ইংরেজিতে প্রতিবেদন, বিরক্ত পরিকল্পনামন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:২৩ পিএম, ৩০ জুন ২০২০

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোকে (বিবিএস) দীর্ঘদিন ধরে ইংরেজির পাশাপাশি বাংলাতে প্রতিবেদন তৈরির জন্য পরামর্শ দিয়ে আসছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। তবে তা শুনছে না বিবিএস। আজ মঙ্গলবারও (৩০ জুন) ‘মনিটরিং দ্য সিচুয়েশন অব ভাইটাল স্ট্যাটিস্টিকস অব বাংলাদেশ (এমএসভিএসবি) ৩য় পর্যায়’ প্রকল্পের ‘রিপোর্ট অন বাংলাদেশ স্যাম্পল ভাইটাল স্ট্যাটিস্টিকস-২০১৯’ এর প্রতিবেদনটি পুরোপুরি ইংরেজিতে তৈরি করে প্রকাশ করেছে বিবিএস। ইংরেজির পাশাপাশি বাংলাতে প্রতিবেদনটি না তৈরি করায় ক্ষোভ ও বিরক্তি প্রকাশ করেছেন পরিকল্পনামন্ত্রী।

মঙ্গলবার সকালে এই প্রতিবেদন সংক্রান্ত অনুষ্ঠানে জুম মিটিংয়ে অংশ নিয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী এ ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর মহাপরিচালক মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম এবং পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী মহোদয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। মূল বইটা পুরোপুরি ইংরেজিতে করা হয়েছে। আমি বারবার বলে আসছি, ইংরেজিকে সম্মান করি, খুবই প্রয়োজন আছে, কিন্তু প্রতিবেদনটাকে যদি দেশের মানুষের মধ্যে, জেলা, উপজেলা, প্রশাসনে, রাজনীতিতে, বিশ্ববিদ্যালয়ে, কলেজে ছড়াতে হলে এটা বাংলায় করতে হবে। বাংলায় করলে প্রতিবেদনের গ্রহণযোগ্যতা বাড়বে। বোধগম্য হবে। আবার আজকে আপনাদের সামনে বলবো, এটাকে বাংলায় করেন। খুব সাবধানে বাংলা করেন। পণ্ডিত ব্যক্তিদের দেখিয়ে নেন, যাতে ভাষাটা সঠিক থাকে, পরিশুদ্ধ হয়।’

বিবিএসের দীর্ঘ কয়েক দশকের ইতিহাসে সবসময় ইংরেজিতে প্রতিবেদন প্রকাশ করে আসছে। গত বছর পরিকল্পনামন্ত্রীর সুপারিশে প্রথমবার ইংরেজির পাশাপাশি বাংলাতেও প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। কিন্তু এই প্রতিবেদন শুধু ইংরেজিতেই প্রকাশ করা হলো।

এম এ মান্নান আরও বলেন, ‘পরিসংখ্যানের গুরুত্ব যে কত বেশি, আমি বুঝিয়ে বলতে পারবো না। এর গুরুত্ব দিন দিন বাড়ছে। আমরা অনেকেই এখনও এ বিষয়ে সচেতন নই। তবে সচেতন হতে বাধ্য হবো। কারণ পরিসংখ্যানের কোনো বিকল্প নেই।’

অনুষ্ঠানে পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী, বিবিএসের মহাপরিচালক মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম অনুষ্ঠানে অংশ নেন।

পিডি/এনএফ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]