‘পুলিশ কখনোই জনগণের পয়সায় কেনা ত্রাণকে নিজের নামে চালায় না’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:৪৮ এএম, ২৮ এপ্রিল ২০২০

সম্প্রতি করোনার সংকটকালীন সময়ে পুলিশের ত্রাণ বিতরণ নিয়ে অনেকেই সমালোচনা করেছেন। পুলিশের আ-দৌ ত্রাণ বিতরণের এখতিয়ার আছে কি-না, এ নিয়ে নানা প্রশ্ন উঠেছে।

সোমবার (২৭ এপ্রিল) রাতে বিষয়টির ব্যাখ্যা দিয়ে ব্যক্তিগত ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে একটি পোস্ট দিয়েছেন পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের সহকারী পুলিশ সুপার (মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স) মো. ইমরান আহম্মেদ। তার পোস্টটি হুবুহু তুলে ধরা হলো-

‘করোনা সংকটে আজ সারাবিশ্ব ধুঁকছে। কিছু ব্যতিক্রম ছাড়া সব দেশের মানুষই ঘরবন্দি। বাংলাদেশেও চলছে সরকারি ছুটি। মানুষ কার্যত ঘরবন্দি। এতে সংকটে পড়েছেন দেশের নিম্নআয়ের মানুষগুলো। বিশেষ করে অর্থনৈতিকভাবে প্রান্তিক পর্যায়ে থাকা মানুষের অবস্থা আরও করুণ। এই সংকটময়কালে সরকারি উদ্যোগের পাশাপাশি প্রাতিষ্ঠানিক, বেসরকারি ও ব্যক্তি পর্যায়ের অনেকেই মানুষের সহযোগিতা এগিয়ে এসেছেন। মহান মুক্তিযুদ্ধ থেকে শুরু করে দেশের প্রতিটি সংকটে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ পুলিশ। তাই, এমন দুর্যোগের দিনেও নিজেদের সামর্থ্যের সবটুকু দিয়ে অসহায় এসব মানুষের পাশে থাকছে বাংলাদেশ পুলিশ।’

‘বাংলাদেশ পুলিশের এমন মানবিক আচরণে দেশের মানুষ মুগ্ধ। এজন্য অনেকেই পুলিশের কর্মকাণ্ডের প্রশংসা করছেন। করোনাকালে মানুষকে সুরক্ষিত রাখতে বাংলাদেশ পুলিশের প্রতিটি সদস্য জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য একটি বিশেষ শ্রেণি উদ্দেশ্যমূলকভাবে পুলিশের বিরুদ্ধে অপপ্রচারে লিপ্ত হয়েছেন। ইচ্ছাকৃতভাবে পুলিশের মানবিক কার্যক্রমকে টার্গেট করে নানা ধরনের কটাক্ষ করছেন। দেশের এমন পরিস্থিতিতে এমন আচরণ অনাকাঙ্ক্ষিত ও নিঃসন্দেহে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।’

‘বিশেষ শ্রেণিটি করোনা সন্দেহে কারও মৃত্যু হলে কেউ এগিয়ে না এলেও পুলিশ লাশ দাফন করে, তখন এরা প্রশ্ন তোলে না। যখন অসুস্থ ব্যক্তি ঘণ্টার পর ঘণ্টা পড়ে থাকলেও করোনা সন্দেহে হাসপাতালে নেওয়ার জন্য কেউ এগিয়ে না এলেও পুলিশ যখন হাসপাতালে নেয়, তখনও এরা তখন প্রশ্ন তোলে না। চিকিৎসক ও নার্সদের যখন পুলিশ হাসপাতালে দিয়ে আসে তখনো এরা প্রশ্ন তোলে না। কিন্তু পুলিশ মানবিক সহায়তা কার্যক্রম চালালেই তাদের গাত্রদাহ শুরু হয়। নানা অবান্তর বিষয় হাজির করে সাঙ্গপাঙ্গ নিয়ে কটাক্ষ করা শুরু করে।’

