনাভাইরাস সম্পর্কে জনগণকে সচেতন করার পাশাপাশি নিজেদের সুরক্ষার ব্যবস্থা করতে হবে। পুলিশ সদস্যদেরকে সুরক্ষা সামগ্রী দেয়ার ক্ষেত্রে কোনো ধরনের শৈথিল্য দেখানো যাবে না। ইতোমধ্যে সুরক্ষা সামগ্রী ক্রয়ের জন্য বিভিন্ন ইউনিটকে পর্যাপ্ত আর্থিক অনুদান প্রদান করা হয়েছে। পুলিশ সদস্যদের জন্য ভিটামিন সি, ডি এবং জিংক ট্যাবলেট কেনা হচ্ছে। শিগগিরই তা বিভিন্ন ইউনিটে পাঠানো হবে।

তিনি বলেন, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত পুলিশ সদস্যদের কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। পুলিশের অন্যান্য হাসপাতালগুলোতেও পর্যাপ্ত চিকিৎসা ব্যবস্থা রাখা হচ্ছে। এছাড়া, দেশের ৫টি বিভাগে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। আক্রান্ত পুলিশ সদস্যদের ঢাকায় যে চিকিৎসা দেয়া হবে, একই চিকিৎসা বিভাগীয় হাসপাতালেও দেয়া হবে। তাদের চিকিৎসায় সর্বোচ্চ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আক্রান্তদের খোঁজখবর নিতে ইউনিট প্রধানদের উদ্দেশ্যে আইজিপি বলেন, যে সকল পুলিশ সদস্য কোয়ারেন্টাইনে, আইসোলেশনে এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন তাদের নিয়মিত খোঁজখবর নিতে হবে। তাদের প্রার্থনা, বিনোদন ও বই পড়ার ব্যবস্থা করার জন্যও নির্দেশ দেন আইজিপি।

তিনি বলেন, শুধু আক্রান্ত পুলিশ সদস্যদের নয়, তাদের পরিবারেরও খোঁজখবর নিতে হবে, তারা যেন নিজেদের একা মনে না করেন।

জেইউ/এসএইচএস/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাস - লাইভ আপডেট

৬৪,৭৩,০৯৭
আক্রান্ত

৩,৮১,৭০৬
মৃত

২৯,৮৬,০৬০
সুস্থ

# দেশ আক্রান্ত মৃত সুস্থ
বাংলাদেশ ৫২,৪৪৫ ৭০৯ ১১,১২০
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১৮,৮০,৫২৯ ১,০৮,০৫৭ ৬,২৫,৩৩৮
