লিবিয়ার ঘটনায় জোর কূটনৈতিক তৎপরতা চালানোর আহ্বান আসকের

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:২৭ পিএম, ২৯ মে ২০২০

লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশিসহ ৩০ অভিবাসী শ্রমিককে গুলি করে হত্যার ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে আইন ও সালিশ কেন্দ্র (আসক) এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ সরকারকে জোর কূটনৈতিক প্রচেষ্টা চালানোর আহ্বান জানিয়েছে।

শুক্রবার (২৯ মে) আইন ও সালিশ কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী পরিচালক মুস্তাফিজুর রহমান এক বিবৃতিতে এ আহ্বান জানান।

এতে বলা হয়েছে, লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশিসহ ৩০ অভিবাসী শ্রমিককে গুলি করে হত্যা করেছে একটি মানবপাচারকারী চক্রের পরিবারের সদস্যরা। বাংলাদেশে অবৈধ অভিবাসনের সাথে জড়িত মানবপাচারকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণসহ এ হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ নিশ্চিত করার জন্য বাংলাদেশ সরকারকে জোর কূটনৈতিক প্রচেষ্টা চালানোর আহ্বান জানাচ্ছে আসক।

গণমাধ্যমের তথ্যের বরাত দিয়ে আসক বলেছে, ২৮ মে সাহারা মরুভূমি অঞ্চলের মিজদা শহরে এ হত্যাকাণ্ড ঘটেছে বলে জানিয়েছে দেশটির আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত সরকার জিএনএ। নিহতদের ২৬ জন বাংলাদেশি ও বাকি চারজন আফ্রিকান। এ ঘটনায় আরও ১১ জন আহত হয়েছেন। জানা যাচ্ছে, মিজদা শহরে মানবপাচারকারী চক্র ও অভিবাসীদের মধ্যে টাকার জন্য মারামারি হয়। এতে মানবপাচারকারী চক্রের একজনের মৃত্যু হয়। তারই প্রতিশোধ নিতে নিহতের পরিবারের সদস্যরা এ হত্যাকাণ্ড ঘটায়।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, দীর্ঘদীন ধরে বাংলাদেশ থেকে উল্লেখযোগ্যসংখ্যক অভিবাসন প্রত্যাশী মানবপাচারকারীদের সহায়তায় অবৈধভাবে লিবিয়ায় যাচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। বর্তমানে দেশটি অভিবাসীদের জন্য ভূমধ্যসাগর পেরিয়ে ইউরোপে যাওয়ার অন্যতম রুটে পরিণত হওয়ায় এ প্রবণতা আরও বেড়েছে। ফলে প্রায়শ ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবিসহ নানা মর্মান্তিক দুর্ঘটনা সামনে আসছে।

এতে আরও বলা হয়েছে, আসক অবৈধ অভিবাসন প্রতিহত করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণসহ মানবপাচারকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করার দাবি জানাচ্ছে। এ ঘটনায় আহতদের সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করা ও দেশে ফিরিয়ে আনা এবং হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের শাস্তি নিশ্চিত করতে জোরদার কূটেনৈতিক প্রচেষ্টা চালানোর আহ্বান জানাচ্ছে।

এমএএস/এইচএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]