police

‘দেশের সংবিধান অনুসারে সকল ক্ষমতার মালিক জনগণ। মুশকিলটা হলো কিছু কর্মচারী নিজেকেই মালিক মনে করেন। ভাবখানা এমন তিনি সম্রাট আর বাকিরা সব তার প্রজা। ভুলে যান তিনিও একজন বেতনভুক্ত ভৃত্য। এর চেয়ে বড় কিছু নন। এ কারণেই ঘুরে ফিরে কেবল পুলিশের পেছনে পড়ে থাকেন। বিশেষ শ্রেণি মনে করে, ত্রাণ বিতরণে তারাই মালিক। যদি নিজের টাকায় কেউ ত্রাণ দেয় তাহলে অন্য কী করে অন্য কেউ ত্রাণের মালিক হন?’

‘জাতির এই সংকটময়কালে পুলিশ প্রকাশ্যে ও গোপনে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। পুলিশে আসলে কাউকে ত্রাণ দিতে চায়নি বরং চেয়েছে বিপদে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে। তাই এটাকে ত্রাণ না বলে বরং পুলিশ মানবিক সহায়তা কার্যক্রম বলতে বেশি ইচ্ছুক। পুলিশের এই সহায়তা সামগ্রী যোগানের বড় অংশই হলো নিজেদের বেতনের টাকা আর রেশন। এর বাইরে অনেক ক্ষেত্রে সমাজের অনেক বিত্তশীল ব্যক্তি কিংবা প্রতিষ্ঠান সাহায্য করতে চেয়ে পুলিশের মানবিক কার্যক্রমে শরীক হতে চান। যেমন বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন পুলিশের সহায়তায় খাবার বিতরণ করেছে। আবার যেমন মিরপুরের আট বছরের ছোট্ট শিশু আয়ান পুলিশের কাছে নিজের টাকা জমানো ইলেকট্রিক ভল্ট এনে দিয়ে বলেছে। তার টাকা দিয়ে যেন অভুক্ত মানুষকে সহায়তা করা হয়। এজন্য সে পুলিশের সাহায্য চায়।’

‘ছোট্ট আয়ানের আবদার মেনে তার টাকা দিয়ে খাদ্য কিনে অসহায় মানুষের মধ্যে তার নামেই বিতরণ করেছে পুলিশ। এখানে দুটি বিষয় বিশেষভাবে লক্ষণীয়, প্রথমত-পুলিশ নিজের থেকে যেচে কারও থেকে সাহায্য নিতে যায় না। দ্বিতীয়ত-যদি অন্য কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান যদি পুলিশকে সহযোগিতা করে সেটিকে ভালোভাবেই জানিয়ে দেয় পুলিশ। যেমন চট্টগ্রামে পুলিশের সহায়তায় বিএসআরএম গ্রুপ পত্রিকার হকারদের পাশে দাঁড়িয়েছে। তবে, কেউ যদি নিজের পরিচয় গোপন রাখতে চান, সেক্ষেত্রে ভিন্ন কথা। মনে রাখবেন, বাংলাদেশ পুলিশ কখনোই জনগণের পয়সায় কেনা ত্রাণকে নিজের নামে চালায় না।’

‘এখন প্রশ্ন করতে পারেন, তাহলে ওই বিশেষ শ্রেণি কেন পুলিশের পেছনে লেগেছে। এর অনেকগুলো কারণ আছে। প্রথমত, পুলিশ মানবিক সহায়তা কার্যক্রম চালানোর পাশাপাশি সারাদেশেই ত্রাণ চোরদের ধরছে। চোরদেরও নাকি একটা নেটওয়ার্ক থাকে। সেই নেটওয়ার্কে নামে-বেনামে অনেকে যুক্ত থাকেন। চুরির একটা অংশ সেই নেটওয়ার্কে যুক্ত প্রত্যেকের ভাগেই পড়ে। কিন্তু পুলিশের অভিযানের কারণে স্বার্থে আঘাত লেগেছে। পুলিশ যদি ত্রাণ চোরদের না ধরতো, তাহলে হয়তো কিছু না কিছু তো পাতে পড়তো। কিন্তু দেশব্যাপী পুলিশের অভিযানে সেই আশায় যে গুড়েবালি!’