ব্রাজিল ৫,৫৬,৬৬৮ ৩১,২৭৮ ২,৪০,৬২৭
রাশিয়া ৪,২৩,৭৪১ ৫,০৩৭ ১,৮৬,৯৮৫
স্পেন ২,৮৭,০১২ ২৮,৭৫২ ১,৯৬,৯৫৮
যুক্তরাজ্য ২,৭৭,৯৮৫ ৩৯,৩৬৯ ৩৪৪
ইতালি ২,৩৩,৫১৫ ৩৩,৫৩০ ১,৬০,০৯২
ভারত ২,০৭,১৮৩ ৫,৮২৯ ১,০০,২৮৫
ফ্রান্স ১,৮৯,২২০ ২৮,৯৪০ ৬৮,৮১২
১০ জার্মানি ১,৮৪,০৯১ ৮,৬৭৪ ১,৬৬,৪০০
১১ পেরু ১,৭০,০৩৯ ৪,৬৩৪ ৬৮,৫০৭
১২ তুরস্ক ১,৬৫,৫৫৫ ৪,৫৮৫ ১,২৯,৯২১
১৩ ইরান ১,৫৭,৫৬২ ৭,৯৪২ ১,২৩,০৭৭
১৪ চিলি ১,০৮,৬৮৬ ১,১৮৮ ৪৪,৯৪৬
১৫ মেক্সিকো ৯৩,৪৩৫ ১০,১৬৭ ৬৭,৪৯১
১৬ কানাডা ৯২,৪১০ ৭,৩৯৫ ৫০,৩৫৭
১৭ সৌদি আরব ৮৯,০১১ ৫৪৯ ৬৫,৭৯০
১৮ চীন ৮৩,০২২ ৪,৬৩৪ ৭৮,৩১৫
১৯ পাকিস্তান ৭৬,৩৯৮ ১,৬২১ ২৭,১১০
২০ কাতার ৬০,২৫৯ ৪৩ ৩৬,০৩৬
২১ বেলজিয়াম ৫৮,৬১৫ ৯,৫০৫ ১৫,৯৩৪
২২ নেদারল্যান্ডস ৪৬,৬৪৭ ৫,৯৬৭ ২৫০
২৩ বেলারুশ ৪৪,২৫৫ ২৪৩ ১৯,১৯৫
২৪ ইকুয়েডর ৪০,৪১৪ ৩,৪৩৮ ২০,০১৯
২৫ সুইডেন ৩৮,৫৮৯ ৪,৪৬৮ ৪,৯৭১
২৬ সিঙ্গাপুর ৩৫,৮৩৬ ২৪ ২৩,১৭৫
২৭ দক্ষিণ আফ্রিকা ৩৫,৮১২ ৭৫৫ ১৮,৩১৩
২৮ সংযুক্ত আরব আমিরাত ৩৫,৭৮৮ ২৬৯ ১৮,৭২৬
২৯ পর্তুগাল ৩২,৮৯৫ ১,৪৩৬ ১৯,৮৬৯
৩০ কলম্বিয়া ৩১,৮৩৩ ১,০০৯ ১১,১৪২
৩১ সুইজারল্যান্ড ৩০,৮৭৪ ১,৯২০ ২৮,৫০০
৩২ কুয়েত ২৮,৬৪৯ ২২৬ ১৪,২৮১
৩৩ ইন্দোনেশিয়া ২৭,৫৪৯ ১,৬৬৩ ৭,৯৩৫
৩৪ মিসর ২৭,৫৩৬ ১,০৫২ ৬,৮২৭
৩৫ আয়ারল্যান্ড ২৫,০৬৬ ১,৬৫৮ ২২,০৮৯
৩৬ পোল্যান্ড ২৪,৩৯৫ ১,০৯২ ১১,৭২৬
৩৭ ইউক্রেন ২৪,৩৪০ ৭২৭ ১০,০৭৮
৩৮ রোমানিয়া ১৯,৫১৭ ১,২৮৮ ১৩,৫২৬
৩৯ ফিলিপাইন ১৮,৯৯৭ ৯৬৬ ৪,০৬৩
৪০ আর্জেন্টিনা ১৮,৩১৯ ৫৬৯ ৫,৭০৯
৪১ ডোমিনিকান আইল্যান্ড ১৭,৭৫২ ৫১৫ ১১,০৭৫
৪২ ইসরায়েল ১৭,২৮৫ ২৯০ ১৪,৯৪০
৪৩ জাপান ১৬,৯৩০ ৮৯৪ ১৪,৬৫০
৪৪ অস্ট্রিয়া ১৬,৭৫৯ ৬৬৯ ১৫,৬২৯
৪৫ আফগানিস্তান ১৬,৫০৯ ২৭০ ১,৪৫০
৪৬ পানামা ১৩,৮৩৭ ৩৪৪ ৯,৫১৪
৪৭ ওমান ১২,৭৯৯ ৫৯ ২,৮১২
