স্বেচ্ছাশ্রমে তৈরি সড়ক ‘স্বপ্নপূরী’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক চট্টগ্রাম
প্রকাশিত: ০৮:১৬ পিএম, ৩০ জুন ২০২০

চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলার কোলাগাঁওতে মাত্র সাড়ে তিনশ’ ফুট দৈর্ঘ্যের একটি গ্রামীণ রাস্তা নির্মাণের জন্য স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) আর সংসদ সদস্যের কাছে বহুবার ধরনা দিয়েছেন এলাকাবাসী। সবাই আশ্বাস দিয়েই বিদায় করেছেন। রাস্তা নির্মাণে এগিয়ে আসেননি কেউ। তাই সেই রাস্তা নির্মাণে এগিয়ে এলেন এলাকার কিছু উদ্যমী মানুষ। নিজেদের অর্থে, ঘামে-শ্রমে বানালেন রাস্তা, নাম দিলেন ‘স্বপ্নপূরী’।

স্বেচ্ছাশ্রমের মাধ্যমে গত তিন মাসে কাঁচা রাস্তাটি নির্মাণের পর রোববার (২৮ জুন) বিকেল থেকে গ্রামবাসীর সম্মিলিত প্রচেষ্টায় শুরু হয়েছে আরসিসি ঢালাই কাজ, যা এখন শেষ পর্যায়ে।

Swapnapuri-4.jpg

রাস্তাটি তৈরির মূল উদ্যোক্তা ও পরিকল্পনাকারী রমজান আলি জাগো নিউজকে বলেন, ‘কোলাগাঁওতে মাত্র সাড়ে তিনশ’ ফুট দৈর্ঘ্যের এই গ্রামীণ রাস্তা দিয়ে পিডিবি, ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপ ইয়ার্ডের শ্রমিক, অসংখ্য ছাত্র-ছাত্রীসহ দৈনিক ১৫ হাজার মানুষ যাতায়াত করেন। কিন্তু তারা খুব কষ্ট পেতেন। রাস্তা নির্মাণের জন্য এলাকার লোকজন ও ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার সরকারি দফতরে বহুবার আবেদন করেছেন। ভোটের সময় বিভিন্ন জনপ্রতিনিধি এ রাস্তা করে দেয়ার আশ্বাসও দিয়েছিলেন। কিন্তু পরে তারা আর কেউ এগিয়ে আসেননি। তাই গ্রামের লোকজন সরকারি অনুদান ও কোনো বরাদ্দের আশায় না থেকে নিজেরাই রাস্তার নির্মাণকাজ শুরু করে সফল হয়েছেন। নতুন তৈরি রাস্তাটির নাম দেয়া হয়েছে স্বপ্নপূরী।’

এ কাজে এলাকার বিভিন্ন বয়সী কয়েকশ’ নারী-পুরুষ অংশ নেন। তারা দা, কোদাল ও প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম নিয়ে রাস্তার নির্মাণ কাজে নেমে পড়েছিলেন। স্বেচ্ছাশ্রমের মাধ্যমে তিন মাসে নিজেরাই ডোবা ভরাট করে, নিজেদের জায়গা দিয়ে কাঁচা রাস্তা নির্মাণ করেছেন। গত রোববার থেকে তাদের সার্বিক সহযোগিতায় ঢালাই কাজ শুরু হয়েছে, যা এখন প্রায় শেষ পর্যায়ে— বলেন রমজান আলি।

Swapnapuri-4.jpg

কোলাগাঁও গ্রামের বাসিন্দারা জানান, এখন রাস্তা নির্মাণের ফলে এক কিলোমিটার বেশি হাঁটতে হবে না এলাকাবাসীকে। শিক্ষার্থীরা কম সময়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যেতে পারবে। কৃষকরা সহজে তাদের উৎপাদিত কৃষি পণ্য বাজারজাত করতে পারবেন। এলাকার চলাচলে যোগ হয়েছে নতুন মাত্রা।

গ্রামবাসী জানান, সকলের সহযোগিতা নিয়ে ‘স্বপ্নপূরী’ নির্মাণ করতে তাদের মোট খরচ হয়েছে ২০-২৫ লাখ টাকা (জমির দামসহ)। এ কাজে সার্বিক সহযোগিতা করেন গ্রামের় নুরুল আবছার, কামাল উদ্দিন, রাজীব, ফরিদুল আলম, তারেক, মারুফ, মহিউদ্দীন, কাইয়ুম, শহিদুল লোকমান প্রমুখ।

Swapnapuri-4.jpg

কোলাগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আহমদ নুর জানান, এলাকার শিক্ষার্থী ও গ্রামবাসীকে অনেক কষ্টে বাজারে ও কাজ আসতে হতো। এতে তাদের অনেক ভোগান্তি হতো। যার কারণে নতুন রাস্তা নির্মাণ গ্রামবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি ছিল। কিন্তু বরাদ্দ না থাকায় নির্মাণ সম্ভব হয়নি। এখন এলাকাবাসী নিজেরাই জমি-শ্রম দিয়ে সফলভাবে এ রাস্তা নির্মাণ করেছেন।

পটিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ফারহানা জাহান উপমা বলেন, সরকারের পাশাপাশি এলাকাবাসী নিজ নিজ এলাকার উন্নয়নের জন্য এগিয়ে এলে দেশের চেহারা পাল্টে যাবে। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এ রকম ভালো কাজের সহযোগিতা সব সময় থাকবে।

আবু আজাদ/এইচএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]