police

‘আরেকটা কারণে এটা করতে পারে। যখন মানুষ নিজের উপর অর্পিত দায়িত্ব সঠিকভাবে পালনে ব্যর্থ হয় তখন নাকি অপরের কাজের দোষ খুঁজে বেড়ায়। এটাও একটা সম্ভাব্য কারণ হতে পারে।’

‘শেষত, আরেকটি বড় কারণ পরশ্রীকাতরতা। বাংলাদেশ পুলিশ জনগণের সেবক হিসেবে নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছে। এতে মানুষ এটা বুঝতে পারছে, আসলে কারা কাজ করে আর কারা কাজ না করেই ক্রেডিট নেয়। যেহেতু জনগণের সামনে এটা ক্রমান্বয়ে সুস্পষ্ট হচ্ছে, তাই তাদের মনে ভয় ধরেছে। এজন্যই বাংলাদেশ পুলিশের সাফল্যকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে নানা ধরনের অপপ্রচার করা হচ্ছে।’

‘মুজিববর্ষের অঙ্গীকার, পুলিশ হবে জনতার’-এ স্লোগান ধারণ করে এগিয়ে চলছে বাংলাদেশ পুলিশ। তাই যতই ষড়যন্ত্র করো, জাতির পিতার ভাষাতেই বলবো, দাবাইয়া রাখতে পারবা না।