৪৮ বাহরাইন ১২,৩১১ ১৯ ৭,৪০৭
৪৯ ডেনমার্ক ১১,৭৩৪ ৫৮০ ১০,৪৮৯
৫০ কাজাখস্তান ১১,৫৭১ ৪৮৯ ৫,৯৪১
৫১ দক্ষিণ কোরিয়া ১১,৫৪১ ২৭২ ১০,৪৪৬
৫২ সার্বিয়া ১১,৪৫৪ ২৪৫ ৬,৭৬৬
৫৩ নাইজেরিয়া ১০,৮১৯ ৩১৪ ৩,২৪০
৫৪ বলিভিয়া ১০,৫৩১ ৩৪৩ ১,১৩৭
৫৫ আর্মেনিয়া ১০,০০৯ ১৫৮ ৩,৪২৭
৫৬ আলজেরিয়া ৯,৬২৬ ৬৬৭ ৬,০৬৭
৫৭ চেক প্রজাতন্ত্র ৯,৩৬৪ ৩২৩ ৬,৬৮৬
৫৮ মলদোভা ৮,৫৪৮ ৩০৭ ৪,৭৩৮
৫৯ নরওয়ে ৮,৪৫৫ ২৩৭ ৭,৭২৭
৬০ ঘানা ৮,২৯৭ ৩৮ ২,৯৮৬
৬১ মালয়েশিয়া ৭,৮৭৭ ১১৫ ৬,৪৭০
৬২ মরক্কো ৭,৮৬৬ ২০৬ ৬,৪১০
৬৩ ইরাক ৭,৩৮৭ ২৩৫ ৩,৫০৮
৬৪ অস্ট্রেলিয়া ৭,২২১ ১০৩ ৬,৬২৬
৬৫ ফিনল্যাণ্ড ৬,৮৮৭ ৩২০ ৫,৫০০
৬৬ ক্যামেরুন ৬,৫৮৫ ২০০ ৩,৬৭৬
৬৭ আজারবাইজান ৫,৯৩৫ ৭১ ৩,৫৬৪
৬৮ হন্ডুরাস ৫,৩৬২ ২১৭ ৫৪৯
৬৯ গুয়াতেমালা ৫,৩৩৬ ১১৬ ৭৯৫
৭০ সুদান ৫,১৭৩ ২৯৮ ১,৫২২
৭১ তাজিকিস্তান ৪,১০০ ৪৭ ২,২১৭
৭২ লুক্সেমবার্গ ৪,০২০ ১১০ ৩,৮৪৮
৭৩ হাঙ্গেরি ৩,৯২১ ৫৩২ ২,১৬০
৭৪ গিনি ৩,৮৮৬ ২৩ ২,২৬৭
৭৫ সেনেগাল ৩,৮৩৬ ৪৩ ১,৯৫৪
৭৬ জিবুতি ৩,৭৭৯ ২৫ ১,৬০৭
৭৭ উজবেকিস্তান ৩,৭৬০ ১৫ ২,৯০৮
৭৮ ড্যানিশ রিফিউজি কাউন্সিল ৩,৩২৬ ৭২ ৪৮২
৭৯ থাইল্যান্ড ৩,০৮৩ ৫৮ ২,৯৬৬
৮০ আইভরি কোস্ট ৩,০২৪ ৩৩ ১,৫০১
৮১ গ্রীস ২,৯৩৭ ১৭৯ ১,৩৭৪
৮২ গ্যাবন ২,৮০৩ ২০ ৭৭৯
৮৩ এল সালভাদর ২,৬৫৩ ৪৬ ১,১১৬
৮৪ বুলগেরিয়া ২,৫৩৮ ১৪৪ ১,১২৩
৮৫ বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা ২,৫৩৫ ১৫৭ ১,৯১০
৮৬ উত্তর ম্যাসেডোনিয়া ২,৩৯১ ১৪১ ১,৫৯৫
৮৭ ক্রোয়েশিয়া ২,২৪৬ ১০৩ ২,০৮৮
৮৮ হাইতি ২,২২৬ ৪৫ ২৯
৮৯ নেপাল ২,০৯৯ ২৬৬
৯০ কেনিয়া ২,০৯৩ ৭১ ৪৯৯
৯১ কিউবা ২,০৯২ ৮৩ ১,৮২৭
৯২ সোমালিয়া ২,০৮৯ ৭৯ ৩৬১
৯৩ মায়োত্তে ১,৯৮৬ ২৪ ১,৪৭৩
৯৪ এস্তোনিয়া ১,৮৭০ ৬৮ ১,৬৩২
৯৫ কিরগিজস্তান ১,৮৪৫ ১৭ ১,২১৯
৯৬ মালদ্বীপ ১,৮৪১ ৬০৮
৯৭ আইসল্যান্ড ১,৮০৬ ১০ ১,৭৯৪
