বিনা মাশুলে রাজধানীতে আসছে প্রান্তিক কৃষকদের মৌসুমি ফল

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৩৯ পিএম, ৩০ মে ২০২০

দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের প্রান্তিক কৃষকদের উৎপাদিত মৌসুমি ফল রাজধানীর পাইকারি বাজারে পৌঁছে দিতে বিনা মাশুলে ফল পরিবহন সেবা দিচ্ছে ডাক অধিদফতর।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার শনিবার খাগড়িছড়িতে বিনা মাশুলে প্রান্তিক কৃষকদের উৎপাদিত ৪০ হাজার লিচু পরিবহনের মাধ্যমে এই কর্মসূচির উদ্বোধন করেন। বিনা মাশুলে কৃষিপণ্য পরিবহনে ডাক অধিদফতরের কৃষকবন্ধু কর্মসূচির পর ফল পরিবহনে নতুন এই সেবাটি চালু করা হয়। মন্ত্রীর নিদেশে ডাক অধিদফতর সেবাটি চালু করে।

শনিবার দুপুরে ঢাকায় বেইলি রোডের সরকারি বাসভবন থেকে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাসের সঙ্গে টেলিকনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে খাগড়াছড়ি থেকে বিনা মাশুলে রাজধানীতে মৌসুমি ফল পরিবহন সেবা উদ্বোধন করেন মন্ত্রী। ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব নূর-উর-রহমান এবং ডাক অধিদফতরের মহাপরিচালক এসএস ভদ্র জুম ভিডিওতে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সংযুক্ত ছিলেন।

এ সময় ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন, কোভিড -১৯ সৃষ্ট বৈশ্বিক সংকটকালে জনগণের জন্য অত্যাবশ্যকীয় সেবাসমূহ সহজতর করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে সরকার গত ৯ মে থেকে কৃষকবন্ধু ডাক সেবা চালু করেছে। এছাড়া বিনা মাশুলে করোনা চিকিৎসা উপকরণ পিপিই ও কিট দেশব্যাপী সিভিল সার্জন কার্যালয়সমূহে দ্রুত পৌঁছানোসহ নিরবচ্ছিন্ন ডাকসেবা নিশ্চিত করা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে নগরবাসীর দোরগোড়ায় ডাকসেবা পৌঁছে দিতে ভ্রাম্যমাণ ডাকঘরের কার্যক্রম গত ২৭ এপ্রিল থেকে শুরু করা হয়।

jagonews24

নতুন এই সেবার আওতায় ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে কৃষক ঘরে বসেই তার বিক্রয়লব্ধ পণ্যের টাকা পেয়ে যাবেন। এর ফলে কোনোমধ্যস্বত্বভোগী ছাড়াই কৃষক তার উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্যমূল্য পাবেন। দেশব্যাপী ডাক পরিবহনে ব্যবহৃত রাজধানী ফেরৎ ডাক অধিদফতরের গাড়িগুলো কৃষকের উৎপাদিত পণ্য পরিবহনে ব্যবহার করা হবে। এতে সরকারের অতিরিক্ত কোনো খরচেরও প্রয়োজন হবে না। পর্যায়ক্রমে সারাদেশে এই সেবা চালু করা হবে। মন্ত্রী এই উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে অনলাইন বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ে অন্যান্যের মধ্যে খাগড়াছড়ি জেলা কৃষিসম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. মোর্তজা আলী, খাগড়াছড়ি রাঙামাটি সার্কেলের ডিপিএমজি মোস্তাফা কামাল, খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা কৃষি অফিসার মুক্তা চাকমা, খাগড়াছড়ির পোস্ট মাস্টার অরুন বিকাশ চাকমা এবং কৃষক প্রতিনিধি দীনেশ ত্রিপুরা যুক্ত ছিলেন।

এমইউএইচ/এমএসএইচ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]