এআর/এসআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাস - লাইভ আপডেট

৬,২৬,৯৫,০০০
আক্রান্ত

১৪,৬০,৬০৪
মৃত

৪,৩৩,১৩,৪০০
সুস্থ

# দেশ আক্রান্ত মৃত সুস্থ
বাংলাদেশ ৪,৬২,৪০৭ ৬,৬০৯ ৩,৭৮,১৭২
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১,৩৬,১১,৮৯৬ ২,৭২,২৬৯ ৮০,৪২,৩৩৩
ভারত ৯৩,৯৩,০৩৯ ১,৩৬,৭৩৩ ৮৮,০২,২৬৭
ব্রাজিল ৬২,৯০,২৭২ ১,৭২,৬৩৭ ৫৫,৬২,৫৩৯
রাশিয়া ২২,৬৯,৩১৬ ৩৯,৫২৭ ১৭,৬১,৪৫৭
ফ্রান্স ২২,০৮,৬৯৯ ৫২,১২৭ ১,৬১,১৩৭
স্পেন ১৬,৪৬,১৯২ ৪৪,৬৬৮ ১,৯৬,৯৫৮
যুক্তরাজ্য ১৬,০৫,১৭২ ৫৮,০৩০ ৩৪৪
ইতালি ১৫,৬৪,৫৩২ ৫৪,৩৬৩ ৭,২০,৮৬১
১০ আর্জেন্টিনা ১৪,১৩,৩৭৫ ৩৮,৩২২ ১২,৪২,৮৭৭
১১ কলম্বিয়া ১২,৯৯,৬১৩ ৩৬,৪০১ ১১,৯৭,২০৪
১২ মেক্সিকো ১১,০০,৬৮৩ ১,০৫,৪৫৯ ৮,১৩,২৫৪
১৩ জার্মানি ১০,৪১,৯৭০ ১৬,৩৭৭ ৭,১১,০০০
১৪ পোল্যান্ড ৯,৮৫,০৭৫ ১৭,০২৯ ৫,৫৯,৪২৯
১৫ পেরু ৯,৬০,৩৬৮ ৩৫,৮৭৯ ৮,৯১,০০৪
১৬ ইরান ৯,৪৮,৭৪৯ ৪৭,৮৭৪ ৬,৫৮,২৯২
১৭ দক্ষিণ আফ্রিকা ৭,৮৫,১৩৯ ২১,৪৩৯ ৭,২৩,৩৪৭
১৮ ইউক্রেন ৭,২২,৬৭৯ ১২,২১৩ ৩,৩৯,৩৭৮
১৯ তুরস্ক ৫,৭৮,৩৪৭ ১৩,৩৭৩ ৩,৯৬,২২৭
২০ বেলজিয়াম ৫,৭৪,৪৪৮ ১৬,৪৬১ ৩৭,২৩৮
২১ চিলি ৫,৪৮,৯৪১ ১৫,৩২২ ৫,২৩,৭৯২
২২ ইরাক ৫,৪৮,৮২১ ১২,২০০ ৪,৭৮,৫৩৭
২৩ ইন্দোনেশিয়া ৫,৩৪,২৬৬ ১৬,৮১৫ ৪,৪৫,৭৯৩
২৪ চেক প্রজাতন্ত্র ৫,১৮,৬৪৯ ৮,০৫৪ ৪,৪২,৩২৭
২৫ নেদারল্যান্ডস ৫,১৩,৩২৫ ৯,৩২৬ ২৫০
২৬ রোমানিয়া ৪,৭১,৫৩৬ ১১,১৯৩ ৩,৪৮,৮৫২
২৭ ফিলিপাইন ৪,২৯,৮৬৪ ৮,৩৭৩ ৩,৯৮,৬২৪
২৮ পাকিস্তান ৩,৯৫,১৮৫ ৭,৯৮৫ ৩,৩৯,৮১০
২৯ কানাডা ৩,৬৪,৮১০ ১১,৯৭৬ ২,৯০,৭০০
৩০ সৌদি আরব ৩,৫৬,৯১১ ৫,৮৭০ ৩,৪৬,০২৩
৩১ মরক্কো ৩,৪৯,৬৮৮ ৫,৭৩৯ ২,৯৮,৫৭৪
৩২ ইসরায়েল ৩,৩৪,৯৮৮ ২,৮৫৪ ৩,২২,২১১
৩৩ সুইজারল্যান্ড ৩,১৮,২৯০ ৪,৬৩১ ২,২২,১০০
৩৪ পর্তুগাল ২,৯০,৭০৬ ৪,৩৬৩ ২,০৬,২৭৫