৯৮ শ্রীলংকা ১,৬৮৩ ১১ ৮২৩
৯৯ লিথুনিয়া ১,৬৮২ ৭১ ১,২৪৯
১০০ ভেনেজুয়েলা ১,৬৬২ ১৭ ৩০২
১০১ স্লোভাকিয়া ১,৫২২ ২৮ ১,৩৭২
১০২ নিউজিল্যান্ড ১,৫০৪ ২২ ১,৪৮১
১০৩ স্লোভেনিয়া ১,৪৭৫ ১০৯ ১,৩৫৮
১০৪ মালি ১,৩৫১ ৭৮ ৭৬৯
১০৫ ইথিওপিয়া ১,৩৪৪ ১৪ ২৩১
১০৬ গিনি বিসাউ ১,৩৩৯ ৫৩
১০৭ ইকোয়েটরিয়াল গিনি ১,৩০৬ ১২ ২০০
১০৮ লেবানন ১,২৪২ ২৭ ৭১৯
১০৯ আলবেনিয়া ১,১৬৪ ৩৩ ৮৯১
১১০ নিকারাগুয়া ১,১১৮ ৪৬ ৩৭০
১১১ কোস্টারিকা ১,১০৫ ১০ ৬৮২
১১২ হংকং ১,০৯৪ ১,০৩৮
১১৩ জাম্বিয়া ১,০৮৯ ৯১২
১১৪ তিউনিশিয়া ১,০৮৬ ৪৮ ৯৬৫
১১৫ লাটভিয়া ১,০৭১ ২৪ ৭৬০
১১৬ সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক ১,০৬৯ ২৩
১১৭ প্যারাগুয়ে ১,০১৩ ১১ ৪৯৮
১১৮ দক্ষিণ সুদান ৯৯৪ ১০
১১৯ নাইজার ৯৬০ ৬৫ ৮৪৮
১২০ সাইপ্রাস ৯৫২ ১৭ ৭৯০
১২১ সিয়েরা লিওন ৮৯৬ ৪৬ ৪৮০
১২২ উরুগুয়ে ৮৮৭ ২৩ ৬৯১
১২৩ বুর্কিনা ফাঁসো ৮৮১ ৫৩ ৭২০
১২৪ মাদাগাস্কার ৮৪৫ ১৮৫
১২৫ এনডোরা ৮৪৪ ৫১ ৭৩৩
১২৬ চাদ ৮০৩ ৬৬ ৫৬২
১২৭ জর্জিয়া ৭৯৬ ১৩ ৬৩৪
১২৮ জর্ডান ৭৫৫ ৫৮৬
১২৯ ডায়মন্ড প্রিন্সেস (প্রমোদ তরী) ৭১২ ১৩ ৬৫১
১৩০ সান ম্যারিনো ৬৭২ ৪২ ৩৮৪
১৩১ মৌরিতানিয়া ৬৬৮ ৩১ ৫৫
১৩২ মালটা ৬২০ ৫৫৪
১৩৩ কঙ্গো ৬১১ ২০ ১৭৯
১৩৪ জ্যামাইকা ৫৮৮ ৩২২
১৩৫ ফিলিস্তিন ৫৭৭ ৩৭২
১৩৬ চ্যানেল আইল্যান্ড ৫৬০ ৪৬ ৫২৮
১৩৭ ফ্রেঞ্চ গায়ানা ৫১৭ ২০৭
১৩৮ তানজানিয়া ৫০৯ ২১ ১৮৩
১৩৯ উগান্ডা ৪৮৯ ৮২
১৪০ রিইউনিয়ন ৪৭৭ ৪১১
১৪১ কেপ ভার্দে ৪৬৬ ২৩৭
১৪২ টোগো ৪৪৫ ১৩ ২৩০
১৪৩ তাইওয়ান ৪৪৩ ৪২৭
১৪৪ ইয়েমেন ৩৯৯ ৮৭ ১৫
১৪৫ রুয়ান্ডা ৩৮৪ ২৬৯
১৪৬ মালাউই ৩৫৮ ৪২
১৪৭ বেনিন ৩৩৯ ১৪৮
১৪৮ আইল অফ ম্যান ৩৩৬ ২৪ ৩১১
১৪৯ মরিশাস ৩৩৫ ১০ ৩২২
১৫০ ভিয়েতনাম ৩২৮ ২৯৮
১৫১ মন্টিনিগ্রো ৩২৪ ৩১৫
১৫২ লাইবেরিয়া ৩১১ ২৮ ১৬৭
১৫৩ মোজাম্বিক ৩০৭ ৯৮