৩৫ অস্ট্রিয়া ২,৭৯,৭০৮ ৩,১০৫ ২,১৬,৯৯৮
৩৬ সুইডেন ২,৪৩,১২৯ ৬,৬৮১ ৪,৯৭১
৩৭ নেপাল ২,৩১,৯৭৮ ১,৪৭৯ ২,১২,৫৯০
৩৮ হাঙ্গেরি ২,১১,৫২৭ ৪,৬৭২ ৫৫,৬৩৭
৩৯ জর্ডান ২,১০,৭০৯ ২,৬২৬ ১,৪২,৭১০
৪০ ইকুয়েডর ১,৯০,৯০৯ ১৩,৩৭১ ১,৬৪,০০৯
৪১ সংযুক্ত আরব আমিরাত ১,৬৭,৭৫৩ ৫৭০ ১,৫৪,১৮৫
৪২ পানামা ১,৬৩,৪৫৩ ৩,০৩৯ ১,৪২,৮৭২
৪৩ সার্বিয়া ১,৬৩,০৩৫ ১,৪৮৪ ৩১,৫৩৬
৪৪ বলিভিয়া ১,৪৪,৫৯২ ৮,৯৪৯ ১,২১,২৮০
৪৫ ডোমিনিকান আইল্যান্ড ১,৪২,৬৫৩ ২,৩২৮ ১,১৪,৩১৭
৪৬ কুয়েত ১,৪২,৪২৬ ৮৭৮ ১,৩৬,৪১৩
৪৭ জাপান ১,৪২,০৬৮ ২,০৭৪ ১,২০,২৫৯
৪৮ বুলগেরিয়া ১,৪১,৭৪৭ ৩,৭৪৯ ৪৭,৭৭৯
৪৯ কাতার ১,৩৮,৬৪৮ ২৩৭ ১,৩৫,৮৬২
৫০ কোস্টারিকা ১,৩৭,০৯৩ ১,৬৯০ ৮৪,৯৯১
৫১ বেলারুশ ১,৩৫,০০৮ ১,১৫১ ১,১৩,৩৭৫
৫২ আর্মেনিয়া ১,৩৪,৭৬৮ ২,১৪২ ১,০৭,৩৬৪
৫৩ জর্জিয়া ১,৩২,৩৬৮ ১,২৩০ ১,১০,০৪৯
৫৪ কাজাখস্তান ১,৩০,৮৬৫ ১,৯৯০ ১,১৬,১৮৭
৫৫ ক্রোয়েশিয়া ১,২৬,৬১২ ১,৭১২ ১,০১,৮৩৮
৫৬ লেবানন ১,২৫,৬৭৮ ৯৯১ ৭৪,৯৫০
৫৭ ওমান ১,২৩,৪৮৪ ১,৪১৮ ১,১৪,৯৬৩
৫৮ গুয়াতেমালা ১,২১,৭৯৮ ৪,১৬১ ১,১০,২০৯
৫৯ আজারবাইজান ১,১৮,১৯৫ ১,৩৬১ ৭৩,৬৭৬
৬০ মিসর ১,১৫,১৮৩ ৬,৬২১ ১,০২,৪৯০
৬১ ইথিওপিয়া ১,০৮,৯৩০ ১,৬৯৫ ৬৮,২৫০
৬২ হন্ডুরাস ১,০৭,৫১৩ ২,৯০৫ ৪৭,৬৩৮
৬৩ মলদোভা ১,০৫,৮৫২ ২,২৬৯ ৯৩,০২৮
৬৪ স্লোভাকিয়া ১,০৫,৭৩৩ ৮১৬ ৬৪,১৯৭
৬৫ গ্রীস ১,০৩,০৩৪ ২,২২৩ ৯,৯৮৯
৬৬ ভেনেজুয়েলা ১,০১,৭৬০ ৮৯২ ৯৬,৬৫২
৬৭ তিউনিশিয়া ৯৪,৯৮০ ৩,১৫৩ ৬৯,২২৬
৬৮ মায়ানমার ৮৭,৯৭৭ ১,৮৮৭ ৬৭,৫৮৮
৬৯ বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা ৮৭,৩৭৪ ২,৬২০ ৫১,৪৭৯
৭০ বাহরাইন ৮৬,৬৪৫ ৩৪১ ৮৪,৭৮৫
৭১ চীন ৮৬,৫১২ ৪,৬৩৪ ৮১,৫৯৮
৭২ ফিলিস্তিন ৮৩,৫৮৫ ৭১৭ ৬৩,৮৩৪
৭৩ কেনিয়া ৮২,৬০৫ ১,৪৪৫ ৫৪,৩৯৯
৭৪ লিবিয়া ৮২,৪৩০ ১,১৬৬ ৫৩,২৬৬
৭৫ আলজেরিয়া ৮১,২১২ ২,৩৯৩ ৫২,৫৬৮
৭৬ প্যারাগুয়ে ৮১,১৩১ ১,৭৩১ ৫৭,৪৯৬
৭৭ ডেনমার্ক ৭৮,৩৫৪ ৮২৩ ৬১,৪৬১
৭৮ স্লোভেনিয়া ৭৫,৩৭০ ১,৩৮৪ ৫৩,৬৮৭
৭৯ উজবেকিস্তান ৭২,৭৫৩ ৬০৮ ৭০,০৪৭
৮০ কিরগিজস্তান ৭২,৪২৭ ১,৪৯৮ ৬৩,৭৮৯
৮১ আয়ারল্যান্ড ৭১,৯৪২ ২,০৫০ ২৩,৩৬৪
৮২ নাইজেরিয়া ৬৭,৩৩০ ১,১৭১ ৬২,৮১৯
৮৩ মালয়েশিয়া ৬৪,৪৮৫ ৩৫৭ ৫২,৬৪৭
৮৪ উত্তর ম্যাসেডোনিয়া ৬০,৭২৩ ১,৬৯৯ ৩৭,৫০৫
৮৫ লিথুনিয়া ৬০,১৯৩ ৪৯৩ ১৪,১২০
৮৬ সিঙ্গাপুর ৫৮,২১৩ ২৯ ৫৮,১১৯
৮৭ ঘানা ৫১,৩৭৯ ৩২৩ ৫০,২৯৮
৮৮ আফগানিস্তান ৪৬,২১৫ ১,৭৬৩ ৩৬,৭৩১
৮৯ এল সালভাদর ৩৮,৪০৫ ১,১১১ ৩৫,০৭৮
৯০ আলবেনিয়া ৩৬,৭৯০ ৭৮৭ ১৮,১৫২
৯১ নরওয়ে ৩৫,৫৪৬ ৩২৮ ২০,৯৫৬
৯২ মন্টিনিগ্রো ৩৪,৪৫৪ ৪৮১ ২২,৭৯৬
৯৩ লুক্সেমবার্গ ৩৩,৯৭৪ ৩০৬ ২৪,০৭৩
৯৪ দক্ষিণ কোরিয়া ৩৩,৮২৪ ৫২৩ ২৭,৫৪২
৯৫ অস্ট্রেলিয়া ২৭,৮৯৩ ৯০৭ ২৫,৫৮৮
৯৬ ফিনল্যাণ্ড ২৪,৬২৯ ৩৯৩ ১৬,৮০০
৯৭ ক্যামেরুন ২৪,১১৭ ৪৩৭ ২২,১৭৭
৯৮ শ্রীলংকা ২২,৯৮৮ ১০৯ ১৭,০০২
৯৯ আইভরি কোস্ট ২১,২৬১ ১৩১ ২০,৯১২
১০০ উগান্ডা ১৯,৯৪৪ ২০১ ৮,৯৪৪
১০১ জাম্বিয়া ১৭,৫৮৯ ৩৫৭ ১৬,৯২৫
১০২ সুদান ১৭,৪০৪ ১,২৩৫ ১০,১৭৫
১০৩ মাদাগাস্কার ১৭,৩৪১ ২৫১ ১৬,৬৫৭
১০৪ লাটভিয়া ১৬,৯৭৫ ১৯৭ ১,৭১৯
১০৫ সেনেগাল ১৬,০৭৫ ৩৩৩ ১৫,৫৯৭
১০৬ মোজাম্বিক ১৫,৫৮৬ ১২৯ ১৩,৬৭৭
১০৭ অ্যাঙ্গোলা ১৫,০৮৭ ৩৪৫ ৭,৭৬৩
১০৮ নামিবিয়া ১৪,৩৪৫ ১৫১ ১৩,৪৩৯
১০৯ ফ্রেঞ্চ পলিনেশিয়া ১৪,০৯৬ ৭৩ ৪,৮৪২
১১০ গিনি ১৩,০৩৯ ৭৬ ১১,৯৮২
১১১ মালদ্বীপ ১২,৯৪৭ ৪৬ ১১,৭৮১
১১২ ড্যানিশ রিফিউজি কাউন্সিল ১২,৬০৮ ৩৩৩ ১১,৪৯৫
১১৩ তাজিকিস্তান ১২,১১৮ ৮৬ ১১,৫১৮
১১৪ এস্তোনিয়া ১২,০৫২ ১১২ ৭,০১০
১১৫ ফ্রেঞ্চ গায়ানা ১১,১৭৯ ৭০ ৯,৯৯৫
১১৬ কেপ ভার্দে ১০,৭০০ ১০৫ ১০,১৬১
১১৭ জ্যামাইকা ১০,৬৬৯ ২৫১ ৫,৯৫৩
১১৮ বতসোয়ানা ১০,২৫৮ ৩১ ৭,৭১৭
১১৯ সাইপ্রাস ১০,২৩১ ৪৮ ২,০৫৭