১৫৪ ইসওয়াতিনি ২৯৪ ১৯৮
১৫৫ মায়ানমার ২৩২ ১৪৩
১৫৬ জিম্বাবুয়ে ২০৬ ২৯
১৫৭ মার্টিনিক ২০০ ১৪ ৯৮
১৫৮ ফারে আইল্যান্ড ১৮৭ ১৮৭
১৫৯ মঙ্গোলিয়া ১৮৫ ৪৪
১৬০ লিবিয়া ১৮২ ৫২
১৬১ জিব্রাল্টার ১৭২ ১৫১
১৬২ গুয়াদেলৌপ ১৬২ ১৪ ১৩৮
১৬৩ গায়ানা ১৫৩ ১২ ৭০
১৬৪ কেম্যান আইল্যান্ড ১৫১ ৭৭
১৬৫ ব্রুনাই ১৪১ ১৩৮
১৬৬ বারমুডা ১৪১ ১১৩
১৬৭ কমোরস ১৩২ ২৭
১৬৮ কম্বোডিয়া ১২৫ ১২৩
১৬৯ সিরিয়া ১২৩ ৫০
১৭০ ত্রিনিদাদ ও টোবাগো ১১৭ ১০৮
১৭১ বাহামা ১০২ ১১ ৪৯
১৭২ আরুবা ১০১ ৯৮
১৭৩ মোনাকো ৯৯ ৯০
১৭৪ বার্বাডোস ৯২ ৭৬
১৭৫ অ্যাঙ্গোলা ৮৬ ১৮
১৭৬ লিচেনস্টেইন ৮২ ৫৫
১৭৭ সিন্ট মার্টেন ৭৭ ১৫ ৬০
১৭৮ বুরুন্ডি ৬৩ ৩৩
১৭৯ ফ্রেঞ্চ পলিনেশিয়া ৬০ ৬০
১৮০ সুরিনাম ৫৪
১৮১ ব্রিটিশ ভার্জিন দ্বীপপুঞ্জ ৫৪
১৮২ ভুটান ৪৭
১৮৩ ম্যাকাও ৪৫ ৪৫
১৮৪ সেন্ট মার্টিন ৪১ ৩৩
১৮৫ বতসোয়ানা ৪০ ২৩
১৮৬ ইরিত্রিয়া ৩৯ ৩৯
১৮৭ অ্যান্টিগুয়া ও বার্বুডা ২৬ ১৯
১৮৮ সেন্ট ভিনসেন্ট ও গ্রেনাডাইন আইল্যান্ড ২৬ ১৫
১৮৯ নামিবিয়া ২৫ ১৬
১৯০ গাম্বিয়া ২৫ ২০
১৯১ পূর্ব তিমুর ২৪ ২৪
১৯২ গ্রেনাডা ২৩ ১৮
১৯৩ নিউ ক্যালেডোনিয়া ২০ ১৮
১৯৪ কিউরাসাও ২০ ১৫
১৯৫ লাওস ১৯ ১৬
১৯৬ ডোমিনিকা ১৮ ১৬
১৯৭ সেন্ট লুসিয়া ১৮ ১৮
১৯৮ ফিজি ১৮ ১৫
১৯৯ বেলিজ ১৮ ১৬
২০০ সেন্ট কিটস ও নেভিস ১৫ ১৫
২০১ গ্রীনল্যাণ্ড ১৩ ১১
২০২ ফকল্যান্ড আইল্যান্ড ১৩ ১৩
২০৩ ভ্যাটিকান সিটি ১২
২০৪ টার্কস্ ও কেইকোস আইল্যান্ড ১২ ১১
২০৫ সিসিলি ১১ ১১
২০৬ মন্টসেরাট ১১ ১০
২০৭ জান্ডাম (জাহাজ)
২০৮ পশ্চিম সাহারা
২০৯ পাপুয়া নিউ গিনি
২১০ ক্যারিবিয়ান নেদারল্যান্ডস
২১১ সেন্ট বারথেলিমি
২১২ এ্যাঙ্গুইলা
২১৩ লেসোথো
২১৪ সেন্ট পিয়ের এন্ড মিকেলন
তথ্যসূত্র: চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন (সিএনএইচসি) ও অন্যান্য।