১২০ জিম্বাবুয়ে ৯,৮২২ ২৭৫ ৮,৪৭২
১২১ মালটা ৯,৭৫২ ১৩৩ ৭,৫৫৭
১২২ হাইতি ৯,২৭২ ২৩২ ৭,৯৫১
১২৩ গ্যাবন ৯,১৯১ ৫৯ ৯,০৩৭
১২৪ মৌরিতানিয়া ৮,৪৫৮ ১৭২ ৭,৬৬৫
১২৫ গুয়াদেলৌপ ৮,৩৪৪ ১৪৯ ২,২৪২
১২৬ কিউবা ৮,১৭৩ ১৩৩ ৭,৫৫৪
১২৭ রিইউনিয়ন ৭,৯৪০ ৪০ ৭,১৭২
১২৮ সিরিয়া ৭,৭১৫ ৪০৯ ৩,৪৪৪
১২৯ বাহামা ৭,৪৯৬ ১৬৩ ৫,৮৩০
১৩০ ত্রিনিদাদ ও টোবাগো ৬,৬৩০ ১১৮ ৫,৭৩২
১৩১ এনডোরা ৬,৬১০ ৭৬ ৫,৭১০
১৩২ ইসওয়াতিনি ৬,৪০৬ ১২১ ৫,৯৮৭
১৩৩ হংকং ৬,২৩৯ ১০৯ ৫,৩৪০
১৩৪ মালাউই ৬,০২৫ ১৮৫ ৫,৪৫৩
১৩৫ রুয়ান্ডা ৫,৮৯১ ৪৭ ৫,৪৮০
১৩৬ নিকারাগুয়া ৫,৭৮৪ ১৬০ ৪,২২৫
১৩৭ কঙ্গো ৫,৭৭৪ ১১৪ ৪,৯৮৮
১৩৮ জিবুতি ৫,৬৭৬ ৬১ ৫,৫৭৭
১৩৯ বেলিজ ৫,৬৪৭ ১৪৪ ৩,০৭২
১৪০ উরুগুয়ে ৫,৫১১ ৭৫ ৪,১৮৫
১৪১ মার্টিনিক ৫,৪১৩ ৪০ ৯৮
১৪২ আইসল্যান্ড ৫,৩৮১ ২৬ ৫,১৬৮
১৪৩ গায়ানা ৫,৩৩৮ ১৪৯ ৪,৩১৭
১৪৪ সুরিনাম ৫,৩১২ ১১৭ ৫,১৯২
১৪৫ মায়োত্তে ৫,১৮১ ৪৯ ২,৯৬৪
১৪৬ ইকোয়েটরিয়াল গিনি ৫,১৫৩ ৮৫ ৫,০০৯
১৪৭ সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক ৪,৯১৩ ৬৩ ১,৯২৪
১৪৮ আরুবা ৪,৮৩৩ ৪৫ ৪,৬৬৪
১৪৯ মালি ৪,৬৫৯ ১৪৯ ৩,১৩৮
১৫০ সোমালিয়া ৪,৪৫১ ১১৩ ৩,৪১৭
১৫১ থাইল্যান্ড ৩,৯৭৭ ৬০ ৩,৮০০
১৫২ গাম্বিয়া ৩,৭৩১ ১২৩ ৩,৫৯০
১৫৩ দক্ষিণ সুদান ৩,১০৪ ৬১ ২,৯৫৪
১৫৪ বেনিন ২,৯৭৪ ৪৩ ২,৮১৯
১৫৫ টোগো ২,৯৪৬ ৬৪ ২,৪৩৫
১৫৬ বুর্কিনা ফাঁসো ২,৮১৭ ৬৮ ২,৫৮৮
১৫৭ গিনি বিসাউ ২,৪২২ ৪৩ ২,৩০৯
১৫৮ সিয়েরা লিওন ২,৪১০ ৭৪ ১,৮৩৪
১৫৯ কিউরাসাও ২,২৫৮ ১,১২৩
১৬০ ইয়েমেন ২,১৬০ ৬১৫ ১,৪৯৮
১৬১ লেসোথো ২,১০৯ ৪৪ ১,২৭৮
১৬২ নিউজিল্যান্ড ২,০৫০ ২৫ ১,৯৫৬
১৬৩ চাদ ১,৬৬৩ ১০১ ১,৫০৪
১৬৪ লাইবেরিয়া ১,৫৯৫ ৮৩ ১,৩৪৩
১৬৫ সান ম্যারিনো ১,৫৮৬ ৪৫ ১,২৮৫
১৬৬ নাইজার ১,৪৮৪ ৭০ ১,২০৫
১৬৭ ভিয়েতনাম ১,৩৪৩ ৩৫ ১,১৭৯
১৬৮ লিচেনস্টেইন ১,২৫৩ ১৫ ১,০২৪
১৬৯ চ্যানেল আইল্যান্ড ১,২১৮ ৪৮ ৯৭৫
১৭০ সিন্ট মার্টেন ১,০৬২ ২৫ ৯৪৭
১৭১ জিব্রাল্টার ১,০১৪ ৯৩২
১৭২ মঙ্গোলিয়া ৭৮৪ ৩৫৪
১৭৩ টার্কস্ ও কেইকোস আইল্যান্ড ৭৪৮ ৭০৬
১৭৪ ডায়মন্ড প্রিন্সেস (প্রমোদ তরী) ৭১২ ১৩ ৬৫৯
১৭৫ সেন্ট মার্টিন ৬৯০ ১২ ৫৯৮
১৭৬ বুরুন্ডি ৬৮১ ৫৭৫
১৭৭ তাইওয়ান ৬৫১ ৫৬৫
১৭৮ পাপুয়া নিউ গিনি ৬৪৫ ৫৮৮
১৭৯ কমোরস ৬১১ ৫৮৬
১৮০ মোনাকো ৬০৭ ৫৩৭
১৮১ ইরিত্রিয়া ৫৭৭ ৪৯৮
১৮২ তানজানিয়া ৫০৯ ২১ ১৮৩
১৮৩ ফারে আইল্যান্ড ৫০২ ৪৯৮
১৮৪ মরিশাস ৫০১ ১০ ৪৪৩
১৮৫ ভুটান ৩৯৬ ৩৭৩
১৮৬ আইল অফ ম্যান ৩৬৯ ২৫ ৩৩৮
১৮৭ কম্বোডিয়া ৩১৫ ৩০১
১৮৮ কেম্যান আইল্যান্ড ২৭৪ ২৫২
১৮৯ বার্বাডোস ২৭০ ২৪৯
১৯০ সেন্ট লুসিয়া ২৫২ ১০৯
১৯১ বারমুডা ২৫১ ২১৩
১৯২ সিসিলি ১৭৩ ১৬২
১৯৩ ক্যারিবিয়ান নেদারল্যান্ডস ১৬১ ১৫৫
১৯৪ ব্রুনাই ১৫০ ১৪৫
১৯৫ অ্যান্টিগুয়া ও বার্বুডা ১৪১ ১৩০
১৯৬ সেন্ট বারথেলিমি ১২৭ ৯৪
১৯৭ ডোমিনিকা ৮৫ ৬৩
১৯৮ সেন্ট ভিনসেন্ট ও গ্রেনাডাইন আইল্যান্ড ৮৫ ৭৯
১৯৯ ব্রিটিশ ভার্জিন দ্বীপপুঞ্জ ৭১ ৭০
২০০ ম্যাকাও ৪৬ ৪৬
২০১ গ্রেনাডা ৪১ ৩০
২০২ লাওস ৩৯ ২৪
২০৩ ফিজি ৩৮ ৩৩
২০৪ নিউ ক্যালেডোনিয়া ৩২ ৩২
২০৫ পূর্ব তিমুর ৩০ ৩১
২০৬ ভ্যাটিকান সিটি ২৭ ১৫
২০৭ সেন্ট কিটস ও নেভিস ২২ ১৯
২০৮ গ্রীনল্যাণ্ড ১৮ ১৮
২০৯ সলোমান আইল্যান্ড ১৭
২১০ ফকল্যান্ড আইল্যান্ড ১৬ ১৩
২১১ সেন্ট পিয়ের এন্ড মিকেলন ১৬ ১২
২১২ মন্টসেরাট ১৩ ১৩
২১৩ পশ্চিম সাহারা ১০
২১৪ জান্ডাম (জাহাজ)
২১৫ এ্যাঙ্গুইলা
২১৬ মার্শাল আইল্যান্ড
২১৭ ওয়ালিস ও ফুটুনা
২১৮ সামোয়া
২১৯ ভানুয়াতু
তথ্যসূত্র: চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন (সিএনএইচসি) ও অন্যান্য।
করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]